ঢাকা ০৫:৪৭ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ইবিতে ইইই বিভাগের রজতজয়ন্তী ও প্রথম পুনর্মিলনী

ওয়াসিফ আল আবরার, ইবি

 

আনন্দ র‍্যালি, বেলুন ও পায়রা উড়ানো, আলোচনা সভা ও মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) ইলেক্ট্রিক্যাল এন্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং (ইইই) বিভাগের রজতজয়ন্তী ও প্রথম পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত হয়েছে।

রজতজয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষে শনিবার (৯ মার্চ) সকাল ১০ টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ড. ওয়াজেদ মিয়া বিজ্ঞান ভবন থেকে একটি আনন্দ র‍্যালি বের হয়। র‍্যালিটি ক্যাম্পাসের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান মিলনায়তনে সমবেত হয়। এতে বিভাগের ১৯৯৫-৯৬ থেকে ২০২২-২৩ শিক্ষাবর্ষের প্রায় এক হাজার শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেন।

পরবর্তীতে, বর্তমান ও সাবেক শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্য ১ মিনিট নিরবতা পালন, সম্মিলিত সুরে জাতীয় সংগীত, অতিথিদের সম্মাননা প্রদান এবং বিভাগীয় ডকুমেন্টারি প্রদর্শনীর মাধ্যমে পুনর্মিলনী অনুষ্ঠান শুরু হয়। স্বাগত বক্তব্য ও বিভাগের অতীত ও বর্তমান কার্যক্রম নিয়ে প্রামাণ্যচিত্র প্রর্দশন করেন বিভাগের সিনিয়র শিক্ষক অধ্যাপক ড. নজিবুল হক।

ইইই বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. মোঃ শাহিনুজ্জামানের সভাপতিত্বে ও শিক্ষার্থী উম্মে তাপসী রাবেয়া এবং ওমর ফারুকের যৌথ সঞ্চালনায় এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালাম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো: মাহবুবুর রহমান, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. আলমগীর হোসেন ভূইয়া ও প্রকৌশল অনুষদের ডীন অধ্যাপক ড. মোঃ মনজুরুল হক, শিক্ষক সমিতির সাধারন সম্পাদক অধ্যাপক ড. তপন কুমার জোদ্দার, ছাত্র-উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. সেলিনা নাসরীনসহ বিভাগের সকল পর্যায়ের শিক্ষক, কর্মকর্তা ও বর্তমান শিক্ষার্থীবৃন্দ এবং অ্যালামনাই সদস্যদের পরিবারবর্গ।

বিভাগের ২০০১-০২ শিক্ষাবর্ষের অ্যালমনাই আলী নূর জামান বলেন, আজকের আয়োজনের মাধ্যমে আমরা নবীন-প্রবীন সবাই একত্রিত হতে পেরে অত্যন্ত আনন্দিত। আমরা সবাই এরকম একটা দিনের অপেক্ষা করি। আমরা অনেকেই চাইলেও নানান ব্যস্ততার কারণে আসতে পারিনা, আর কেউ ব্যক্তিগতভাবে আসলেও সবাইকে এভাবে পাওয়া যায়না। বন্ধুদের ডায়নাতে বসে আড্ডা দেওয়ার, ক্যাম্পাসে চষে বেড়ানোর স্মৃতি খুবই মনে পড়ছে।

 

প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালাম বলেন, স্মার্ট বাংলাদেশ নির্মাণে এই বিভাগের অবদান গুরুত্বপূর্ণ। আমরা শুধু বিজ্ঞান নিয়ে কাজ করবো না বরং আমরা নিজেদের মানসম্মত হিসেবে গড়ে তুলবো। আজকের অ্যালামনাইয়ের মাধ্যমে এই বিভাগ ও বিশ্ববিদ্যালয়কে আপনারা সমৃদ্ধ করবেন বলে আমরা আশা করি। যারা এই বিভাগ থেকে পড়াশোনা করে দেশের বিভিন্ন জায়গায় প্রতিষ্ঠিত হয়েছেন তারা নতুনদের সময় দিবেন, পাশে থাকবেন এটাই আমি প্রত্যাশা করি। পুনর্মিলনীর মাধ্যমে নবীন-প্রবীণ সবার মাঝে বন্ধন তৈরি হবে যা আপনাদের আত্মিক অনুভূতি তৈরি করবে।

আলোচনা সভা শেষে র‍্যাফেল ড্র, স্মৃতিচারণ ও মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়। এর আগে রজতজয়ন্তী ও পুনর্মিলনী উপলক্ষে শুক্রবার পিঠা উৎসব ও সাংস্কৃতিক সন্ধ্যার আয়োজন করে বিভাগটি।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপডেট সময় ০৬:৫২:৪৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ৯ মার্চ ২০২৪
৪৩ বার পড়া হয়েছে

ইবিতে ইইই বিভাগের রজতজয়ন্তী ও প্রথম পুনর্মিলনী

আপডেট সময় ০৬:৫২:৪৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ৯ মার্চ ২০২৪

 

আনন্দ র‍্যালি, বেলুন ও পায়রা উড়ানো, আলোচনা সভা ও মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) ইলেক্ট্রিক্যাল এন্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং (ইইই) বিভাগের রজতজয়ন্তী ও প্রথম পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত হয়েছে।

রজতজয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষে শনিবার (৯ মার্চ) সকাল ১০ টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ড. ওয়াজেদ মিয়া বিজ্ঞান ভবন থেকে একটি আনন্দ র‍্যালি বের হয়। র‍্যালিটি ক্যাম্পাসের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান মিলনায়তনে সমবেত হয়। এতে বিভাগের ১৯৯৫-৯৬ থেকে ২০২২-২৩ শিক্ষাবর্ষের প্রায় এক হাজার শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেন।

পরবর্তীতে, বর্তমান ও সাবেক শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্য ১ মিনিট নিরবতা পালন, সম্মিলিত সুরে জাতীয় সংগীত, অতিথিদের সম্মাননা প্রদান এবং বিভাগীয় ডকুমেন্টারি প্রদর্শনীর মাধ্যমে পুনর্মিলনী অনুষ্ঠান শুরু হয়। স্বাগত বক্তব্য ও বিভাগের অতীত ও বর্তমান কার্যক্রম নিয়ে প্রামাণ্যচিত্র প্রর্দশন করেন বিভাগের সিনিয়র শিক্ষক অধ্যাপক ড. নজিবুল হক।

ইইই বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. মোঃ শাহিনুজ্জামানের সভাপতিত্বে ও শিক্ষার্থী উম্মে তাপসী রাবেয়া এবং ওমর ফারুকের যৌথ সঞ্চালনায় এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালাম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো: মাহবুবুর রহমান, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. আলমগীর হোসেন ভূইয়া ও প্রকৌশল অনুষদের ডীন অধ্যাপক ড. মোঃ মনজুরুল হক, শিক্ষক সমিতির সাধারন সম্পাদক অধ্যাপক ড. তপন কুমার জোদ্দার, ছাত্র-উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. সেলিনা নাসরীনসহ বিভাগের সকল পর্যায়ের শিক্ষক, কর্মকর্তা ও বর্তমান শিক্ষার্থীবৃন্দ এবং অ্যালামনাই সদস্যদের পরিবারবর্গ।

বিভাগের ২০০১-০২ শিক্ষাবর্ষের অ্যালমনাই আলী নূর জামান বলেন, আজকের আয়োজনের মাধ্যমে আমরা নবীন-প্রবীন সবাই একত্রিত হতে পেরে অত্যন্ত আনন্দিত। আমরা সবাই এরকম একটা দিনের অপেক্ষা করি। আমরা অনেকেই চাইলেও নানান ব্যস্ততার কারণে আসতে পারিনা, আর কেউ ব্যক্তিগতভাবে আসলেও সবাইকে এভাবে পাওয়া যায়না। বন্ধুদের ডায়নাতে বসে আড্ডা দেওয়ার, ক্যাম্পাসে চষে বেড়ানোর স্মৃতি খুবই মনে পড়ছে।

 

প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালাম বলেন, স্মার্ট বাংলাদেশ নির্মাণে এই বিভাগের অবদান গুরুত্বপূর্ণ। আমরা শুধু বিজ্ঞান নিয়ে কাজ করবো না বরং আমরা নিজেদের মানসম্মত হিসেবে গড়ে তুলবো। আজকের অ্যালামনাইয়ের মাধ্যমে এই বিভাগ ও বিশ্ববিদ্যালয়কে আপনারা সমৃদ্ধ করবেন বলে আমরা আশা করি। যারা এই বিভাগ থেকে পড়াশোনা করে দেশের বিভিন্ন জায়গায় প্রতিষ্ঠিত হয়েছেন তারা নতুনদের সময় দিবেন, পাশে থাকবেন এটাই আমি প্রত্যাশা করি। পুনর্মিলনীর মাধ্যমে নবীন-প্রবীণ সবার মাঝে বন্ধন তৈরি হবে যা আপনাদের আত্মিক অনুভূতি তৈরি করবে।

আলোচনা সভা শেষে র‍্যাফেল ড্র, স্মৃতিচারণ ও মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়। এর আগে রজতজয়ন্তী ও পুনর্মিলনী উপলক্ষে শুক্রবার পিঠা উৎসব ও সাংস্কৃতিক সন্ধ্যার আয়োজন করে বিভাগটি।