ঢাকা ০১:২৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

একটু পরপর দেখা মিলছে ভোটারদের ভোট প্রয়োগের চিত্র

মোঃ মাসুদ রানা, গাইবান্ধা

 

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোটকেন্দ্রে লম্বা লাইন নেই, তবে কিছুক্ষণ পরপরই দেখা মিলছে ভোটারদের। কেন্দ্রে এলেই ভোট দিতে পারছেন তারা।

 

তবে বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ভোটার উপস্থিতি বাড়বে বলে জানিয়েছে নির্বাচন সংশ্লিষ্টরা।

 

রোববার (৭ জানুয়ারি) দুপুর ২.০০টা পর্যন্ত গাইবান্ধার ৫টি সংসদীয় আসনের বিভিন্ন ভোটকেন্দ্র ঘুরে এই চিত্র দেখা গেছে।

 

গাইবান্ধা সদর উপজেলার বাদিয়াখালী রিফাইতপুর এবতেদায়ী মাদরাসা ভোটকেন্দ্রে দেখা মিললো এক নতুন ভোটারের। প্রথম বুলেটিনের প্রশ্ন আপনি নতুন ভোটার হিসেবে আপনার অনুভূতি টা কেমন? তিনি বলেন, ভোটার হওয়ার পর এটা প্রথম নির্বাচন। তাই ভোটটা দিতে এসেছি। এসে বেশিক্ষণ অপেক্ষা করতে হয়নি। বুথ খালি ছিল, সঙ্গে সঙ্গেই ভোট দিয়ে দিয়েছি। পরিবেশ নিয়েও আমি সন্তুষ্ট।

 

এই কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার মো. শাহ রেজা বিপ্লব প্রথম বুলেটিনকে বলেন, সকাল থেকে আমাদের এখানে ভোটার উপস্থিতি কম। দুপুর ২.০০টা পর্যন্ত ৩ হাজার ৪৬ ভোটারের মধ্যে ৮৮১ জন ভোটার ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন। আশা করা যাচ্ছে দুপুর ৩.০০ পর ভোটার বাড়বে।

 

বাদিয়াখালী ২নং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রের দায়িত্বরত প্রিসাইডিং অফিসার প্রথম বুলেটিনকে বলেন, এ কেন্দ্রে ভোটার উপস্থিতি বেশ ভালো। দুপুর ২.০০টা পর্যন্ত ১১৩৬ ভোট কাস্টিং হয়েছে।

 

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, জেলার পাঁচটি সংসদীয় আসনের ৬৪৬ ভোটকেন্দ্রের ৪ হাজার ৪২৩টি কক্ষে বা বুথে চলছে ভোটগ্রহণ। সকাল ৮ টায় শুরু হওয়া এ ভোটগ্রহণ বিরতিহীনভাবে চলবে বিকেল ৪ টা পর্যন্ত।

 

নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষতার সঙ্গে অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে গাইবান্ধা জেলার রিটার্নিং অফিসার ও জেলা প্রশাসক, গাইবান্ধা, পুলিশ বিভাগ ও নির্বাচন অফিসসহ অন্যান্য আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে। ৩৫ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, ১৫ জন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, ২৩ প্লাটুন বিজিবি, ২৫ প্লাটুন সেনাবাহিনী ও বিপুল সংখ্যক পুলিশ সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপডেট সময় ০৯:৫৯:০৯ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৭ জানুয়ারী ২০২৪
৩৫ বার পড়া হয়েছে

একটু পরপর দেখা মিলছে ভোটারদের ভোট প্রয়োগের চিত্র

আপডেট সময় ০৯:৫৯:০৯ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৭ জানুয়ারী ২০২৪

 

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোটকেন্দ্রে লম্বা লাইন নেই, তবে কিছুক্ষণ পরপরই দেখা মিলছে ভোটারদের। কেন্দ্রে এলেই ভোট দিতে পারছেন তারা।

 

তবে বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ভোটার উপস্থিতি বাড়বে বলে জানিয়েছে নির্বাচন সংশ্লিষ্টরা।

 

রোববার (৭ জানুয়ারি) দুপুর ২.০০টা পর্যন্ত গাইবান্ধার ৫টি সংসদীয় আসনের বিভিন্ন ভোটকেন্দ্র ঘুরে এই চিত্র দেখা গেছে।

 

গাইবান্ধা সদর উপজেলার বাদিয়াখালী রিফাইতপুর এবতেদায়ী মাদরাসা ভোটকেন্দ্রে দেখা মিললো এক নতুন ভোটারের। প্রথম বুলেটিনের প্রশ্ন আপনি নতুন ভোটার হিসেবে আপনার অনুভূতি টা কেমন? তিনি বলেন, ভোটার হওয়ার পর এটা প্রথম নির্বাচন। তাই ভোটটা দিতে এসেছি। এসে বেশিক্ষণ অপেক্ষা করতে হয়নি। বুথ খালি ছিল, সঙ্গে সঙ্গেই ভোট দিয়ে দিয়েছি। পরিবেশ নিয়েও আমি সন্তুষ্ট।

 

এই কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার মো. শাহ রেজা বিপ্লব প্রথম বুলেটিনকে বলেন, সকাল থেকে আমাদের এখানে ভোটার উপস্থিতি কম। দুপুর ২.০০টা পর্যন্ত ৩ হাজার ৪৬ ভোটারের মধ্যে ৮৮১ জন ভোটার ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন। আশা করা যাচ্ছে দুপুর ৩.০০ পর ভোটার বাড়বে।

 

বাদিয়াখালী ২নং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রের দায়িত্বরত প্রিসাইডিং অফিসার প্রথম বুলেটিনকে বলেন, এ কেন্দ্রে ভোটার উপস্থিতি বেশ ভালো। দুপুর ২.০০টা পর্যন্ত ১১৩৬ ভোট কাস্টিং হয়েছে।

 

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, জেলার পাঁচটি সংসদীয় আসনের ৬৪৬ ভোটকেন্দ্রের ৪ হাজার ৪২৩টি কক্ষে বা বুথে চলছে ভোটগ্রহণ। সকাল ৮ টায় শুরু হওয়া এ ভোটগ্রহণ বিরতিহীনভাবে চলবে বিকেল ৪ টা পর্যন্ত।

 

নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষতার সঙ্গে অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে গাইবান্ধা জেলার রিটার্নিং অফিসার ও জেলা প্রশাসক, গাইবান্ধা, পুলিশ বিভাগ ও নির্বাচন অফিসসহ অন্যান্য আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে। ৩৫ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, ১৫ জন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, ২৩ প্লাটুন বিজিবি, ২৫ প্লাটুন সেনাবাহিনী ও বিপুল সংখ্যক পুলিশ সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।