ঢাকা ০৬:০৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

জোটের প্রার্থীর আসন থেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী প্রত্যাহার করা দরকার: ইনু

নিজস্ব সংবাদ

আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচনে ১৪ দলীয় জোটের শরীক দলগুলোকে ৭টি আসন দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে জোটের ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ। তবে আসন বণ্টন পুনর্বিবেচনার দাবি জানিয়েছে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ)।

 হাসানুল হক ইনু বলেছেন, আমরা বিনয়ের সঙ্গে আসন পুনর্বিবেচনার দাবি করেছি। আমরা বলেছি, যে ৭টি আসনের প্রস্তাব করা হয়েছে সেটা আর একটু বাড়ানো দরকার এবং জোটের প্রার্থীর আসন থেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী প্রত্যাহার করা দরকার। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের মধ্য দিয়ে চূড়ান্ত তালিকা ঘোষণা করার আহ্বান জানিয়েছি। আমরা আমির হোসেন আমুর প্রস্তাবকে প্রাথমিক প্রস্তাব হিসেবে গ্রহণ করে পুনর্বিবেচনার আহ্বান জানিয়েছি।

শুক্রবার (১৫ ডিসেম্বর) জাতীয় প্রেসক্লাবে বাংলাদেশ গণ আজাদী লীগ আয়োজিত আলোচনা সভা শেষে গণমাধ্যমকর্মীদের প্রশ্নের জবাবে হাসানুল হক ইনু এসব কথা বলেন।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, শরিকদের জন্য আর আসন বাড়ানো এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী প্রত্যাহার করা সম্ভব নয়। এ বিষয়ে আপনার মতামত কি জানতে চাইলে জাসদ সভাপতি বলেন, দলের সমন্বয়ক আমির হোসেন ও আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তাদের কথা বলেছেন। প্রস্তাবটির পুনর্বিবেচনার দাবি জানিয়ে আমরা আমাদের কথা বলেছি।

যদি সমঝোতা না হয় তাহলে কি করবেন জানতে চাইলে ইনু বলেন, পুনর্বিবেচনার কি ফলাফল হয় দেখা যাক। তারপর আমরা উত্তর দেব।

এ সময় আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, আওয়ামী লীগের সঙ্গে ১৪ দলের আলাপ আলোচনা চলছে এবং একটা সমঝোতার দারপ্রান্তে এসে আমরা পৌঁছেছি। মর্যাদার সঙ্গে আমরা এ বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়েছি। এটা নিয়ে কোনো ধরনের কথা এখনও আমাদের সঙ্গে হয়নি। বিনয়ের সঙ্গে যে কথাটি উত্থাপিত হয়েছে এটাতো আলোচনা করার বিষয় থাকতেই পারে। সময় এখনও আছে, তবে আমি মনে করি আমাদের দলের পক্ষ থেকে এটা মোটামুটি চূড়ান্ত করা হয়েছে। তবে আলোচনা আমাদের আগামী দিনেও চলবে।

হাসানুল হক ইনু আসন বণ্টন পুনর্বিবেচনার কথা জানিয়েছেন জানতে চাইল আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, এখানে সুনির্দিষ্ট বিষয় এবং সিট নিয়ে ১৪ দলের সঙ্গে কোনো আলোচনা হয় না। আলোচনাগুলো হয় নির্বাচনের ক্ষেত্রে নির্বাচনী বিজয়ের লক্ষ্যে। কোনো প্রার্থী নির্বাচনে বিজয় অর্জন করবে এ সম্ভাব্যটাকে সবচেয়ে গুরুত্ব দেওয়া হয়। সে বিবেচনায় নানা ধরনের জরিপ এবং আমাদের কাছে যেসব তথ্য উপাত্ত আছে সেগুলোর ভিত্তিতেই ১৪ দলের আসন বণ্টন বরাদ্দ করা হয়েছে।

জাতীয় পার্টির (জেপি) সাধারণ সম্পাদক শেখ শহিদুল ইসলাম বলেছেন, তাদের সঙ্গে আসন নিয়ে বৈষম্য করা হয়েছে- এই প্রশ্নের জবাবে বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, আমাদের সাথে তো তাদের আজকেও বৈঠক আছে। আজকেও আমরা বিকেলে বসবো। সেখানে আলাপ আলোচনা হবে এবং আমরা একটা জায়গায় সুন্দর করে পৌঁছাতে পারবো। এটা নিয়ে আমাদের কোনো সংশয় নেই। অনেকে অনেক কথা বলবেই তবে সবকিছুর পরও আমরা ইতিবাচক ভাবে আমরা একটি সুন্দর সুষ্ঠু নির্বাচন চাই। যে নির্বাচনে প্রতিযোগিতামূলক নির্বাচন হবে। উৎসমুখর পরিবেশ হবে।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপডেট সময় ০৯:৫৯:৪৯ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০২৩
১২৭ বার পড়া হয়েছে

জোটের প্রার্থীর আসন থেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী প্রত্যাহার করা দরকার: ইনু

আপডেট সময় ০৯:৫৯:৪৯ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০২৩

আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচনে ১৪ দলীয় জোটের শরীক দলগুলোকে ৭টি আসন দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে জোটের ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ। তবে আসন বণ্টন পুনর্বিবেচনার দাবি জানিয়েছে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ)।

 হাসানুল হক ইনু বলেছেন, আমরা বিনয়ের সঙ্গে আসন পুনর্বিবেচনার দাবি করেছি। আমরা বলেছি, যে ৭টি আসনের প্রস্তাব করা হয়েছে সেটা আর একটু বাড়ানো দরকার এবং জোটের প্রার্থীর আসন থেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী প্রত্যাহার করা দরকার। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের মধ্য দিয়ে চূড়ান্ত তালিকা ঘোষণা করার আহ্বান জানিয়েছি। আমরা আমির হোসেন আমুর প্রস্তাবকে প্রাথমিক প্রস্তাব হিসেবে গ্রহণ করে পুনর্বিবেচনার আহ্বান জানিয়েছি।

শুক্রবার (১৫ ডিসেম্বর) জাতীয় প্রেসক্লাবে বাংলাদেশ গণ আজাদী লীগ আয়োজিত আলোচনা সভা শেষে গণমাধ্যমকর্মীদের প্রশ্নের জবাবে হাসানুল হক ইনু এসব কথা বলেন।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, শরিকদের জন্য আর আসন বাড়ানো এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী প্রত্যাহার করা সম্ভব নয়। এ বিষয়ে আপনার মতামত কি জানতে চাইলে জাসদ সভাপতি বলেন, দলের সমন্বয়ক আমির হোসেন ও আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তাদের কথা বলেছেন। প্রস্তাবটির পুনর্বিবেচনার দাবি জানিয়ে আমরা আমাদের কথা বলেছি।

যদি সমঝোতা না হয় তাহলে কি করবেন জানতে চাইলে ইনু বলেন, পুনর্বিবেচনার কি ফলাফল হয় দেখা যাক। তারপর আমরা উত্তর দেব।

এ সময় আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, আওয়ামী লীগের সঙ্গে ১৪ দলের আলাপ আলোচনা চলছে এবং একটা সমঝোতার দারপ্রান্তে এসে আমরা পৌঁছেছি। মর্যাদার সঙ্গে আমরা এ বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়েছি। এটা নিয়ে কোনো ধরনের কথা এখনও আমাদের সঙ্গে হয়নি। বিনয়ের সঙ্গে যে কথাটি উত্থাপিত হয়েছে এটাতো আলোচনা করার বিষয় থাকতেই পারে। সময় এখনও আছে, তবে আমি মনে করি আমাদের দলের পক্ষ থেকে এটা মোটামুটি চূড়ান্ত করা হয়েছে। তবে আলোচনা আমাদের আগামী দিনেও চলবে।

হাসানুল হক ইনু আসন বণ্টন পুনর্বিবেচনার কথা জানিয়েছেন জানতে চাইল আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, এখানে সুনির্দিষ্ট বিষয় এবং সিট নিয়ে ১৪ দলের সঙ্গে কোনো আলোচনা হয় না। আলোচনাগুলো হয় নির্বাচনের ক্ষেত্রে নির্বাচনী বিজয়ের লক্ষ্যে। কোনো প্রার্থী নির্বাচনে বিজয় অর্জন করবে এ সম্ভাব্যটাকে সবচেয়ে গুরুত্ব দেওয়া হয়। সে বিবেচনায় নানা ধরনের জরিপ এবং আমাদের কাছে যেসব তথ্য উপাত্ত আছে সেগুলোর ভিত্তিতেই ১৪ দলের আসন বণ্টন বরাদ্দ করা হয়েছে।

জাতীয় পার্টির (জেপি) সাধারণ সম্পাদক শেখ শহিদুল ইসলাম বলেছেন, তাদের সঙ্গে আসন নিয়ে বৈষম্য করা হয়েছে- এই প্রশ্নের জবাবে বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, আমাদের সাথে তো তাদের আজকেও বৈঠক আছে। আজকেও আমরা বিকেলে বসবো। সেখানে আলাপ আলোচনা হবে এবং আমরা একটা জায়গায় সুন্দর করে পৌঁছাতে পারবো। এটা নিয়ে আমাদের কোনো সংশয় নেই। অনেকে অনেক কথা বলবেই তবে সবকিছুর পরও আমরা ইতিবাচক ভাবে আমরা একটি সুন্দর সুষ্ঠু নির্বাচন চাই। যে নির্বাচনে প্রতিযোগিতামূলক নির্বাচন হবে। উৎসমুখর পরিবেশ হবে।