ঢাকা ০৫:২৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চার কলেজের পাস করেননি কেউ

নিজস্ব সংবাদ

২০২৩ সালের সব শিক্ষা বোর্ডের এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করা হয়েছে রোববার (২৬ নভেম্বর)।  এবার ঠাকুরগাঁও জেলার চারটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের একজনও পাস করেননি।চারটিতে পাস করেছেন মাত্র একজন করে পরীক্ষার্থী।

ঠাকুরগাঁও জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. শাহীন আকতার ওয়েব ভিত্তিক একটি ফলাফলের তালিকা দেন। সেই তালিকায় দিনাজপুর বোর্ডের অধীনে অনুষ্ঠিত পরীক্ষার ফলাফলে এ চিত্র দেখা যায়।

যেসব প্রতিষ্ঠানের কেউ পাস করেননি, সেগুলো হলো-মোড়লহাট জনতা স্কুল অ্যান্ড কলেজ, হাজীপুর কলেজ, কদমরসুল হাট স্কুল অ্যান্ড কলেজ ও পীরগঞ্জ আদর্শ কলেজ।  

অন্যদিকে রত্নাই বগুলাবাড়ী হাই স্কুল অ্যান্ড কলেজ, বাশগাড়া আইডিয়াল কলেজ, ঠাকুরগাঁও নিউ মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজ ও কালেক্টরেট পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজের একজন করে পাস করেছেন।  

এবার ঠাকুরগাঁও জেলায় ৩৬টি কেন্দ্রে মোট ১৪ হাজার ৭৯৯ জন পরীক্ষায় অংশ নেন।  

ফল বিপর্যয়ের ব্যাপারে সদর উপজেলার কদম রসুল হাট স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ আনোয়ার হোসেন বাবুল বলেন, আমাদের কলেজ থেকে শুধু মানবিক বিভাগ থেকে মোট চারজন শিক্ষার্থী পরীক্ষা দিয়েছিল। কিন্তু তাদের মধ্যে কেউ পাস করতে পারেনি। এদিকে গ্রামাঞ্চলের ছেলেমেয়েরা তেমন কলেজে আসে না ও ক্লাসও করতে চায় না। শিক্ষকরা প্রতিদিন কলেজে এলেও তেমন ছাত্র-ছাত্রী আসে না। আবার যারা আসে, তাদের মধ্যে শুধু চারজন পরীক্ষা দিয়েছে। বাকি ৩০ জনের মতো শিক্ষার্থী পরীক্ষাই দেয়নি। লেখাপড়া না করে কি পরীক্ষায় পাস করা যাবে? যারা পরীক্ষা দিয়েছে, তারা হয় তো ভালোভাবে পড়েনি। এ কারণে পাস করতে পারেনি।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপডেট সময় ১০:৩৭:৩৮ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ নভেম্বর ২০২৩
৩৪৬ বার পড়া হয়েছে

চার কলেজের পাস করেননি কেউ

আপডেট সময় ১০:৩৭:৩৮ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ নভেম্বর ২০২৩

২০২৩ সালের সব শিক্ষা বোর্ডের এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করা হয়েছে রোববার (২৬ নভেম্বর)।  এবার ঠাকুরগাঁও জেলার চারটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের একজনও পাস করেননি।চারটিতে পাস করেছেন মাত্র একজন করে পরীক্ষার্থী।

ঠাকুরগাঁও জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. শাহীন আকতার ওয়েব ভিত্তিক একটি ফলাফলের তালিকা দেন। সেই তালিকায় দিনাজপুর বোর্ডের অধীনে অনুষ্ঠিত পরীক্ষার ফলাফলে এ চিত্র দেখা যায়।

যেসব প্রতিষ্ঠানের কেউ পাস করেননি, সেগুলো হলো-মোড়লহাট জনতা স্কুল অ্যান্ড কলেজ, হাজীপুর কলেজ, কদমরসুল হাট স্কুল অ্যান্ড কলেজ ও পীরগঞ্জ আদর্শ কলেজ।  

অন্যদিকে রত্নাই বগুলাবাড়ী হাই স্কুল অ্যান্ড কলেজ, বাশগাড়া আইডিয়াল কলেজ, ঠাকুরগাঁও নিউ মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজ ও কালেক্টরেট পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজের একজন করে পাস করেছেন।  

এবার ঠাকুরগাঁও জেলায় ৩৬টি কেন্দ্রে মোট ১৪ হাজার ৭৯৯ জন পরীক্ষায় অংশ নেন।  

ফল বিপর্যয়ের ব্যাপারে সদর উপজেলার কদম রসুল হাট স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ আনোয়ার হোসেন বাবুল বলেন, আমাদের কলেজ থেকে শুধু মানবিক বিভাগ থেকে মোট চারজন শিক্ষার্থী পরীক্ষা দিয়েছিল। কিন্তু তাদের মধ্যে কেউ পাস করতে পারেনি। এদিকে গ্রামাঞ্চলের ছেলেমেয়েরা তেমন কলেজে আসে না ও ক্লাসও করতে চায় না। শিক্ষকরা প্রতিদিন কলেজে এলেও তেমন ছাত্র-ছাত্রী আসে না। আবার যারা আসে, তাদের মধ্যে শুধু চারজন পরীক্ষা দিয়েছে। বাকি ৩০ জনের মতো শিক্ষার্থী পরীক্ষাই দেয়নি। লেখাপড়া না করে কি পরীক্ষায় পাস করা যাবে? যারা পরীক্ষা দিয়েছে, তারা হয় তো ভালোভাবে পড়েনি। এ কারণে পাস করতে পারেনি।