ঢাকা ০৮:০৭ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কোটা বাতিলের দাবিতে দ্বিতীয় দিনের মতো সড়ক অবরোধে খুবি শিক্ষার্থীরা

মামুনুর রশীদ রাজু, ব্যুরো চিফ

কোটা বাতিলের দাবিতে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের হাদি চত্বরে অবস্থান কর্মসূচি শেষে বিক্ষোভ মিছিল করেছে শিক্ষার্থীরা। দ্বিতীয় দিনের মতো শুক্রবার (৫ জুলাই) বিকাল ৪ টায় অবস্থান কর্মসূচি শেষে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে খুলনা-জিরোপয়েন্ট মোড় অবরোধ করে রাখে তারা। এ সময় দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেন শিক্ষার্থীরা।

সমাবেশে শিক্ষার্থীরা বলেন, তারা মেধার ভিত্তিতে সরকারি চাকরি চান, কোনো কোটার ভিত্তিতে নয়। তাই কোটা প্রথার বিলুপ্তি না হওয়া পর্যন্ত তারা তাদের আন্দোলন চালিয়ে যাবেন।

বিক্ষোভ মিছিলে শিক্ষার্থীরা ‘আমার সোনার বাংলায় বৈষম্যের ঠাঁই নাই’, ‘সারাবাংলায় খবর দে, কোটাপ্রথার কবর দে’, ‘আর না আর না’ সহ বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকেন।

যে চার দফা দাবিতে আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন শিক্ষার্থীরা:

★ ২০১৮ সালে ঘোষিত সরকারি চাকরিতে কোটা পদ্ধতি বাতিল ও মেধাভিত্তিক নিয়োগের পরিপত্র বহাল রাখা।
★ পরিপত্র বহাল সাপেক্ষে কমিশন গঠনপূর্বক দ্রুত সময়ের মধ্যে সরকারি চাকরির সমস্ত গ্রেডে অযৌক্তিক ও বৈষম্যমূলক কোটা বাদ দেওয়া (সুবিধাবঞ্চিত ও প্রতিবন্ধী ব্যতীত)।
★ সরকারি চাকরির নিয়োগ পরীক্ষায় কোটা সুবিধা একাধিকবার ব্যবহার করা যাবে না এবং কোটায় যোগ্য প্রার্থী না পাওয়া গেলে শূন্যপদগুলোতে মেধা অনুযায়ী নিয়োগ দেওয়া।
★দুর্নীতিমুক্ত, নিরপেক্ষ ও মেধাভিত্তিক আমলাতন্ত্র নিশ্চিত করতে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করা।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপডেট সময় ০৯:৫০:৪৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৫ জুলাই ২০২৪
৩৯ বার পড়া হয়েছে

কোটা বাতিলের দাবিতে দ্বিতীয় দিনের মতো সড়ক অবরোধে খুবি শিক্ষার্থীরা

আপডেট সময় ০৯:৫০:৪৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৫ জুলাই ২০২৪

কোটা বাতিলের দাবিতে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের হাদি চত্বরে অবস্থান কর্মসূচি শেষে বিক্ষোভ মিছিল করেছে শিক্ষার্থীরা। দ্বিতীয় দিনের মতো শুক্রবার (৫ জুলাই) বিকাল ৪ টায় অবস্থান কর্মসূচি শেষে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে খুলনা-জিরোপয়েন্ট মোড় অবরোধ করে রাখে তারা। এ সময় দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেন শিক্ষার্থীরা।

সমাবেশে শিক্ষার্থীরা বলেন, তারা মেধার ভিত্তিতে সরকারি চাকরি চান, কোনো কোটার ভিত্তিতে নয়। তাই কোটা প্রথার বিলুপ্তি না হওয়া পর্যন্ত তারা তাদের আন্দোলন চালিয়ে যাবেন।

বিক্ষোভ মিছিলে শিক্ষার্থীরা ‘আমার সোনার বাংলায় বৈষম্যের ঠাঁই নাই’, ‘সারাবাংলায় খবর দে, কোটাপ্রথার কবর দে’, ‘আর না আর না’ সহ বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকেন।

যে চার দফা দাবিতে আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন শিক্ষার্থীরা:

★ ২০১৮ সালে ঘোষিত সরকারি চাকরিতে কোটা পদ্ধতি বাতিল ও মেধাভিত্তিক নিয়োগের পরিপত্র বহাল রাখা।
★ পরিপত্র বহাল সাপেক্ষে কমিশন গঠনপূর্বক দ্রুত সময়ের মধ্যে সরকারি চাকরির সমস্ত গ্রেডে অযৌক্তিক ও বৈষম্যমূলক কোটা বাদ দেওয়া (সুবিধাবঞ্চিত ও প্রতিবন্ধী ব্যতীত)।
★ সরকারি চাকরির নিয়োগ পরীক্ষায় কোটা সুবিধা একাধিকবার ব্যবহার করা যাবে না এবং কোটায় যোগ্য প্রার্থী না পাওয়া গেলে শূন্যপদগুলোতে মেধা অনুযায়ী নিয়োগ দেওয়া।
★দুর্নীতিমুক্ত, নিরপেক্ষ ও মেধাভিত্তিক আমলাতন্ত্র নিশ্চিত করতে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করা।