ঢাকা ০৪:১৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ইউএনও উম্মে সালমা ডিমলা উপজেলাকে স্মার্ট উপজেলায় রুপান্তর করতে চান

মোঃ মামুন, ডিমলা (নীলফামারী)

নীলফামারীর ডিমলায় ২১মার্চ উপজেলা নির্বাহী অফিসার পদে যোগদান করেন উম্মে সালমা। তিনি যোগদানের পর থেকেই উপজেলার বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডকে ত্বরান্বিত করতে নিরলসভাবে পরিশ্রম করে যাচ্ছেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে যোগদানের পর পরই সমাজের বিভিন্ন স্তরের শ্রেণী-পেশার মানুষের সাথে মতবিনিময়কালে দেখা গেছে সৎ, নির্ভীক, নিরহংকার ও সদালাপী এই মানুষটির মনে রয়েছে নানান স্বপ্ন ও উদ্ভাবনী ভাবনা যা তিনি বাস্তবায়ন করতে বদ্ধপরিকর।

বর্তমান সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সকল উন্নয়ন কর্মকাণ্ড যথাযথভাবে বাস্তবায়নের পাশাপাশি সমাজের আপামর সর্ব সাধারণের সার্বিক কল্যাণে নিরন্তর ব্যস্ত থাকতে চান উপজেলা নির্বাহী অফিসার উম্মে সালমা।

তিনি ডিমলা উপজেলাকে নিজের মাতৃভূমি মনে করে উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডে সুনির্দিষ্ট লক্ষ্যকে সামনে রেখে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। তিনি ডিমলা উপজেলাকে ”স্মার্ট উপজেলায়” রূপান্তরের জন্য স্থানীয় সংসদ সদস্য, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যানবৃন্দ, সরকারি সকল কর্মকর্তা-কর্মচারী, সকল ইউপি চেয়ারম্যান ও সর্বস্তরের জনপ্রতিনিধি এবং বর্তমান সরকারের স্থানীয় রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, সুশীল সমাজের প্রতিনিধি, শিক্ষক, মুক্তিযোদ্ধা এবং সাংবাদিকদের সর্বাত্মক সহযোগিতা কামনা করেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উম্মে সালমার নতুন নতুন চিন্তা-চেতনা ও দীর্ঘস্থায়ী পরিকল্পনায় ডিমলা উপজেলা প্রশাসনকে দাঁড় করাতে চান এক নতুন মাত্রার উচ্চ শিখরে। তিনি সরকারি আইন ও নিয়মনীতি মেনে চলতেই অভ্যস্ত। শিক্ষার প্রতি সর্বাধিক গুরুত্ব দিয়ে মানসম্মত শিক্ষা ব্যবস্থা, সর্বজনীন পেনশন স্কিমে সকলকে অন্তর্ভুক্ত করণ, মাদক, জঙ্গি, ইভটিজিং ও বাল্যবিবাহ মুক্ত রাখার ব্যাপারে সর্বাত্মক চেষ্টাসহ সরকারের বিভিন্ন সেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দেওয়ার চেস্টা করে যাচ্ছেন।

সেবা নিতে আসা উপজেলার টেপাখড়িবাড়ি ইউনিয়নের চর খড়িবাড়ি গ্রামের সখিনা খাতুন (৬৫) বলেন, মোর জন্ম নিবন্ধন কার্ডে নামের ভূল হইছিল (আমার জন্ম নিবন্ধন কার্ডে নামের ভূল হয়েছিল)। মুই ইউনিয়ন অফিস থাকি উপজেলাত আইছু (আমি ইউনিয়ন অফিস থেকে উপজেলায় এসেছি)। উপজেলার বড় অফিসার মোগ দেখি ডাকাইছে (উপজেলার বড় অফিসার আমাকে দেখে ডেকেছে)। মোর কথা উমা ভালো করি শুনিছে (আমার কথা উনি মনোযোগসহকারে শুনেছে)। সেলায় উমা মোর কাগজ ঠিক করি দিছে (তখনি উনি আমার কাগজ ঠিক করে দিয়েছে)। মোগ আর আসির নাগে নাই (আমাকে আর আসতে হয়নি)। আল্লা উমার ভালো করুক (আল্লাহ ওনার ভালো করুক)।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার উম্মে সালমা বলেন, আমরা যা করছি আমাদের উপর গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক অর্পিত দায়িত্ব পালন মাত্র। আমরা জনগণের দোরগোড়ায় সরকারি সেবা পৌঁছে দেওয়ার মাধ্যমে সুশাসন প্রতিষ্ঠা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে কাজ করে যাচ্ছি। স্বচ্ছ ও জবাবদিহিমূলক এবং দুর্নীতি মুক্ত জনপ্রশাসনকে জনকল্যাণে জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছি দিতে সকলের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করছি।

তিনি আরও বলেন, প্রশাসনের একজন কর্মকর্তা হিসেবে জনগণের সেবা দিতে অর্পিত যে দায়িত্ব রয়েছে তা যথাযথভাবে পালন করতে চাই। উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সকল ক্ষেত্রে ডিমলা উপজেলাকে এগিয়ে নিতে চাই সকলের সহযোগিতায়।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উম্মে সালমা ৩৫ তম বিসিএস (প্রশাসন) এর একজন কর্মকর্তা হিসাবে চাকুরীতে যোগদান করেন। ডিমলা উপজেলায় যোগদানের পূর্বে তিনি রংপুর বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ে সিনিয়র সহকারি কমিশনার হিসাবে কর্মরত ছিলেন। তার জন্মস্থান পটুয়াখালীর সদর উপজেলায়। ব্যক্তিগত জীবনে তিনি দুই কন্যা সন্তানের জননী।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপডেট সময় ০৭:০০:২৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ৫ জুন ২০২৪
৩৬ বার পড়া হয়েছে

ইউএনও উম্মে সালমা ডিমলা উপজেলাকে স্মার্ট উপজেলায় রুপান্তর করতে চান

আপডেট সময় ০৭:০০:২৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ৫ জুন ২০২৪

নীলফামারীর ডিমলায় ২১মার্চ উপজেলা নির্বাহী অফিসার পদে যোগদান করেন উম্মে সালমা। তিনি যোগদানের পর থেকেই উপজেলার বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডকে ত্বরান্বিত করতে নিরলসভাবে পরিশ্রম করে যাচ্ছেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে যোগদানের পর পরই সমাজের বিভিন্ন স্তরের শ্রেণী-পেশার মানুষের সাথে মতবিনিময়কালে দেখা গেছে সৎ, নির্ভীক, নিরহংকার ও সদালাপী এই মানুষটির মনে রয়েছে নানান স্বপ্ন ও উদ্ভাবনী ভাবনা যা তিনি বাস্তবায়ন করতে বদ্ধপরিকর।

বর্তমান সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সকল উন্নয়ন কর্মকাণ্ড যথাযথভাবে বাস্তবায়নের পাশাপাশি সমাজের আপামর সর্ব সাধারণের সার্বিক কল্যাণে নিরন্তর ব্যস্ত থাকতে চান উপজেলা নির্বাহী অফিসার উম্মে সালমা।

তিনি ডিমলা উপজেলাকে নিজের মাতৃভূমি মনে করে উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডে সুনির্দিষ্ট লক্ষ্যকে সামনে রেখে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। তিনি ডিমলা উপজেলাকে ”স্মার্ট উপজেলায়” রূপান্তরের জন্য স্থানীয় সংসদ সদস্য, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যানবৃন্দ, সরকারি সকল কর্মকর্তা-কর্মচারী, সকল ইউপি চেয়ারম্যান ও সর্বস্তরের জনপ্রতিনিধি এবং বর্তমান সরকারের স্থানীয় রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, সুশীল সমাজের প্রতিনিধি, শিক্ষক, মুক্তিযোদ্ধা এবং সাংবাদিকদের সর্বাত্মক সহযোগিতা কামনা করেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উম্মে সালমার নতুন নতুন চিন্তা-চেতনা ও দীর্ঘস্থায়ী পরিকল্পনায় ডিমলা উপজেলা প্রশাসনকে দাঁড় করাতে চান এক নতুন মাত্রার উচ্চ শিখরে। তিনি সরকারি আইন ও নিয়মনীতি মেনে চলতেই অভ্যস্ত। শিক্ষার প্রতি সর্বাধিক গুরুত্ব দিয়ে মানসম্মত শিক্ষা ব্যবস্থা, সর্বজনীন পেনশন স্কিমে সকলকে অন্তর্ভুক্ত করণ, মাদক, জঙ্গি, ইভটিজিং ও বাল্যবিবাহ মুক্ত রাখার ব্যাপারে সর্বাত্মক চেষ্টাসহ সরকারের বিভিন্ন সেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দেওয়ার চেস্টা করে যাচ্ছেন।

সেবা নিতে আসা উপজেলার টেপাখড়িবাড়ি ইউনিয়নের চর খড়িবাড়ি গ্রামের সখিনা খাতুন (৬৫) বলেন, মোর জন্ম নিবন্ধন কার্ডে নামের ভূল হইছিল (আমার জন্ম নিবন্ধন কার্ডে নামের ভূল হয়েছিল)। মুই ইউনিয়ন অফিস থাকি উপজেলাত আইছু (আমি ইউনিয়ন অফিস থেকে উপজেলায় এসেছি)। উপজেলার বড় অফিসার মোগ দেখি ডাকাইছে (উপজেলার বড় অফিসার আমাকে দেখে ডেকেছে)। মোর কথা উমা ভালো করি শুনিছে (আমার কথা উনি মনোযোগসহকারে শুনেছে)। সেলায় উমা মোর কাগজ ঠিক করি দিছে (তখনি উনি আমার কাগজ ঠিক করে দিয়েছে)। মোগ আর আসির নাগে নাই (আমাকে আর আসতে হয়নি)। আল্লা উমার ভালো করুক (আল্লাহ ওনার ভালো করুক)।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার উম্মে সালমা বলেন, আমরা যা করছি আমাদের উপর গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক অর্পিত দায়িত্ব পালন মাত্র। আমরা জনগণের দোরগোড়ায় সরকারি সেবা পৌঁছে দেওয়ার মাধ্যমে সুশাসন প্রতিষ্ঠা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে কাজ করে যাচ্ছি। স্বচ্ছ ও জবাবদিহিমূলক এবং দুর্নীতি মুক্ত জনপ্রশাসনকে জনকল্যাণে জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছি দিতে সকলের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করছি।

তিনি আরও বলেন, প্রশাসনের একজন কর্মকর্তা হিসেবে জনগণের সেবা দিতে অর্পিত যে দায়িত্ব রয়েছে তা যথাযথভাবে পালন করতে চাই। উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সকল ক্ষেত্রে ডিমলা উপজেলাকে এগিয়ে নিতে চাই সকলের সহযোগিতায়।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উম্মে সালমা ৩৫ তম বিসিএস (প্রশাসন) এর একজন কর্মকর্তা হিসাবে চাকুরীতে যোগদান করেন। ডিমলা উপজেলায় যোগদানের পূর্বে তিনি রংপুর বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ে সিনিয়র সহকারি কমিশনার হিসাবে কর্মরত ছিলেন। তার জন্মস্থান পটুয়াখালীর সদর উপজেলায়। ব্যক্তিগত জীবনে তিনি দুই কন্যা সন্তানের জননী।