ঢাকা ১১:৩১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

তুচ্ছ ঘটনায় জবি শিক্ষার্থীকে মারধরের অভিযোগ

আরাফাতুল হক চৌধুরী, জবি
মার্কেটিং বিভাগের একদল শিক্ষার্থী সংগবদ্ধভাবে বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিন্যান্স বিভাগের ১৬ তম ব্যাচের শিক্ষার্থী মোঃ নয়ন ইসলাম ও তার সহযোগী পার্থ সাহার উপর অতর্কিত হামলা চালিয়েছেন। এ বিষয়ে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী প্রক্টর বরাবর একটি অভিযোগপত্র প্রদান করেছেন।
আজ বুধবার (২৭ মার্চ) দুপুর ২ টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শান্ত চত্ত্বরে এ হামালার ঘটনা ঘটে।
এবিষয়ে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী মোঃ নয়ন ইসলাম বলেন, গতকাল রাতে মেসের কিছু অভ্যন্তরীণ বিষয় নিয়ে মার্কেটিং বিভাগের ১৮ তম ব্যাচের মুনিতুল ইসলাম মেসে সিনিয়রদের সাথে খারাপ ব্যবহার করে। আমি ওকে সিনিয়রদের সাথে সংযত আচরণ করার কথা বলি। সে তখন আমাকে বলে আমি এভাবেই কথা বলবো, কি করবেন করেন। কথার এক পর্যায়ে সে আমার দিকে তেড়ে আসে এবং আমাকে দেখে নেওয়ার হুমকি দেয়।
তিনি আরও বলেন, গতকাল রাতের ঘটনা সমাধানের নাম করে আজ দুপুর ২টায় আমাকে শান্ত চত্ত্বরে ডেকে নিয়ে মুনি(১৮ ব্যাচ), আলামিন সজিব(১৬ ব্যাচ), অনিক(১৭ ব্যাচ), জামিল(১৭ ব্যাচ)সহ ২৫-৩০ জনের একটি টিম সর্বসম্মুখে আমার এবং আমার বন্ধু পার্থের উপর অতর্কিত হামলা চালায়।
এবিষয়ে জানতে প্রতিবেদক অভিযুক্ত শিক্ষার্থীদের সাথে যোগাযোগ করলে তারা কোন কথা বলতে রাজি হননি।
এবিষয়ে প্রক্টর অধ্যাপক জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, বিষয়টি আমি শুনেছি। তদন্ত সাপেক্ষে পরবর্তীতে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপডেট সময় ০৫:৫৬:২৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৭ মার্চ ২০২৪
৪৮ বার পড়া হয়েছে

তুচ্ছ ঘটনায় জবি শিক্ষার্থীকে মারধরের অভিযোগ

আপডেট সময় ০৫:৫৬:২৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৭ মার্চ ২০২৪
মার্কেটিং বিভাগের একদল শিক্ষার্থী সংগবদ্ধভাবে বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিন্যান্স বিভাগের ১৬ তম ব্যাচের শিক্ষার্থী মোঃ নয়ন ইসলাম ও তার সহযোগী পার্থ সাহার উপর অতর্কিত হামলা চালিয়েছেন। এ বিষয়ে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী প্রক্টর বরাবর একটি অভিযোগপত্র প্রদান করেছেন।
আজ বুধবার (২৭ মার্চ) দুপুর ২ টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শান্ত চত্ত্বরে এ হামালার ঘটনা ঘটে।
এবিষয়ে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী মোঃ নয়ন ইসলাম বলেন, গতকাল রাতে মেসের কিছু অভ্যন্তরীণ বিষয় নিয়ে মার্কেটিং বিভাগের ১৮ তম ব্যাচের মুনিতুল ইসলাম মেসে সিনিয়রদের সাথে খারাপ ব্যবহার করে। আমি ওকে সিনিয়রদের সাথে সংযত আচরণ করার কথা বলি। সে তখন আমাকে বলে আমি এভাবেই কথা বলবো, কি করবেন করেন। কথার এক পর্যায়ে সে আমার দিকে তেড়ে আসে এবং আমাকে দেখে নেওয়ার হুমকি দেয়।
তিনি আরও বলেন, গতকাল রাতের ঘটনা সমাধানের নাম করে আজ দুপুর ২টায় আমাকে শান্ত চত্ত্বরে ডেকে নিয়ে মুনি(১৮ ব্যাচ), আলামিন সজিব(১৬ ব্যাচ), অনিক(১৭ ব্যাচ), জামিল(১৭ ব্যাচ)সহ ২৫-৩০ জনের একটি টিম সর্বসম্মুখে আমার এবং আমার বন্ধু পার্থের উপর অতর্কিত হামলা চালায়।
এবিষয়ে জানতে প্রতিবেদক অভিযুক্ত শিক্ষার্থীদের সাথে যোগাযোগ করলে তারা কোন কথা বলতে রাজি হননি।
এবিষয়ে প্রক্টর অধ্যাপক জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, বিষয়টি আমি শুনেছি। তদন্ত সাপেক্ষে পরবর্তীতে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।