ঢাকা ০৪:১২ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে জমজমাট গবেষণা-মেলা সমাপ্ত

মোঃ সাহাদাৎ হোসেন, নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়

উপাচার্য প্রফেসর ড. সৌমিত্র শেখরের ঘোষণার মাধ্যমে আজ বৃহস্পতিবার (৯ মে) সন্ধ্যায় নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের জমজমাট গবেষণা-মেলা ২০২৪ এর পর্দা নেমেছে। একই সঙ্গে আগামী বছর তৃতীয় গবেষণা মেলায় অংশগ্রহণের জন্য সকলকে আগাম আমন্ত্রণ জানান উপাচার্য।

সন্ধ্যায় মেলার সমাপনী আয়োজনের শুরুতে ২০২৩-২৪ অর্থ বছরে ইন্সটিটিউট অব নজরুল স্টাডিজ থেকে গবেষনার জন্য মনোনীতদের হাতে অর্থের চেক তুলে দেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য ও স্টাডিজের পরিচালক প্রফেসর ড. সৌমিত্র শেখর অর্থের চেক তুলে দেন।

এরপর প্রধান অতিথির বক্তব্যে ড. সৌমিত্র শেখর বলেন, আজকে আমাদের জন্য খুব আনন্দের দিন। আজকে আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৯ তম প্রতিষ্ঠা দিবস। এই দিবসকেন্দ্রীক অনুষ্ঠান যেমন হয়েছে ঠিক তেমনি গবেষণা মেলাও হয়েছে। দুটো অনুষ্ঠান সফলতার সাথেই একইসঙ্গে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের মূল কাজ পড়াশোনার পাশাপাশি গবেষণা করা৷ গবেষণা যে শুধু পদোন্নতির জন্য নয়, ব্যক্তিগত নথিতে আটকে রাখার বিষয় নয় সেই ধারণাকে আমরা চ্যালেঞ্জ করছি। গবেষণা মেলার মধ্যদিয়ে আমরা আমাদের শিক্ষকদের গবেষণাগুলোকে সকলের জন্য উন্মুক্ত করছি। গবেষণা মেলার জন্য শিক্ষকদের মধ্যে একটি প্রতিযোগিতার মনোভাব তৈরি হয়েছে।

ভবিষ্যতে ভালো ও উন্নতমানের গবেষণা পরিচালনার জন্য গবেষকদের প্রণোদনার পাশাপাশি তাদেরকে প্রশাসনের পক্ষ থেকে পুরষ্কৃতও করা হবে উপাচার্য ঘোষণা দেন।

তিনি বলেন, আমরা আজকেই ছাত্রছাত্রীদের গবেষণার জন্য অর্থের চেক তুলে দিয়েছি। যাতে ছাত্রছাত্রীরা এখন থেকেই গবেষণামুখী হয়।

সফলভাবে গবেষণা মেলা আয়োজন করায় উপাচার্য আয়োজনের সাথে সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জানান। ভবিষ্যতে মেলা যেন আরও সুন্দর ও বিস্তৃত করা হয় সে প্রত্যাশাও ব্যক্ত করেন।

অনুষ্ঠানে নেত্রকোণার শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফসের ড. গোলাম কবির বলেন, আপনাদের ক্যাম্পাসে আমি প্রথমবার এসেছি যদিও আগে ছবিতে দেখেছি। বাস্তবে এ ক্যাম্পাসে এসে যা দেখলাম তাতে আমার খুব ভালো লাগছে। আপনাদের এই গবেষণা মেলার স্টল ঘুরে ঘুরে দেখেছি। আসলে এই উদ্যোগ খুব সুন্দর একটি প্রয়াস। বিশ্ববিদ্যালয় দিবসে এ ধরনের আয়োজনই হওয়া উচিত। আমি সত্যিই অভিভূত ও আনন্দিত।
সমাপনী অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন গবেষণা ও সম্প্রসারণ কেন্দ্রের পরিচালক প্রফেসর ড. মার্জিয়া আক্তার। সঞ্চালনা করেন ইংরেজি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের বিভাগীয় প্রধান রায়হানা আক্তার।

এসময় বিভিন্ন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান, দপ্তর প্রধানসহ শিক্ষক, কর্মকর্তা, ছাত্রছাত্রী ও গবেষকরা উপস্থিত ছিলেন।
এর আগে মেলার দ্বিতীয় দিন (০৯ মে) প্রথম পর্ব শুরু হয় সকাল ১১ টায়। এসময় মেলায় অংশগ্রহণকারী ১৪টি বিভাগ/দপ্তর/ইন্সটিটিউট তাদের কার্যক্রম নিয়ে ১০ মিনিট করে ও দ্বিতীয় পর্বে তথা বেলা আড়াইটা থেকে আরও ১৩ টি বিভাগ/দপ্তর/ইন্সটিটিউট ১০ মিনিট করে একটি ব্রিফিং করেন। এর ফলে মেলায় আসা দর্শনার্থীসহ অংশগ্রহণকারী অন্যরা সংশ্লিষ্ট ওই বিভাগ/দপ্তর/ইন্সটিটিউটের কার্যক্রম সম্পর্কে অবহিত হতে পারেন।

উল্লেখ্য, শিক্ষা, গবেষণা ও উন্নয়ন-এই মটোকে ধারণ করে এগিয়ে যাওয়া জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় দ্বিতীয়বারের মতো দুইদিনব্যাপী গবেষণা মেলা আয়োজন করলো। বিশ্ববিদ্যালয়ের ২৪টি বিভাগ, আইকিউসি  ইন্সটিটিউট অব নজরুল স্টাডিজ, গবেষণা ও সম্প্রসারণ কেন্দ্র অংশ গ্রহণ করেছে।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপডেট সময় ১২:০১:৫৪ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১০ মে ২০২৪
৫৮ বার পড়া হয়েছে

নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে জমজমাট গবেষণা-মেলা সমাপ্ত

আপডেট সময় ১২:০১:৫৪ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১০ মে ২০২৪

উপাচার্য প্রফেসর ড. সৌমিত্র শেখরের ঘোষণার মাধ্যমে আজ বৃহস্পতিবার (৯ মে) সন্ধ্যায় নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের জমজমাট গবেষণা-মেলা ২০২৪ এর পর্দা নেমেছে। একই সঙ্গে আগামী বছর তৃতীয় গবেষণা মেলায় অংশগ্রহণের জন্য সকলকে আগাম আমন্ত্রণ জানান উপাচার্য।

সন্ধ্যায় মেলার সমাপনী আয়োজনের শুরুতে ২০২৩-২৪ অর্থ বছরে ইন্সটিটিউট অব নজরুল স্টাডিজ থেকে গবেষনার জন্য মনোনীতদের হাতে অর্থের চেক তুলে দেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য ও স্টাডিজের পরিচালক প্রফেসর ড. সৌমিত্র শেখর অর্থের চেক তুলে দেন।

এরপর প্রধান অতিথির বক্তব্যে ড. সৌমিত্র শেখর বলেন, আজকে আমাদের জন্য খুব আনন্দের দিন। আজকে আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৯ তম প্রতিষ্ঠা দিবস। এই দিবসকেন্দ্রীক অনুষ্ঠান যেমন হয়েছে ঠিক তেমনি গবেষণা মেলাও হয়েছে। দুটো অনুষ্ঠান সফলতার সাথেই একইসঙ্গে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের মূল কাজ পড়াশোনার পাশাপাশি গবেষণা করা৷ গবেষণা যে শুধু পদোন্নতির জন্য নয়, ব্যক্তিগত নথিতে আটকে রাখার বিষয় নয় সেই ধারণাকে আমরা চ্যালেঞ্জ করছি। গবেষণা মেলার মধ্যদিয়ে আমরা আমাদের শিক্ষকদের গবেষণাগুলোকে সকলের জন্য উন্মুক্ত করছি। গবেষণা মেলার জন্য শিক্ষকদের মধ্যে একটি প্রতিযোগিতার মনোভাব তৈরি হয়েছে।

ভবিষ্যতে ভালো ও উন্নতমানের গবেষণা পরিচালনার জন্য গবেষকদের প্রণোদনার পাশাপাশি তাদেরকে প্রশাসনের পক্ষ থেকে পুরষ্কৃতও করা হবে উপাচার্য ঘোষণা দেন।

তিনি বলেন, আমরা আজকেই ছাত্রছাত্রীদের গবেষণার জন্য অর্থের চেক তুলে দিয়েছি। যাতে ছাত্রছাত্রীরা এখন থেকেই গবেষণামুখী হয়।

সফলভাবে গবেষণা মেলা আয়োজন করায় উপাচার্য আয়োজনের সাথে সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জানান। ভবিষ্যতে মেলা যেন আরও সুন্দর ও বিস্তৃত করা হয় সে প্রত্যাশাও ব্যক্ত করেন।

অনুষ্ঠানে নেত্রকোণার শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফসের ড. গোলাম কবির বলেন, আপনাদের ক্যাম্পাসে আমি প্রথমবার এসেছি যদিও আগে ছবিতে দেখেছি। বাস্তবে এ ক্যাম্পাসে এসে যা দেখলাম তাতে আমার খুব ভালো লাগছে। আপনাদের এই গবেষণা মেলার স্টল ঘুরে ঘুরে দেখেছি। আসলে এই উদ্যোগ খুব সুন্দর একটি প্রয়াস। বিশ্ববিদ্যালয় দিবসে এ ধরনের আয়োজনই হওয়া উচিত। আমি সত্যিই অভিভূত ও আনন্দিত।
সমাপনী অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন গবেষণা ও সম্প্রসারণ কেন্দ্রের পরিচালক প্রফেসর ড. মার্জিয়া আক্তার। সঞ্চালনা করেন ইংরেজি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের বিভাগীয় প্রধান রায়হানা আক্তার।

এসময় বিভিন্ন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান, দপ্তর প্রধানসহ শিক্ষক, কর্মকর্তা, ছাত্রছাত্রী ও গবেষকরা উপস্থিত ছিলেন।
এর আগে মেলার দ্বিতীয় দিন (০৯ মে) প্রথম পর্ব শুরু হয় সকাল ১১ টায়। এসময় মেলায় অংশগ্রহণকারী ১৪টি বিভাগ/দপ্তর/ইন্সটিটিউট তাদের কার্যক্রম নিয়ে ১০ মিনিট করে ও দ্বিতীয় পর্বে তথা বেলা আড়াইটা থেকে আরও ১৩ টি বিভাগ/দপ্তর/ইন্সটিটিউট ১০ মিনিট করে একটি ব্রিফিং করেন। এর ফলে মেলায় আসা দর্শনার্থীসহ অংশগ্রহণকারী অন্যরা সংশ্লিষ্ট ওই বিভাগ/দপ্তর/ইন্সটিটিউটের কার্যক্রম সম্পর্কে অবহিত হতে পারেন।

উল্লেখ্য, শিক্ষা, গবেষণা ও উন্নয়ন-এই মটোকে ধারণ করে এগিয়ে যাওয়া জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় দ্বিতীয়বারের মতো দুইদিনব্যাপী গবেষণা মেলা আয়োজন করলো। বিশ্ববিদ্যালয়ের ২৪টি বিভাগ, আইকিউসি  ইন্সটিটিউট অব নজরুল স্টাডিজ, গবেষণা ও সম্প্রসারণ কেন্দ্র অংশ গ্রহণ করেছে।