ঢাকা ০৪:৫১ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

গোপন নথি মামলায় অভিযুক্ত হলেন ইমরান খান

নিজস্ব সংবাদ

পাকিস্তানের একটি আদালত বুধবার (১৩ ডিসেম্বর) দেশটির সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে রাষ্ট্রীয় গোপনীয়তা ফাঁসের মামলায় দোষী সাব্যস্ত করেছে।

এক্সপ্রেস নিউজ টিভি জানিয়েছে, অভিযুক্ত হওয়ার কারণে কারাবন্দী এই নেতার আগামী বছরের সাধারণ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার সম্ভাবনাকে অনেকটাই হুমকির মুখে ফেলেছে।

এদিকে, আল-আজিজিয়া দুর্নীতি মামলায় পাকিস্তানের আরেক সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের সাজা বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে।

গতকাল মঙ্গলবার ইসলামাবাদ হাইকোর্ট এই মামলায় পাকিস্তান মুসলিম লিগ-নওয়াজের (পিএমএল-এন) সর্বোচ্চ নেতা নওয়াজকে খালাস দেন।

মামলাটি পুনর্বিচারের জন্য আবেদন জানিয়েছিল দেশটির জাতীয় জবাবদিহি ব্যুরো (এনএবি)। তবে এনএবির এই আবেদন ইসলামাবাদ হাইকোর্ট নাকচ করেন।

আল-আজিজিয়া দুর্নীতি মামলায় খালাস পাওয়ায় নওয়াজ দেশটিতে আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠেয় সাধারণ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার ও সরকারি পদে অধিষ্ঠিত হওয়ার যোগ্য হতে পারেন বলে মনে করছেন আইন বিশেষজ্ঞরা।

গতকাল ইসলামাবাদ হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন দুই সদস্যের বেঞ্চ রায়ের পর্যবেক্ষণে বলেন, এই মামলায় বিচারিক আদালত ফটোকপির ওপর ভিত্তি করে নওয়াজকে দোষী সাব্যস্ত করেছেন।

ইসলামাবাদ হাইকোর্টের এই রায়ের পর পিএমএল-এনের নেতা-কর্মী-সমর্থকেরা উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন। তারা মিষ্টি বিতরণও করেন।

আল-আজিজিয়া দুর্নীতি মামলায় ২০১৮ সালে বিচারিক আদালত রায় দেন। রায়ে নওয়াজকে দোষী সাব্যস্ত করে সাত বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছিল। এই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করে ইসলামাবাদ হাইকোর্ট থেকে খালাস পেলেন নওয়াজ।

ইসলামাবাদ হাইকোর্টের একই বেঞ্চ গত ২৯ নভেম্বর অ্যাভেনফিল্ড দুর্নীতি মামলায় নওয়াজকে খালাস দেন। এই মামলায় ২০১৮ সালে নওয়াজকে ১০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছিলেন বিচারিক আদালত।

কারাগারে থাকা অবস্থায় ২০১৯ সালে আদালতের অনুমতি নিয়ে চিকিৎসার জন্য যুক্তরাজ্যে গিয়েছিলেন নওয়াজ। এরপর তিনি চার বছর যুক্তরাজ্যেই ছিলেন। গত অক্টোবরে তিনি দেশে ফেরেন।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপডেট সময় ১০:৫১:৩১ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০২৩
১৮৯ বার পড়া হয়েছে

গোপন নথি মামলায় অভিযুক্ত হলেন ইমরান খান

আপডেট সময় ১০:৫১:৩১ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০২৩

পাকিস্তানের একটি আদালত বুধবার (১৩ ডিসেম্বর) দেশটির সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে রাষ্ট্রীয় গোপনীয়তা ফাঁসের মামলায় দোষী সাব্যস্ত করেছে।

এক্সপ্রেস নিউজ টিভি জানিয়েছে, অভিযুক্ত হওয়ার কারণে কারাবন্দী এই নেতার আগামী বছরের সাধারণ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার সম্ভাবনাকে অনেকটাই হুমকির মুখে ফেলেছে।

এদিকে, আল-আজিজিয়া দুর্নীতি মামলায় পাকিস্তানের আরেক সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের সাজা বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে।

গতকাল মঙ্গলবার ইসলামাবাদ হাইকোর্ট এই মামলায় পাকিস্তান মুসলিম লিগ-নওয়াজের (পিএমএল-এন) সর্বোচ্চ নেতা নওয়াজকে খালাস দেন।

মামলাটি পুনর্বিচারের জন্য আবেদন জানিয়েছিল দেশটির জাতীয় জবাবদিহি ব্যুরো (এনএবি)। তবে এনএবির এই আবেদন ইসলামাবাদ হাইকোর্ট নাকচ করেন।

আল-আজিজিয়া দুর্নীতি মামলায় খালাস পাওয়ায় নওয়াজ দেশটিতে আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠেয় সাধারণ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার ও সরকারি পদে অধিষ্ঠিত হওয়ার যোগ্য হতে পারেন বলে মনে করছেন আইন বিশেষজ্ঞরা।

গতকাল ইসলামাবাদ হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন দুই সদস্যের বেঞ্চ রায়ের পর্যবেক্ষণে বলেন, এই মামলায় বিচারিক আদালত ফটোকপির ওপর ভিত্তি করে নওয়াজকে দোষী সাব্যস্ত করেছেন।

ইসলামাবাদ হাইকোর্টের এই রায়ের পর পিএমএল-এনের নেতা-কর্মী-সমর্থকেরা উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন। তারা মিষ্টি বিতরণও করেন।

আল-আজিজিয়া দুর্নীতি মামলায় ২০১৮ সালে বিচারিক আদালত রায় দেন। রায়ে নওয়াজকে দোষী সাব্যস্ত করে সাত বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছিল। এই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করে ইসলামাবাদ হাইকোর্ট থেকে খালাস পেলেন নওয়াজ।

ইসলামাবাদ হাইকোর্টের একই বেঞ্চ গত ২৯ নভেম্বর অ্যাভেনফিল্ড দুর্নীতি মামলায় নওয়াজকে খালাস দেন। এই মামলায় ২০১৮ সালে নওয়াজকে ১০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছিলেন বিচারিক আদালত।

কারাগারে থাকা অবস্থায় ২০১৯ সালে আদালতের অনুমতি নিয়ে চিকিৎসার জন্য যুক্তরাজ্যে গিয়েছিলেন নওয়াজ। এরপর তিনি চার বছর যুক্তরাজ্যেই ছিলেন। গত অক্টোবরে তিনি দেশে ফেরেন।