ঢাকা ০৫:৩১ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আশুলিয়ায় ভুয়া পুলিশ সেজে অপহরণ, গ্রেফতার ৩

আনোয়ার সুলতান, সাভার

আশুলিয়ায় ভুয়া পুলিশ পরিচয়ে ৩ জনকে গ্রেফতার করেছে আশুলিয়া থানা পুলিশ। এসময় তাদের কাছ থেকে পুলিশ লেখা লোগো স্টিকার, একটি লাঠি ও ব্যাবহৃত একটি প্রাইভেট কার জব্দ করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৪ ডিসেম্বর) সকালে ৫ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠায় পুলিশ। দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আশুলিয়া থানা উপপরিদর্শক (এসআই) শেখ মোঃ মাসুদ আল মামুন। এর আগে গতকাল বুধবার (১৩ ডিসেম্বর) রাতে আশুলিয়ার বেরুন এলাকার নারী ও শিশু স্বাস্থ্য কেন্দ্রের সামনে থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- ঢাকা জেলার আশুলিয়া থানার মৃত এসাহাক মন্ডলের ছেলে ইউসুফ মন্ডল (৪৫), ময়মনসিংহ জেলার তারাকান্দা থানার পারইতলা গ্রামের মোঃ গোলাম রব্বানীর ছেলে মোঃ আমিনুল ইসলাম (২১) ও ঢাকা জেলার আশুলিয়া থানার ধনাইদ এলাকার সর হইলা হাবিবুর রহমান পাঠানের ছেলে মোঃ শামীম ইসলাম।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, ভুক্তভোগী ইমরান হোসেন মোটরসাইকেল যোগে গতকাল বুধবার রাত সাড়ে ৯ টার দিকে পারিবারিক কাজের জন্য বের হয়।

এসময় আশুলিয়ার বেরুন এলাকার নারী ও শিশু স্বাস্থ্য কেন্দ্রের সামনে পৌঁছলে একটি প্রাইভেট কার ভুক্তভোগীর মোটরসাইকেল গতিরোধ করে। এমসয় পুলিশ পরিচয় দিয়ে আসামীরা ভুক্তভোগী ইমরানকে প্রাইভেট কারে তুলে অপহরণের চেষ্টা করে। পরে আসামীরা ভুক্তভোগীর কাছে ১ লক্ষ টাকা দাবি করে।

এসময় ভুক্তভোগী ডাক চিৎকার করলে এলাকাবাসী তার ডাক চিৎকার শুনে আসামীদের আটক করে ভুক্তভোগী ইমরানকে উদ্ধার করে। আসামীরা পুলিশ পরিচয় দিলে এলাকাবাসীর সন্দেহ হলে এলাকাবাসী পুলিশে খবর দেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আসামীদের আটক করে থানায় নিয়ে আসে। পরে গতকাল বুধবার রাতেই ভুক্তভোগী বাদী হয়ে আশুলিয়া থানায় একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেন। আজ বৃহস্পতিবার (১৪ ডিসেম্বর) সকালে আসামীদের আদালতে পাঠানো হয়েছে।

এঘটনায় আশুলিয়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) শেখ মোঃ মাসুদ আল মামুন জানায়, গতকাল বুধবার রাতে আশুলিয়ার বেরুন এলাকার নারী ও শিশু স্বাস্থ্য কেন্দ্রের সামনে থেকে ভুয়া পুলিশ পরিচয়ে ৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এসময় আসামীদের কাছ থেকে পুলিশের লোগো স্টিকার, একটি লাঠি ও প্রাইভেট কার জব্দ করা হয়েছে। আসামীদের সকালে পাঁচ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে বলেও জানান তিনি।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপডেট সময় ০৮:৪২:৪১ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০২৩
১৩৮ বার পড়া হয়েছে

আশুলিয়ায় ভুয়া পুলিশ সেজে অপহরণ, গ্রেফতার ৩

আপডেট সময় ০৮:৪২:৪১ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০২৩

আশুলিয়ায় ভুয়া পুলিশ পরিচয়ে ৩ জনকে গ্রেফতার করেছে আশুলিয়া থানা পুলিশ। এসময় তাদের কাছ থেকে পুলিশ লেখা লোগো স্টিকার, একটি লাঠি ও ব্যাবহৃত একটি প্রাইভেট কার জব্দ করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৪ ডিসেম্বর) সকালে ৫ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠায় পুলিশ। দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আশুলিয়া থানা উপপরিদর্শক (এসআই) শেখ মোঃ মাসুদ আল মামুন। এর আগে গতকাল বুধবার (১৩ ডিসেম্বর) রাতে আশুলিয়ার বেরুন এলাকার নারী ও শিশু স্বাস্থ্য কেন্দ্রের সামনে থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- ঢাকা জেলার আশুলিয়া থানার মৃত এসাহাক মন্ডলের ছেলে ইউসুফ মন্ডল (৪৫), ময়মনসিংহ জেলার তারাকান্দা থানার পারইতলা গ্রামের মোঃ গোলাম রব্বানীর ছেলে মোঃ আমিনুল ইসলাম (২১) ও ঢাকা জেলার আশুলিয়া থানার ধনাইদ এলাকার সর হইলা হাবিবুর রহমান পাঠানের ছেলে মোঃ শামীম ইসলাম।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, ভুক্তভোগী ইমরান হোসেন মোটরসাইকেল যোগে গতকাল বুধবার রাত সাড়ে ৯ টার দিকে পারিবারিক কাজের জন্য বের হয়।

এসময় আশুলিয়ার বেরুন এলাকার নারী ও শিশু স্বাস্থ্য কেন্দ্রের সামনে পৌঁছলে একটি প্রাইভেট কার ভুক্তভোগীর মোটরসাইকেল গতিরোধ করে। এমসয় পুলিশ পরিচয় দিয়ে আসামীরা ভুক্তভোগী ইমরানকে প্রাইভেট কারে তুলে অপহরণের চেষ্টা করে। পরে আসামীরা ভুক্তভোগীর কাছে ১ লক্ষ টাকা দাবি করে।

এসময় ভুক্তভোগী ডাক চিৎকার করলে এলাকাবাসী তার ডাক চিৎকার শুনে আসামীদের আটক করে ভুক্তভোগী ইমরানকে উদ্ধার করে। আসামীরা পুলিশ পরিচয় দিলে এলাকাবাসীর সন্দেহ হলে এলাকাবাসী পুলিশে খবর দেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আসামীদের আটক করে থানায় নিয়ে আসে। পরে গতকাল বুধবার রাতেই ভুক্তভোগী বাদী হয়ে আশুলিয়া থানায় একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেন। আজ বৃহস্পতিবার (১৪ ডিসেম্বর) সকালে আসামীদের আদালতে পাঠানো হয়েছে।

এঘটনায় আশুলিয়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) শেখ মোঃ মাসুদ আল মামুন জানায়, গতকাল বুধবার রাতে আশুলিয়ার বেরুন এলাকার নারী ও শিশু স্বাস্থ্য কেন্দ্রের সামনে থেকে ভুয়া পুলিশ পরিচয়ে ৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এসময় আসামীদের কাছ থেকে পুলিশের লোগো স্টিকার, একটি লাঠি ও প্রাইভেট কার জব্দ করা হয়েছে। আসামীদের সকালে পাঁচ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে বলেও জানান তিনি।