ঢাকা ১২:৪৪ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

জেনে নিন কে কে আছেন ইবি ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে

ওয়াসিফ আল আবরার, ইবি

 

দীর্ঘ ৮ বছর পর পূর্ণাঙ্গ কমিটির দেখা পেলো ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) শাখা ছাত্রলীগ। কমিটিতে ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষের আইন বিভাগের শিক্ষার্থী ফয়সাল সিদ্দিকী আরাফাতকে সভাপতি এবং ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষের অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষার্থী নাসিম আহমেদ জয়কে সাধারণ সম্পাদক মনোনীত করা হয়েছে।

শুক্রবার (১০ মে) রাত সাড়ে ১০ টার দিকে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি হোসেন সাদ্দাম ও শেখ ওয়ালি আসিফ ইনান স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে ১৯৯ সদস্য বিশিষ্ট ইবি শাখা ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটির অনুমোদন দেওয়া হয়।

কমিটিতে সহ সভাপতি হিসেবে রয়েছেন ৭১ জন। পর্যায়ক্রমে তারা হলেন তন্ময় সাহা টনি, মোঃ আল মামুন, ফাহিমুর রহমান সেতু, মোঃ মোদাচ্ছির খালেক ধ্রুব, মুন্সী কামরুল হাসান অনিক, আরিফুল ইসলাম খান, সুজন কুমার দে, রাকিবুল ইসলাম, নাইমুল ইসলাম জয়, বনি আমিন, মৃদুল হাসান রাব্বী, মোঃ মামুনুর রশিদ, এহসানুল হক ইশান, তৌফিকুর রহমান তুষার, আবু হুরায়রা, ফাহিম ফয়সাল, রিজওয়ান আল হাসিব, আব্দুর রহিম সরদার, মফিজুর রহমান, মোঃ আরিফ হাসান, রিজওয়ান উল ইসলাম, শাহেদুল ইসলাম, মোঃ মুরাদ হোসেন, মনিরুল ইসলাম জয়, সাইফুল ইসলাম রিয়ন, সঞ্জয় সরকার, রতন রায়, মনজুরুল ইসলাম নাহিদ, পার্থ বিশ্বাস, রাওফুর রহমান তন্ময়, শিমুল খান, সুমন হোসেন, সালমান ওয়াহিদ, হুসাইন মোহাম্মদ বুলবুল, মোঃ মামুন হোসেন, মো: রুহুল আমিন, অপু রায়, ইসরাফিল ইসলাম সিফাত, নাহিদুজ্জামান, ফয়সাল বাহাদুর জয়, আব্দুল মান্নান মেজবাহ, জয়ন্ত দে, ইনশাদ বিনতে ফিরোজ, রাজু আহমেদ, মোঃ সিরাজুল ইসলাম সিরাজ, আশিক চন্দ্র দাস, সিয়াম আহমেদ, কামরুজ্জামান শরীফ, রাকিব হোসেন রেদোয়ান, আব্দুল্লাহ, আকিব হাসান রোমিও, সালমান রহমান, মাসুদ রানা, সোহানুর রহমান সিদ্দিকী, আব্দুল্লাহ আল নোমান, আমিনুল ইসলাম, মাজহারুল আবেদিন রনি, ইশতিয়াক আহমেদ রিয়াদ, ইকরামুজ্জামান রকি, আব্দুর রহিম, জায়েদ বিন অপু, রনি আহমেদ, সাদমান সাকিব রিদম, মোস্তা হাবিবুল ইসলাম, মোঃ সুমন পোদ্দার, নিশানুজ্জামান নিশান, মুহাম্মেদ ইসলাম, সুজন আলী, আরেফিন আন্দালিব প্রান্ত, জাহিদুল ইসলাম জাহিদ ও শহিদুর রহমান তামিম।

যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে ১১ নেতা হচ্ছেন মোঃ মুজাহিদুল ইসলাম, সরোয়ার জাহান শিশির, মাসুদ রানা লিংকন, হুসাইন মজুমদার, মেহেদী হাসান হাফিজ, শাহিন আলম, ফজলে রাব্বি হাসান, তরিকুল ইসলাম তরুণ, এস এম আনান, সামিউল ইসলাম ও চৌধুরী ফজলে রাব্বী তাজিম এবং পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে সাংগঠনিক সম্পাদক পদে পদায়নকৃত ১১ নেতারা হলেন মোঃ জাকির হোসেন, মাইনুল ইসলাম সিদ্দিকী, সোহাগ শেখ, মোঃ হামিদুর রহমান, মোঃ মাহমুদুল হাসান বাঁধন, মুর্তুবা রাফিদ হাসান, মিন্টু আলী, লিয়াফাত হোসেন রাকিব, সৌমিক জোয়াদ্দার, আব্দুল্লাহ ইবনে বাদল এবং মেজবাহুল ইসলাম।

পূর্ণাঙ্গ এই কমিটিতে প্রচার সম্পাদক নাবিল আহমেদ ইমন, উপ প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম সিয়াম ও রাসেল আলী, দপ্তর সম্পাদক কামাল হোসেন, উপ দপ্তর সম্পাদক আশফাকুর রহমান আসিফ এবং হাসিন ইন্তেসাফ অর্প, গ্রন্থনা ও প্রকাশনা সম্পাদক শেখ মোঃ আকিব আল হাসান, উপ গ্রন্থনা ও প্রকাশনা সম্পাদক আসিফ উৎস ও গুলহার মাসুদ রানা, শিক্ষা ও পাঠচক্র সম্পাদক মোঃ নাসিম উদ্দিন মাসুম, উপ শিক্ষা ও পাঠচক্র সম্পাদক রাকিবুল ইসলাম অভি ও সাইফ জামান জয়, সাংস্কৃতিক সম্পাদক লালচাঁন তালুকদার, উপ সাংস্কৃতিক সম্পাদক হিসেবে অনিক কুমার এবং মো: রাকিবুল হাসান অভি, সমাজসেবা সম্পাদক আতাউর রহমান রাজু ও উপ সমাজসেবা সম্পাদক রিজভী আহমেদ রুপম এবং আসিফ আহাম্মেদ, ক্রীড়া বিভাগের নেতৃত্বে ক্রীড়া সম্পাদক হিসেবে বিজন কৃষ্ণ রয়, উপ ক্রীড়া সম্পাদক মোঃ তৌহিদুল ইসলাম, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক হিসেবে মুশফিকুর রহমান, উপ আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক হিসেবে রিফাজুর রহমান রয়েছেন।

১৯৯ সদস্যের কমিটিতে পাঠাগার সম্পাদক হিসেবে আছেন এস এম তাসিম মাহমুদ ও উপ পাঠাগার সম্পাদক ওয়ায়েসুর রহমান প্রাঞ্জল, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক মমিনুল ইসলাম জনি, উপ তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক ইমরান আদনান, অর্থ বিষয়ক সম্পাদক মোঃ আশিক হোসেন ও উপ অর্থ বিষয়ক সম্পাদক আল আমিন হোসেন, আইন সম্পাদক হিসেবে শাকিল আহমেদ, উপ আইন সম্পাদক কামরুজ্জামান তপু, পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক হিসেবে অপূর্ব কর্মকার ও উপ পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক আবুনূর হাসান নাহিব, স্কুল ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক মোঃ সাব্বির হোসেন আকিফ ও উপ স্কুল ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক সাজ্জাদ সাকিব, বিজ্ঞান বিষয়ক সম্পাদক শেখ নাহিয়ান মাহমুদ রিকি ও উপবিজ্ঞান বিষয়ক সম্পাদক মাহমুদুল খান সানী, তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক আশিকুর রহমান ডিপলু, উপ তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক আলী রিয়াজ, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মেজবাহ উদ্দিন খান ও উপ ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক আশিক শর্মা, গণশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক মোঃ আশিকুজ্জামান আকাশ ও উপ গণশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক হিসেবে অনুরাগ চাকমা দায়িত্ব পেয়েছেন।

এছাড়াও, ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সম্পাদক শাহিন পাশা, উপ ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিষয়ক সম্পাদক আদনান রাব্বী, স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা সেবা বিষয়ক সম্পাদক কে এম সাদমান সরকার ইমন, উপ স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা সেবা বিষয়ক সম্পাদক রিফাত পারভেজ, গণযোগাযোগ ও উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক সাদিদ খান সাদি, উপ গণযোগাযোগ ও উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক এম এঞ্জেল, সাহিত্য বিষয়ক সম্পাদক হিসেবে আব্দুল আলীম ও উপ সাহিত্য বিষয়ক সম্পাদক কাজী রাকিন, নাট্য ও বিতর্ক বিষয়ক সম্পাদক আল আমিন সুইট ও উপ নাট্য ও বিতর্ক বিষয়ক সম্পাদক তানভীর আল জুবায়ের তামিম, আপ্যায়ন সম্পাদক আশিকুর রহমান ও উপ আপ্যায়ন সম্পাদক হিসেবে মাজহারুল ইসলাম নাঈম, মুক্তিযুদ্ধ গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক অংকু জোয়াদ্দার সৌমিক ও উপ মুক্তিযুদ্ধ গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক সাদমান ইরাম, মানব সম্পদ উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক মোঃ আজিজ মল্লিক, উপ মানব সম্পদ উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক ইশতিয়াক আরাফাত, ছাত্রবৃত্তি সম্পাদক হিসেবে স্মরণ খন্দকার ও উপ ছাত্রবৃত্তি সম্পাদক মোঃ হৃদয় ইসলাম, কৃষিশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক সায়মুম খান ও উপ কৃষিশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক হিসেবে শাহরিয়ার রাগিব এসেছেন কমিটিতে।

পাশাপাশি, কর্মসূচি ও পরিকল্পনা সম্পাদক মোঃ সজিব আহমেদ ও উপ কর্মসূচি ও পরিকল্পনা সম্পাদক মোঃ আকিবুর রহমান, প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক দিদারুল ও উপ প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক মোঃ সাগর আহমেদ, কর্মসংস্থান বিষয়ক সম্পাদক বাপ্পী মোল্লা ও উপ কর্মসংস্থান বিষয়ক সম্পাদক মেহেদী জামান দুর্জয়, অটিজম বিষয়ক সম্পাদক আহসানুর রহমান আসিফ ও উপ অটিজম বিষয়ক সম্পাদক হিসেবে দ্বীপ হালদার, মানবাধিকার বিষয়ক সম্পাদক এস এম সৌরভ শেখ, উপ মানবাধিকার বিষয়ক সম্পাদক তাসরিফ, মাদ্রাসা শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান জীবন ও উপ মাদ্রাসা শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, কারিগরি শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক সুদীপ্ত শাফি উৎস ও উপ কারিগরি শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক ফারহান লাবিব ধ্রুব, ছাত্রী ও নারী উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক পিংকি শেখ, উপ ছাত্রী ও নারী উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক জান্নাতুল ফেরদৌস দোলন, টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য (এসডিজি) বিষয়ক সম্পাদক সাব্বির হাসান ও উপ টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য (এসডিজি) বিষয়ক সম্পাদক মোঃ নীরব হোসেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম বিষয়ক সম্পাদক মোঃ শিহাব উদ্দিন ও উপ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম বিষয়ক সম্পাদক হিসেবে সাজ্জাদ হোসেন সৈকত পদ পেয়েছেন।

১৯৯ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ এই কমিটিতে সহ সম্পাদক ১৫ জন হচ্ছেন হুসাইন তুষার, শাহারিয়ার হিমেল, সুবর্না ইয়াসমিন মিথিলা, নাইমুর রহমান খান তুর্য, লিখন কান্তি দাস, মো: কাইয়ুম রহমান সাফি, মাহবুব হোসেন, রাফায়েল আহমেদ অংকন, তাহমিদ খান আকিব, শাখাওয়াত হোসেন নিলয়, মোঃ মাহমুদুল হাসান জিহাদী, মোঃ সোহান ইসলাম, সুজন মাহমুদ, শাহরিয়ার ইমন, মেহেদী হাসান এবং ৭ জন সদস্য হলেন সোহানুর রহমান, মোঃ পিয়াস মোস্তাকিন, হামজা মোহাম্মদ নূর, সাব্বির আহমেদ, মাহমুদুল হাসান সজীব, সাগর আহমেদ, মোঃ পাভেল মোল্লা।

কেন্দ্রীয় নেতাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নাসিম আহমেদ জয় বলেন, দীর্ঘ প্রতীক্ষার পরে ইবি শাখা ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটির অনুমোদন পেয়েছে। আগামী দিন গুলোতে ইবি শাখা ছাত্রলীগ কেন্দ্রের নির্দেশনা অনুযায়ী আরো সুন্দর ও স্পৃহা নিয়ে কাজ করবে বলে প্রত্যাশা করছি।

শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ফয়সাল সিদ্দিকী আরাফাত বলেন, সাংগঠনিক একটি পরিচয় পাওয়া প্রতিটি কর্মীর জন্য একটি গর্বের বিষয়। সকল ষড়যন্ত্র ভেঙ্গে দীর্ঘ ৮ বছর পরে যে ইবি শাখা ছাত্রলীগের কর্মীরা যে একটি সাংগঠনিক পরিচয় পেয়েছে, এতে কর্মীদের চেয়ে আমরাই বেশি খুশি। ইবি শাখা ছাত্রলীগের প্রতিটি নেতাকর্মীকে আমি ধন্যবাদ ও অভিনন্দন জানাই।

এর আগে, ২০১৬ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে সর্বশেষ ১২১ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি পায় বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ। পরবর্তীতে ২০২২ সালের ৩১ জুলাই রাতে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের তৎকালীন সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় এবং সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য স্বাক্ষরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে ইবি শাখা ছাত্রলীগের ২৪ সদস্য বিশিষ্ট আংশিক কমিটির অনুমোদন দেওয়া হয়। গতবছর ২০২৩ সালের ৩১ জুলাই ওই কমিটির মেয়াদ শেষ হয়। কমিটি গঠনের ২২ মাস পর পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করলো ইবি শাখা ছাত্রলীগ।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপডেট সময় ১১:৩২:৩৫ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১১ মে ২০২৪
৫৭ বার পড়া হয়েছে

জেনে নিন কে কে আছেন ইবি ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে

আপডেট সময় ১১:৩২:৩৫ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১১ মে ২০২৪

 

দীর্ঘ ৮ বছর পর পূর্ণাঙ্গ কমিটির দেখা পেলো ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) শাখা ছাত্রলীগ। কমিটিতে ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষের আইন বিভাগের শিক্ষার্থী ফয়সাল সিদ্দিকী আরাফাতকে সভাপতি এবং ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষের অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষার্থী নাসিম আহমেদ জয়কে সাধারণ সম্পাদক মনোনীত করা হয়েছে।

শুক্রবার (১০ মে) রাত সাড়ে ১০ টার দিকে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি হোসেন সাদ্দাম ও শেখ ওয়ালি আসিফ ইনান স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে ১৯৯ সদস্য বিশিষ্ট ইবি শাখা ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটির অনুমোদন দেওয়া হয়।

কমিটিতে সহ সভাপতি হিসেবে রয়েছেন ৭১ জন। পর্যায়ক্রমে তারা হলেন তন্ময় সাহা টনি, মোঃ আল মামুন, ফাহিমুর রহমান সেতু, মোঃ মোদাচ্ছির খালেক ধ্রুব, মুন্সী কামরুল হাসান অনিক, আরিফুল ইসলাম খান, সুজন কুমার দে, রাকিবুল ইসলাম, নাইমুল ইসলাম জয়, বনি আমিন, মৃদুল হাসান রাব্বী, মোঃ মামুনুর রশিদ, এহসানুল হক ইশান, তৌফিকুর রহমান তুষার, আবু হুরায়রা, ফাহিম ফয়সাল, রিজওয়ান আল হাসিব, আব্দুর রহিম সরদার, মফিজুর রহমান, মোঃ আরিফ হাসান, রিজওয়ান উল ইসলাম, শাহেদুল ইসলাম, মোঃ মুরাদ হোসেন, মনিরুল ইসলাম জয়, সাইফুল ইসলাম রিয়ন, সঞ্জয় সরকার, রতন রায়, মনজুরুল ইসলাম নাহিদ, পার্থ বিশ্বাস, রাওফুর রহমান তন্ময়, শিমুল খান, সুমন হোসেন, সালমান ওয়াহিদ, হুসাইন মোহাম্মদ বুলবুল, মোঃ মামুন হোসেন, মো: রুহুল আমিন, অপু রায়, ইসরাফিল ইসলাম সিফাত, নাহিদুজ্জামান, ফয়সাল বাহাদুর জয়, আব্দুল মান্নান মেজবাহ, জয়ন্ত দে, ইনশাদ বিনতে ফিরোজ, রাজু আহমেদ, মোঃ সিরাজুল ইসলাম সিরাজ, আশিক চন্দ্র দাস, সিয়াম আহমেদ, কামরুজ্জামান শরীফ, রাকিব হোসেন রেদোয়ান, আব্দুল্লাহ, আকিব হাসান রোমিও, সালমান রহমান, মাসুদ রানা, সোহানুর রহমান সিদ্দিকী, আব্দুল্লাহ আল নোমান, আমিনুল ইসলাম, মাজহারুল আবেদিন রনি, ইশতিয়াক আহমেদ রিয়াদ, ইকরামুজ্জামান রকি, আব্দুর রহিম, জায়েদ বিন অপু, রনি আহমেদ, সাদমান সাকিব রিদম, মোস্তা হাবিবুল ইসলাম, মোঃ সুমন পোদ্দার, নিশানুজ্জামান নিশান, মুহাম্মেদ ইসলাম, সুজন আলী, আরেফিন আন্দালিব প্রান্ত, জাহিদুল ইসলাম জাহিদ ও শহিদুর রহমান তামিম।

যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে ১১ নেতা হচ্ছেন মোঃ মুজাহিদুল ইসলাম, সরোয়ার জাহান শিশির, মাসুদ রানা লিংকন, হুসাইন মজুমদার, মেহেদী হাসান হাফিজ, শাহিন আলম, ফজলে রাব্বি হাসান, তরিকুল ইসলাম তরুণ, এস এম আনান, সামিউল ইসলাম ও চৌধুরী ফজলে রাব্বী তাজিম এবং পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে সাংগঠনিক সম্পাদক পদে পদায়নকৃত ১১ নেতারা হলেন মোঃ জাকির হোসেন, মাইনুল ইসলাম সিদ্দিকী, সোহাগ শেখ, মোঃ হামিদুর রহমান, মোঃ মাহমুদুল হাসান বাঁধন, মুর্তুবা রাফিদ হাসান, মিন্টু আলী, লিয়াফাত হোসেন রাকিব, সৌমিক জোয়াদ্দার, আব্দুল্লাহ ইবনে বাদল এবং মেজবাহুল ইসলাম।

পূর্ণাঙ্গ এই কমিটিতে প্রচার সম্পাদক নাবিল আহমেদ ইমন, উপ প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম সিয়াম ও রাসেল আলী, দপ্তর সম্পাদক কামাল হোসেন, উপ দপ্তর সম্পাদক আশফাকুর রহমান আসিফ এবং হাসিন ইন্তেসাফ অর্প, গ্রন্থনা ও প্রকাশনা সম্পাদক শেখ মোঃ আকিব আল হাসান, উপ গ্রন্থনা ও প্রকাশনা সম্পাদক আসিফ উৎস ও গুলহার মাসুদ রানা, শিক্ষা ও পাঠচক্র সম্পাদক মোঃ নাসিম উদ্দিন মাসুম, উপ শিক্ষা ও পাঠচক্র সম্পাদক রাকিবুল ইসলাম অভি ও সাইফ জামান জয়, সাংস্কৃতিক সম্পাদক লালচাঁন তালুকদার, উপ সাংস্কৃতিক সম্পাদক হিসেবে অনিক কুমার এবং মো: রাকিবুল হাসান অভি, সমাজসেবা সম্পাদক আতাউর রহমান রাজু ও উপ সমাজসেবা সম্পাদক রিজভী আহমেদ রুপম এবং আসিফ আহাম্মেদ, ক্রীড়া বিভাগের নেতৃত্বে ক্রীড়া সম্পাদক হিসেবে বিজন কৃষ্ণ রয়, উপ ক্রীড়া সম্পাদক মোঃ তৌহিদুল ইসলাম, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক হিসেবে মুশফিকুর রহমান, উপ আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক হিসেবে রিফাজুর রহমান রয়েছেন।

১৯৯ সদস্যের কমিটিতে পাঠাগার সম্পাদক হিসেবে আছেন এস এম তাসিম মাহমুদ ও উপ পাঠাগার সম্পাদক ওয়ায়েসুর রহমান প্রাঞ্জল, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক মমিনুল ইসলাম জনি, উপ তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক ইমরান আদনান, অর্থ বিষয়ক সম্পাদক মোঃ আশিক হোসেন ও উপ অর্থ বিষয়ক সম্পাদক আল আমিন হোসেন, আইন সম্পাদক হিসেবে শাকিল আহমেদ, উপ আইন সম্পাদক কামরুজ্জামান তপু, পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক হিসেবে অপূর্ব কর্মকার ও উপ পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক আবুনূর হাসান নাহিব, স্কুল ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক মোঃ সাব্বির হোসেন আকিফ ও উপ স্কুল ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক সাজ্জাদ সাকিব, বিজ্ঞান বিষয়ক সম্পাদক শেখ নাহিয়ান মাহমুদ রিকি ও উপবিজ্ঞান বিষয়ক সম্পাদক মাহমুদুল খান সানী, তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক আশিকুর রহমান ডিপলু, উপ তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক আলী রিয়াজ, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মেজবাহ উদ্দিন খান ও উপ ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক আশিক শর্মা, গণশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক মোঃ আশিকুজ্জামান আকাশ ও উপ গণশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক হিসেবে অনুরাগ চাকমা দায়িত্ব পেয়েছেন।

এছাড়াও, ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সম্পাদক শাহিন পাশা, উপ ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিষয়ক সম্পাদক আদনান রাব্বী, স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা সেবা বিষয়ক সম্পাদক কে এম সাদমান সরকার ইমন, উপ স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা সেবা বিষয়ক সম্পাদক রিফাত পারভেজ, গণযোগাযোগ ও উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক সাদিদ খান সাদি, উপ গণযোগাযোগ ও উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক এম এঞ্জেল, সাহিত্য বিষয়ক সম্পাদক হিসেবে আব্দুল আলীম ও উপ সাহিত্য বিষয়ক সম্পাদক কাজী রাকিন, নাট্য ও বিতর্ক বিষয়ক সম্পাদক আল আমিন সুইট ও উপ নাট্য ও বিতর্ক বিষয়ক সম্পাদক তানভীর আল জুবায়ের তামিম, আপ্যায়ন সম্পাদক আশিকুর রহমান ও উপ আপ্যায়ন সম্পাদক হিসেবে মাজহারুল ইসলাম নাঈম, মুক্তিযুদ্ধ গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক অংকু জোয়াদ্দার সৌমিক ও উপ মুক্তিযুদ্ধ গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক সাদমান ইরাম, মানব সম্পদ উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক মোঃ আজিজ মল্লিক, উপ মানব সম্পদ উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক ইশতিয়াক আরাফাত, ছাত্রবৃত্তি সম্পাদক হিসেবে স্মরণ খন্দকার ও উপ ছাত্রবৃত্তি সম্পাদক মোঃ হৃদয় ইসলাম, কৃষিশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক সায়মুম খান ও উপ কৃষিশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক হিসেবে শাহরিয়ার রাগিব এসেছেন কমিটিতে।

পাশাপাশি, কর্মসূচি ও পরিকল্পনা সম্পাদক মোঃ সজিব আহমেদ ও উপ কর্মসূচি ও পরিকল্পনা সম্পাদক মোঃ আকিবুর রহমান, প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক দিদারুল ও উপ প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক মোঃ সাগর আহমেদ, কর্মসংস্থান বিষয়ক সম্পাদক বাপ্পী মোল্লা ও উপ কর্মসংস্থান বিষয়ক সম্পাদক মেহেদী জামান দুর্জয়, অটিজম বিষয়ক সম্পাদক আহসানুর রহমান আসিফ ও উপ অটিজম বিষয়ক সম্পাদক হিসেবে দ্বীপ হালদার, মানবাধিকার বিষয়ক সম্পাদক এস এম সৌরভ শেখ, উপ মানবাধিকার বিষয়ক সম্পাদক তাসরিফ, মাদ্রাসা শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান জীবন ও উপ মাদ্রাসা শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, কারিগরি শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক সুদীপ্ত শাফি উৎস ও উপ কারিগরি শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক ফারহান লাবিব ধ্রুব, ছাত্রী ও নারী উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক পিংকি শেখ, উপ ছাত্রী ও নারী উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক জান্নাতুল ফেরদৌস দোলন, টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য (এসডিজি) বিষয়ক সম্পাদক সাব্বির হাসান ও উপ টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য (এসডিজি) বিষয়ক সম্পাদক মোঃ নীরব হোসেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম বিষয়ক সম্পাদক মোঃ শিহাব উদ্দিন ও উপ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম বিষয়ক সম্পাদক হিসেবে সাজ্জাদ হোসেন সৈকত পদ পেয়েছেন।

১৯৯ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ এই কমিটিতে সহ সম্পাদক ১৫ জন হচ্ছেন হুসাইন তুষার, শাহারিয়ার হিমেল, সুবর্না ইয়াসমিন মিথিলা, নাইমুর রহমান খান তুর্য, লিখন কান্তি দাস, মো: কাইয়ুম রহমান সাফি, মাহবুব হোসেন, রাফায়েল আহমেদ অংকন, তাহমিদ খান আকিব, শাখাওয়াত হোসেন নিলয়, মোঃ মাহমুদুল হাসান জিহাদী, মোঃ সোহান ইসলাম, সুজন মাহমুদ, শাহরিয়ার ইমন, মেহেদী হাসান এবং ৭ জন সদস্য হলেন সোহানুর রহমান, মোঃ পিয়াস মোস্তাকিন, হামজা মোহাম্মদ নূর, সাব্বির আহমেদ, মাহমুদুল হাসান সজীব, সাগর আহমেদ, মোঃ পাভেল মোল্লা।

কেন্দ্রীয় নেতাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নাসিম আহমেদ জয় বলেন, দীর্ঘ প্রতীক্ষার পরে ইবি শাখা ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটির অনুমোদন পেয়েছে। আগামী দিন গুলোতে ইবি শাখা ছাত্রলীগ কেন্দ্রের নির্দেশনা অনুযায়ী আরো সুন্দর ও স্পৃহা নিয়ে কাজ করবে বলে প্রত্যাশা করছি।

শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ফয়সাল সিদ্দিকী আরাফাত বলেন, সাংগঠনিক একটি পরিচয় পাওয়া প্রতিটি কর্মীর জন্য একটি গর্বের বিষয়। সকল ষড়যন্ত্র ভেঙ্গে দীর্ঘ ৮ বছর পরে যে ইবি শাখা ছাত্রলীগের কর্মীরা যে একটি সাংগঠনিক পরিচয় পেয়েছে, এতে কর্মীদের চেয়ে আমরাই বেশি খুশি। ইবি শাখা ছাত্রলীগের প্রতিটি নেতাকর্মীকে আমি ধন্যবাদ ও অভিনন্দন জানাই।

এর আগে, ২০১৬ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে সর্বশেষ ১২১ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি পায় বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ। পরবর্তীতে ২০২২ সালের ৩১ জুলাই রাতে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের তৎকালীন সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় এবং সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য স্বাক্ষরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে ইবি শাখা ছাত্রলীগের ২৪ সদস্য বিশিষ্ট আংশিক কমিটির অনুমোদন দেওয়া হয়। গতবছর ২০২৩ সালের ৩১ জুলাই ওই কমিটির মেয়াদ শেষ হয়। কমিটি গঠনের ২২ মাস পর পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করলো ইবি শাখা ছাত্রলীগ।