ঢাকা ০৬:২৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ইবিতে প্রথমবারের মতো ‘সেলস ফেয়ার’ শুরু

ওয়াসিফ আল আবরার, ইবি

 

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) মার্কেটিং বিভাগের ৫ম ব্যাচের ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীদের আয়োজনে প্রথমবারের মতো শুরু হয়েছে ‘সেলস ফেয়ার-২০২৪’।

 

রবিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) বিশ্ববিদ্যালয়ের বটতলা প্রাঙ্গণে এ মেলার আয়োজন করা হয়েছে। এদিন বেলা সাড়ে ১০ টার দিকে প্রধান অতিথি হিসেবে দিনব্যাপী এ মেলার উদ্বোধন করেন ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের ডীন প্রফেসর সাইফুল ইসলাম।

 

মার্কেটিং বিভাগের সভাপতি সহকারী অধ্যাপক মো. সাদিকুল আজাদের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক শাহ আলম কবির প্রামানিক, সহকারী অধ্যাপক মো. মাজেদুল হক, ইবির সাবেক শিক্ষার্থী ও এএনএইচ এন্টারপ্রাইজ লিমিটেড’র কর্ণধার মো. মোকাদ্দেস হানিফ টলিন প্রমুখ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন, কোর্স শিক্ষক ও মেলার তত্ত্বাবধায়ক প্রভাষক মোঃ রুহুল আমিন। সঞ্চালনা করেন বিভাগের তৃতীয় ব্যাচের শিক্ষার্থী নিশাত ও আরমান।

 

পরে দুপুর ২ টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালাম, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ মাহবুবুর রহমান, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মোঃ আলমগীর হোসেন ভূঁইয়া প্রমুখ মেলা পরিদর্শন করেন।

 

ইবির সাবেক শিক্ষার্থী ও এএনএইচ এন্টারপ্রাইজ লিমিটেড’র কর্ণধার মো. মোকাদ্দেস হানিফ টলিন বলেন, পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে সরকার শতশত কোটি টাকা ভর্তুকি দিচ্ছে, যাতে আমাদের তরুণ সমাজ উচ্চ-শিক্ষিত হয়। এই উচ্চশিক্ষা নিয়ে আমরা কি অন্য দেশে গিয়ে শুধু টাকা ইনকাম করব! আমরা কি নিজের দেশের জন্য কিছু করবো না? আমাদের উচিত বিদেশমুখী না হয়ে দেশের জন্য কিছু করা। একই সঙ্গে সরকারি চাকরির পাশাপাশি কর্পোরেট সেক্টরেরও আগ্রহী হওয়া। বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের উচিত ক্যাম্পাসে বারবার ফিরে আসা এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য কিছু করা।

 

ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের ডীন প্রফেসর সাইফুল ইসলাম বলেন, বাংলাদেশ তথা বিশ্বের মার্কেটিং ইতিহাসে সবচেয়ে দূর্লভ একটি ঘটনা বাংলাদেশের মানুষকে বোতলজাত পানি পানে আগ্রহী করে তোলা। বছরের পর বছর ধরে মার্কেটিং এর কাজ করার ফলেই এটি সম্ভব হয়েছে। তারমানে মার্কেটিং হল একটি দর্শন। সেলস আর মার্কেটিং এর পার্থক্য এখানেই। এসময় তিনি মার্কেটিং বিভাগের শিক্ষার্থীদের বিদেশমুখী না হয়ে কিংবা সরকারি চাকরির পেছনে না ছুটে মার্কেটিয়ার হওয়ার পরামর্শ দেন।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপডেট সময় ০৫:২২:১৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
৩৯ বার পড়া হয়েছে

ইবিতে প্রথমবারের মতো ‘সেলস ফেয়ার’ শুরু

আপডেট সময় ০৫:২২:১৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

 

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) মার্কেটিং বিভাগের ৫ম ব্যাচের ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীদের আয়োজনে প্রথমবারের মতো শুরু হয়েছে ‘সেলস ফেয়ার-২০২৪’।

 

রবিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) বিশ্ববিদ্যালয়ের বটতলা প্রাঙ্গণে এ মেলার আয়োজন করা হয়েছে। এদিন বেলা সাড়ে ১০ টার দিকে প্রধান অতিথি হিসেবে দিনব্যাপী এ মেলার উদ্বোধন করেন ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের ডীন প্রফেসর সাইফুল ইসলাম।

 

মার্কেটিং বিভাগের সভাপতি সহকারী অধ্যাপক মো. সাদিকুল আজাদের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক শাহ আলম কবির প্রামানিক, সহকারী অধ্যাপক মো. মাজেদুল হক, ইবির সাবেক শিক্ষার্থী ও এএনএইচ এন্টারপ্রাইজ লিমিটেড’র কর্ণধার মো. মোকাদ্দেস হানিফ টলিন প্রমুখ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন, কোর্স শিক্ষক ও মেলার তত্ত্বাবধায়ক প্রভাষক মোঃ রুহুল আমিন। সঞ্চালনা করেন বিভাগের তৃতীয় ব্যাচের শিক্ষার্থী নিশাত ও আরমান।

 

পরে দুপুর ২ টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালাম, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ মাহবুবুর রহমান, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মোঃ আলমগীর হোসেন ভূঁইয়া প্রমুখ মেলা পরিদর্শন করেন।

 

ইবির সাবেক শিক্ষার্থী ও এএনএইচ এন্টারপ্রাইজ লিমিটেড’র কর্ণধার মো. মোকাদ্দেস হানিফ টলিন বলেন, পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে সরকার শতশত কোটি টাকা ভর্তুকি দিচ্ছে, যাতে আমাদের তরুণ সমাজ উচ্চ-শিক্ষিত হয়। এই উচ্চশিক্ষা নিয়ে আমরা কি অন্য দেশে গিয়ে শুধু টাকা ইনকাম করব! আমরা কি নিজের দেশের জন্য কিছু করবো না? আমাদের উচিত বিদেশমুখী না হয়ে দেশের জন্য কিছু করা। একই সঙ্গে সরকারি চাকরির পাশাপাশি কর্পোরেট সেক্টরেরও আগ্রহী হওয়া। বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের উচিত ক্যাম্পাসে বারবার ফিরে আসা এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য কিছু করা।

 

ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের ডীন প্রফেসর সাইফুল ইসলাম বলেন, বাংলাদেশ তথা বিশ্বের মার্কেটিং ইতিহাসে সবচেয়ে দূর্লভ একটি ঘটনা বাংলাদেশের মানুষকে বোতলজাত পানি পানে আগ্রহী করে তোলা। বছরের পর বছর ধরে মার্কেটিং এর কাজ করার ফলেই এটি সম্ভব হয়েছে। তারমানে মার্কেটিং হল একটি দর্শন। সেলস আর মার্কেটিং এর পার্থক্য এখানেই। এসময় তিনি মার্কেটিং বিভাগের শিক্ষার্থীদের বিদেশমুখী না হয়ে কিংবা সরকারি চাকরির পেছনে না ছুটে মার্কেটিয়ার হওয়ার পরামর্শ দেন।