ঢাকা ১২:৩৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ডিমলায় দাখিল পরীক্ষায় শতভাগ পাশ

মোঃ মামুন, ডিমলা (নীলফামারী)

প্রতি বছরের মতো ২০২৪ সালের দাখিল পরীক্ষার ফলাফলে অসাধারণ সাফল্যের ধারা বজায় রেখেছে নীলফামারীর ডিমলা উপজেলায় দক্ষিণ গয়াবাড়ি ফুটানির হাট আব্বাস আলী সরকার দাখিল মাদ্রাসায়।

 

এ বছর মাদ্রাসা থেকে সাধারণ বিভাগে মোট ২৭ জন শিক্ষার্থী দাখিল পরীক্ষায় অংশ নেয়। পাসের হার শতভাগ। পাসকৃতদের মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছে ১জন জিপিএ ৪ পেয়েছে২১জন ও জিপিএ ৩ পেয়েছে ৫জন শিক্ষার্থী। সাধারণ বিভাগ থেকে দাখিল পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ২৭ জন শিক্ষার্থী। পাসের হার শতভাগ।

 

স্থানীয় সাধারণ মানুষ ও অভিভাবকরা বলেন প্রতিষ্ঠানটি ১৯৭২ সালে প্রতিষ্ঠিত হলে ও এই প্রথম সাফল্যজনক পরীক্ষার ফলাফল অর্জন হয়েছে।

 

তারা আরও বলেন যে,মাদ্রাসাটি সঠিক সময়ে খোলা হয় এবং নির্দিষ্ট সময়ে ছুটি দিয়ে থাকে। এছাড়াও ডিমলা উপজেলার মাদরাসা পর্যায় শ্রেষ্ঠ প্রধান শিক্ষক হিসেবে সীকৃতি পেয়েছেন হারুন অর রশিদ। এত বড় সাফল্যজনক ফলাফল একমাত্র প্রতিষ্ঠান প্রধান হারুন অর রশিদ ও সুদক্ষ পরিচালনা পরষদের অবদান অনসিকার্য প্রতিষ্ঠানে শিক্ষক কর্মচারী রয়েছেন ২০জন।এলাকাবাসী ও ম্যানেজিং কমিটি প্রতিষ্ঠানটির উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ কামনা করেন।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপডেট সময় ০৬:০১:১৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৩ মে ২০২৪
৩০ বার পড়া হয়েছে

ডিমলায় দাখিল পরীক্ষায় শতভাগ পাশ

আপডেট সময় ০৬:০১:১৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৩ মে ২০২৪

প্রতি বছরের মতো ২০২৪ সালের দাখিল পরীক্ষার ফলাফলে অসাধারণ সাফল্যের ধারা বজায় রেখেছে নীলফামারীর ডিমলা উপজেলায় দক্ষিণ গয়াবাড়ি ফুটানির হাট আব্বাস আলী সরকার দাখিল মাদ্রাসায়।

 

এ বছর মাদ্রাসা থেকে সাধারণ বিভাগে মোট ২৭ জন শিক্ষার্থী দাখিল পরীক্ষায় অংশ নেয়। পাসের হার শতভাগ। পাসকৃতদের মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছে ১জন জিপিএ ৪ পেয়েছে২১জন ও জিপিএ ৩ পেয়েছে ৫জন শিক্ষার্থী। সাধারণ বিভাগ থেকে দাখিল পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ২৭ জন শিক্ষার্থী। পাসের হার শতভাগ।

 

স্থানীয় সাধারণ মানুষ ও অভিভাবকরা বলেন প্রতিষ্ঠানটি ১৯৭২ সালে প্রতিষ্ঠিত হলে ও এই প্রথম সাফল্যজনক পরীক্ষার ফলাফল অর্জন হয়েছে।

 

তারা আরও বলেন যে,মাদ্রাসাটি সঠিক সময়ে খোলা হয় এবং নির্দিষ্ট সময়ে ছুটি দিয়ে থাকে। এছাড়াও ডিমলা উপজেলার মাদরাসা পর্যায় শ্রেষ্ঠ প্রধান শিক্ষক হিসেবে সীকৃতি পেয়েছেন হারুন অর রশিদ। এত বড় সাফল্যজনক ফলাফল একমাত্র প্রতিষ্ঠান প্রধান হারুন অর রশিদ ও সুদক্ষ পরিচালনা পরষদের অবদান অনসিকার্য প্রতিষ্ঠানে শিক্ষক কর্মচারী রয়েছেন ২০জন।এলাকাবাসী ও ম্যানেজিং কমিটি প্রতিষ্ঠানটির উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ কামনা করেন।