ঢাকা ০৬:৫০ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

টাঙ্গাইল জেলা মানবাধিকার সংস্থার সভাপতি মেনন, সম্পাদক ডা. স্বপন

টাঙ্গাইল জেলা প্রতিনিধি
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক অনুমোদিত বাংলাদেশের বৃহৎ মানবাধিকার সংস্থা “হিউম্যান রাইটস্ রিভিউ সোসাইটি” টাঙ্গাইল জেলা শাখার পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠিত হয়েছে।
বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান সাংবাদিক মো. রাশেদ খান মেনন (রাসেল) কে সভাপতি ও ডা. সাইফুল ইসলাম স্বপন’কে সাধারণ সম্পাদক করে ৭১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি অনুমোদন দেন কেন্দ্রীয় কমিটি।মানবাধিকার সংস্থা “হিউম্যান রাইটস্ রিভিউ সোসাইটি” কেন্দ্রীয় কমিটির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ সাঈদুল হক সাঈদ স্বাক্ষরিত চিঠির মাধ্যমে মহান বিজয়ের মাসে এই কমিটির অনুমোদন দেন।
কমিটির সহ-সভাপতি সেলিনা বেগম, সুভাষ চন্দ্র সরকার, সায়মা খন্দকার, মোঃ ওমর আলী, মো. আঃ গফুর, মো. শফিকুল আলম খান, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক শফিকুল ইসলাম কানন, মোঃ আনিসুর রহমান, নুরনবী জনি, মোঃ ফজলুল করিম, মোঃ জাকির হোসেন, মোঃ আবু তারেক সিদ্দিকী, রেজাউল ইসলাম,   সাংগঠনিক সম্পাদক মো. মশিউর রহমান, সুমন সরকার, মো. মাহবুবুর রহমান সুজন, মোঃ খোরশেদ আলম খোকন, মোঃ শরিফুল ইসলাম, মোঃ আনিছুর ইসলাম তালুকদার ‘সহ অন্যান্য সম্পাদক ও সদস্যগণ। জেলা মানবাধিকার লংঘন প্রতিরোধ ও সুরক্ষা কমিটিতে টাঙ্গাইল জেলা প্রশাসন কর্তৃক মনোনীত সদস্য হিসেবে কাজ করছে “হিউম্যান রাইটস রিভিউ সোসাইটি” টাঙ্গাইল জেলার শাখার সভাপতি মেনন ও সম্পাদক ডা. স্বপন।
নবগঠিত এ কমিটির সভাপতি মোঃ রাশেদ খান মেনন (রাসেল) ও সাধারণ সম্পাদক ডা. সাইফুল ইসলাম স্বপন বলেন, ৬ ডিসেম্বর পুনরায় দুই বছরের জন্য এই কমিটির দায়িত্ব পেলাম। ইতিপূর্বেও আমরা ঐক্যবদ্ধ ভাবে দায়িত্ব পালন করেছি। মানবাধিকার রক্ষায় কাজ করার লক্ষ্যে “হিউম্যান রাইটস রিভিউ সোসাইটি”র পতাকাতলে সমবেত হয়েছি। আমাদের এই মানবাধিকার সংস্থা সর্বস্তরে আইনের মাধ্যমে শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে, মানবাধিকার রক্ষায় নিবেদিত স্বেচ্ছাসেবী, অরাজনৈতিক এবং অলাভজনক মানবাধিকার বিষয়ক বৃহৎ প্রতিষ্ঠান। ছোট-বড়, ধনী-দরিদ্র, সাদা-কালো, উঁচু-নিচু, ধর্ম-বর্ণ-জাত যাই হোক না কেন, আমাদের প্রথম পরিচয় আমরা মানুষ। আসুন সবাই যারযার অবস্থান থেকে সাধ্যমত মানবাধিকার রক্ষায় কাজ করি। প্রতিদিন অন্তত একটি হলেও ভালো কাজ করি। ভালো কাজের জন্য একে অপরকে উৎসায়িত করি।
ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপডেট সময় ১১:৩১:৫৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৬ ডিসেম্বর ২০২৩
৪৫ বার পড়া হয়েছে

টাঙ্গাইল জেলা মানবাধিকার সংস্থার সভাপতি মেনন, সম্পাদক ডা. স্বপন

আপডেট সময় ১১:৩১:৫৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৬ ডিসেম্বর ২০২৩
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক অনুমোদিত বাংলাদেশের বৃহৎ মানবাধিকার সংস্থা “হিউম্যান রাইটস্ রিভিউ সোসাইটি” টাঙ্গাইল জেলা শাখার পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠিত হয়েছে।
বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান সাংবাদিক মো. রাশেদ খান মেনন (রাসেল) কে সভাপতি ও ডা. সাইফুল ইসলাম স্বপন’কে সাধারণ সম্পাদক করে ৭১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি অনুমোদন দেন কেন্দ্রীয় কমিটি।মানবাধিকার সংস্থা “হিউম্যান রাইটস্ রিভিউ সোসাইটি” কেন্দ্রীয় কমিটির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ সাঈদুল হক সাঈদ স্বাক্ষরিত চিঠির মাধ্যমে মহান বিজয়ের মাসে এই কমিটির অনুমোদন দেন।
কমিটির সহ-সভাপতি সেলিনা বেগম, সুভাষ চন্দ্র সরকার, সায়মা খন্দকার, মোঃ ওমর আলী, মো. আঃ গফুর, মো. শফিকুল আলম খান, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক শফিকুল ইসলাম কানন, মোঃ আনিসুর রহমান, নুরনবী জনি, মোঃ ফজলুল করিম, মোঃ জাকির হোসেন, মোঃ আবু তারেক সিদ্দিকী, রেজাউল ইসলাম,   সাংগঠনিক সম্পাদক মো. মশিউর রহমান, সুমন সরকার, মো. মাহবুবুর রহমান সুজন, মোঃ খোরশেদ আলম খোকন, মোঃ শরিফুল ইসলাম, মোঃ আনিছুর ইসলাম তালুকদার ‘সহ অন্যান্য সম্পাদক ও সদস্যগণ। জেলা মানবাধিকার লংঘন প্রতিরোধ ও সুরক্ষা কমিটিতে টাঙ্গাইল জেলা প্রশাসন কর্তৃক মনোনীত সদস্য হিসেবে কাজ করছে “হিউম্যান রাইটস রিভিউ সোসাইটি” টাঙ্গাইল জেলার শাখার সভাপতি মেনন ও সম্পাদক ডা. স্বপন।
নবগঠিত এ কমিটির সভাপতি মোঃ রাশেদ খান মেনন (রাসেল) ও সাধারণ সম্পাদক ডা. সাইফুল ইসলাম স্বপন বলেন, ৬ ডিসেম্বর পুনরায় দুই বছরের জন্য এই কমিটির দায়িত্ব পেলাম। ইতিপূর্বেও আমরা ঐক্যবদ্ধ ভাবে দায়িত্ব পালন করেছি। মানবাধিকার রক্ষায় কাজ করার লক্ষ্যে “হিউম্যান রাইটস রিভিউ সোসাইটি”র পতাকাতলে সমবেত হয়েছি। আমাদের এই মানবাধিকার সংস্থা সর্বস্তরে আইনের মাধ্যমে শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে, মানবাধিকার রক্ষায় নিবেদিত স্বেচ্ছাসেবী, অরাজনৈতিক এবং অলাভজনক মানবাধিকার বিষয়ক বৃহৎ প্রতিষ্ঠান। ছোট-বড়, ধনী-দরিদ্র, সাদা-কালো, উঁচু-নিচু, ধর্ম-বর্ণ-জাত যাই হোক না কেন, আমাদের প্রথম পরিচয় আমরা মানুষ। আসুন সবাই যারযার অবস্থান থেকে সাধ্যমত মানবাধিকার রক্ষায় কাজ করি। প্রতিদিন অন্তত একটি হলেও ভালো কাজ করি। ভালো কাজের জন্য একে অপরকে উৎসায়িত করি।