ঢাকা ০৯:৩৫ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ইবিতে আইন ও ভূমি ব্যবস্থাপনা বিভাগে মুট কোর্ট ও মক ট্রায়ালের উদ্বোধন

ওয়াসিফ আল আবরার, ইবি

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) আইন ও ভূমি ব্যবস্থাপনা বিভাগের উদ্যোগে মুট কোর্ট ও মক ট্রায়ালের উদ্বোধন করা হয়েছে।

শনিবার (৩ ফেব্রুয়ারী) সকাল ১০ টা থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান মিলনায়তনে বিভাগের ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীদের মুট কোর্ট (ছায়া আদালত) উদ্বোধন ও মক ট্রায়াল অনুষ্ঠিত হয়।

বিভাগীয় সভাপতি সহকারী অধ্যাপক শাহিদা আখতারের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালাম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ট্রেজারার অধ্যাপক ড. আলমগীর হোসেন ভূঁইয়া, ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার এইচ এম আলী হাসান, অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জাজ আদালতের এডভোকেট আবদুল মতিন, ঝিনাইদহ জেলা ও দায়রা আদালতের সিনিয়র এডভোকেট মো: নজরুল ইসলাম, কুষ্টিয়া জেলা ও দায়রা আদালতের সিনিয়র সহকারী বিচারপতি মো: আজহারুল ইসলাম, সিনিয়র এডভোকেট সংকর মজুমদার, গভর্নমেন্ট প্লিডার এডভোকেট আক্তারুজ্জামান মাসুম, কুষ্টিয়া বার এসোসিয়েশনের সাবেক সভাপতি রবিউল ইসলামসহ বিভাগের চার শতাধিক শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন ল এন্ড ল্যান্ড ম্যানেজমেন্ট বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মেহেদী হাসান।

বিভাগীয় সভাপতি সহকারী অধ্যাপক শাহিদা আক্তার বলেন, আমাদের বিভাগটি একদম নতুন হলেও আমাদের পথচলা চলমান রয়েছে। করোনার কারণে দুইবছর বন্ধ থাকায় পরে আমরা প্রায়োগিক অর্থে চার থেকে সাড়ে চার বছর সময় পেয়েছি পুরো বিষয়টি গুছিয়ে নেয়ার জন্য। প্রথম ব্যাচ থেকে সুপারিশ প্রাপ্ত একজন জজ বিভাগটি অর্জন করেছে। আমাদের একজন শিক্ষার্থী ওয়ার্ল্ডফোর্ট বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা সুযোগ পেয়েছে। আরেকজন অস্ট্রেলিয়ায় উচ্চ শিক্ষার জন্য গমন করেছে। । বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম ব্যাচ, যারা এখনো তাদের শিক্ষাজীবন ই শেষ করতে পারে নাই, তাদেরই এই ধরনের সাফল্য আমাদেরকে অনেক স্বপ্ন দেখায়।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালাম বলেন, এধরণের মক ট্রায়াল এবং মুট কোর্টের মাধ্যমে উকিল, বিচারক কিভাবে কাজ করে আমাদের শিক্ষার্থীরা ছাত্র অবস্থায় জানতে পারবে, শিখতে পারবে। এখানকার ল’ ডিপার্টমেন্ট অনেক পুরোনো। বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য অনেক গর্বের বিষয় যে বিশ্ববিদ্যালয়টি ল’ এর অন্যতম প্রয়োজনীয় অংশ ল’ অ্যান্ড ল্যান্ড ম্যানেজমেন্ট নামে একটি বিভাগ পরিচালনা করছে। ইতোমধ্যেই আমাদের বেশকজন শিক্ষার্থী জুডিশিয়াল পরীক্ষায় তাদের নিজ নিজ যোগ্যতার প্রমাণ রেখেছে। আমাদের ছাত্রদের আদালতের জন্য যোগ্য হিসেবে গড়ে তুলতে পারবো যদি এরকম কার্যক্রম চালু রাখতে পারি।

উল্লেখ্য, আইন ও ভূমি ব্যবস্থাপনা বিভাগে ৪র্থ বর্ষের পাঠ্যসূচিতে ইন্টার্নশিপ ও মুট কোর্ট অনুশীলন নামে একটি অংশ রয়েছে। যেখানে ইন্টার্নশিপ অংশে শিক্ষার্থীরা আইন পাঠের পর বিভিন্ন আদালতের আইনজীবীদের মাধ্যমে বাস্তবিক অভিজ্ঞতা লাভ করে এবং মুট কোর্ট অনুশীলন অংশে একটি কাল্পনিক আদালত থাকে যেখানে জজের আসনে বসে বিচারক বিচারকার্য এবং কাল্পনিক মামলায় উকিলরা পক্ষে বিপক্ষে যুক্তি তর্ক উপস্থাপন করেন।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপডেট সময় ০৩:২৭:২৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
৩৯৬ বার পড়া হয়েছে

ইবিতে আইন ও ভূমি ব্যবস্থাপনা বিভাগে মুট কোর্ট ও মক ট্রায়ালের উদ্বোধন

আপডেট সময় ০৩:২৭:২৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) আইন ও ভূমি ব্যবস্থাপনা বিভাগের উদ্যোগে মুট কোর্ট ও মক ট্রায়ালের উদ্বোধন করা হয়েছে।

শনিবার (৩ ফেব্রুয়ারী) সকাল ১০ টা থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান মিলনায়তনে বিভাগের ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীদের মুট কোর্ট (ছায়া আদালত) উদ্বোধন ও মক ট্রায়াল অনুষ্ঠিত হয়।

বিভাগীয় সভাপতি সহকারী অধ্যাপক শাহিদা আখতারের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালাম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ট্রেজারার অধ্যাপক ড. আলমগীর হোসেন ভূঁইয়া, ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার এইচ এম আলী হাসান, অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জাজ আদালতের এডভোকেট আবদুল মতিন, ঝিনাইদহ জেলা ও দায়রা আদালতের সিনিয়র এডভোকেট মো: নজরুল ইসলাম, কুষ্টিয়া জেলা ও দায়রা আদালতের সিনিয়র সহকারী বিচারপতি মো: আজহারুল ইসলাম, সিনিয়র এডভোকেট সংকর মজুমদার, গভর্নমেন্ট প্লিডার এডভোকেট আক্তারুজ্জামান মাসুম, কুষ্টিয়া বার এসোসিয়েশনের সাবেক সভাপতি রবিউল ইসলামসহ বিভাগের চার শতাধিক শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন ল এন্ড ল্যান্ড ম্যানেজমেন্ট বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মেহেদী হাসান।

বিভাগীয় সভাপতি সহকারী অধ্যাপক শাহিদা আক্তার বলেন, আমাদের বিভাগটি একদম নতুন হলেও আমাদের পথচলা চলমান রয়েছে। করোনার কারণে দুইবছর বন্ধ থাকায় পরে আমরা প্রায়োগিক অর্থে চার থেকে সাড়ে চার বছর সময় পেয়েছি পুরো বিষয়টি গুছিয়ে নেয়ার জন্য। প্রথম ব্যাচ থেকে সুপারিশ প্রাপ্ত একজন জজ বিভাগটি অর্জন করেছে। আমাদের একজন শিক্ষার্থী ওয়ার্ল্ডফোর্ট বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা সুযোগ পেয়েছে। আরেকজন অস্ট্রেলিয়ায় উচ্চ শিক্ষার জন্য গমন করেছে। । বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম ব্যাচ, যারা এখনো তাদের শিক্ষাজীবন ই শেষ করতে পারে নাই, তাদেরই এই ধরনের সাফল্য আমাদেরকে অনেক স্বপ্ন দেখায়।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালাম বলেন, এধরণের মক ট্রায়াল এবং মুট কোর্টের মাধ্যমে উকিল, বিচারক কিভাবে কাজ করে আমাদের শিক্ষার্থীরা ছাত্র অবস্থায় জানতে পারবে, শিখতে পারবে। এখানকার ল’ ডিপার্টমেন্ট অনেক পুরোনো। বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য অনেক গর্বের বিষয় যে বিশ্ববিদ্যালয়টি ল’ এর অন্যতম প্রয়োজনীয় অংশ ল’ অ্যান্ড ল্যান্ড ম্যানেজমেন্ট নামে একটি বিভাগ পরিচালনা করছে। ইতোমধ্যেই আমাদের বেশকজন শিক্ষার্থী জুডিশিয়াল পরীক্ষায় তাদের নিজ নিজ যোগ্যতার প্রমাণ রেখেছে। আমাদের ছাত্রদের আদালতের জন্য যোগ্য হিসেবে গড়ে তুলতে পারবো যদি এরকম কার্যক্রম চালু রাখতে পারি।

উল্লেখ্য, আইন ও ভূমি ব্যবস্থাপনা বিভাগে ৪র্থ বর্ষের পাঠ্যসূচিতে ইন্টার্নশিপ ও মুট কোর্ট অনুশীলন নামে একটি অংশ রয়েছে। যেখানে ইন্টার্নশিপ অংশে শিক্ষার্থীরা আইন পাঠের পর বিভিন্ন আদালতের আইনজীবীদের মাধ্যমে বাস্তবিক অভিজ্ঞতা লাভ করে এবং মুট কোর্ট অনুশীলন অংশে একটি কাল্পনিক আদালত থাকে যেখানে জজের আসনে বসে বিচারক বিচারকার্য এবং কাল্পনিক মামলায় উকিলরা পক্ষে বিপক্ষে যুক্তি তর্ক উপস্থাপন করেন।