ঢাকা ০৭:২১ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

আবারও করোনার বিস্তার লাভ করেছে চট্টগ্রামে

নিজস্ব সংবাদ

 চট্টগ্রামে আবারও করোনার সংক্রমণ বিস্তার লাভ করেছে। গত এক সপ্তাহে বেশ কয়েকজন আক্রান্ত হওয়ার পর টিকাদান কার্যক্রম পুনরায় চালুর উদ্যোগ নিয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ।

চট্টগ্রাম সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে দুই লাখ টিকার চাহিদা পাঠানো হয়েছে।

সিভিল সার্জন কার্যালয়ের তথ্যমতে, চট্টগ্রামে গত এক সপ্তাহে ১০ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে।

নমুনা পরীক্ষার তুলনায় শনাক্তের হার ১৫ শতাংশের বেশি। চট্টগ্রামে এ পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ২৯ হাজার ৬৪৫ জন। মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ৩৭১ জনের। তাদের মধ্যে ৭৩৮ জন মহানগরের এবং ৬৩৩ জন বিভিন্ন উপজেলার বাসিন্দা।

২০২০ সালের ৩ এপ্রিল  চট্টগ্রামে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়। ২৫ মে প্রথম একজনের মৃত্যু হয়।

সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ ইলিয়াছ চৌধুরী বলেন, চট্টগ্রামে কয়েকদিন ধরে আবারও করোনা রোগী শনাক্ত হচ্ছে। এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে ১৫ উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। প্রাপ্তি সাপেক্ষে টিকাদান কার্যক্রমও চালু করা হবে।

চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম আহসান বলেন, করোনা আক্রান্ত কয়েকজন রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। করোনা রোগীদের চিকিৎসা দিতে হাসপাতালের ওয়ার্ড প্রস্তুত আছে।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপডেট সময় ০৮:২৮:২১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
২৯ বার পড়া হয়েছে

আবারও করোনার বিস্তার লাভ করেছে চট্টগ্রামে

আপডেট সময় ০৮:২৮:২১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

 চট্টগ্রামে আবারও করোনার সংক্রমণ বিস্তার লাভ করেছে। গত এক সপ্তাহে বেশ কয়েকজন আক্রান্ত হওয়ার পর টিকাদান কার্যক্রম পুনরায় চালুর উদ্যোগ নিয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ।

চট্টগ্রাম সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে দুই লাখ টিকার চাহিদা পাঠানো হয়েছে।

সিভিল সার্জন কার্যালয়ের তথ্যমতে, চট্টগ্রামে গত এক সপ্তাহে ১০ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে।

নমুনা পরীক্ষার তুলনায় শনাক্তের হার ১৫ শতাংশের বেশি। চট্টগ্রামে এ পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ২৯ হাজার ৬৪৫ জন। মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ৩৭১ জনের। তাদের মধ্যে ৭৩৮ জন মহানগরের এবং ৬৩৩ জন বিভিন্ন উপজেলার বাসিন্দা।

২০২০ সালের ৩ এপ্রিল  চট্টগ্রামে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়। ২৫ মে প্রথম একজনের মৃত্যু হয়।

সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ ইলিয়াছ চৌধুরী বলেন, চট্টগ্রামে কয়েকদিন ধরে আবারও করোনা রোগী শনাক্ত হচ্ছে। এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে ১৫ উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। প্রাপ্তি সাপেক্ষে টিকাদান কার্যক্রমও চালু করা হবে।

চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম আহসান বলেন, করোনা আক্রান্ত কয়েকজন রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। করোনা রোগীদের চিকিৎসা দিতে হাসপাতালের ওয়ার্ড প্রস্তুত আছে।