ঢাকা ০৮:১৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পদ প্রত্যাশী সাবেক যুবলীগ নেতা রনি’র বিরুদ্ধে চাঁদা দাবি ও ভুমি দখলের অভিযোগে মানববন্ধন

মোঃ সাকিবুল ইসলাম স্বাধীন, রাজশাহী

যুবলীগের নাম ভাঙ্গিয়ে তৌরিদ আল মাসুদ রনি’র চাঁদা দাবি ও ভুমি দখলসহ বিভিন্ন জনকে দিয়ে মিথ্যা মামলা করিয়ে হয়রানির প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছেন আবাসন ব্যবসায়ী মোস্তাফিজুর রহমান।

বৃহস্পতিবার (২৮ মার্চ) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে উক্ত ঘটনার প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছেন ভুক্তভোগী গ্রীন প্লাজা রিয়েল এস্টেটের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. মোস্তাফিজুর রহমান।

রাজশাহী মহানগর যুবলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমানে সভাপতি পদ প্রত্যাশী তৌরিদ আল মাসুদ রনি বিরুদ্ধে হওয়া মানববন্ধনে ভুক্তভোগী রাজশাহীর আবাসন ব্যবসায়ী মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, রনি রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মাননীয় মেয়র মহোদয়ের নাম ভাঙ্গিয়ে বিভিন্ন ফায়দা হাসিল করছেন। এসব বিষয় আমি মেয়র মহোদয়কে অবগত করেছি। তিনিও তাঁর এমন কর্মকান্ডে বিব্রত। ‘আবু হানিফ আমার সঙ্গে চুক্তি করে টাকা নিয়ে সে যুবলীগ নেতার সঙ্গে আতাত করে এবং সম্পাদিত চুক্তি ভঙ্গ করেন। আমার দলবল নেই। আমি আইনের আশ্রয় নিয়েছি। এতে প্রতারক আবু হানিফ কারাভোগ করে। কয়েকদিন আগে সে জামিনে বের হয়ে যুবলীগ নেতা রনি ও তার দলবল নিয়ে বিভিন্ন সময় আমাকে হত্যা হুমকিসহ রাজশাহী থেকে বের করে দেবার হুমকি দিয়ে যাচ্ছে। এর আগেও হানিফ ও তার ছেলে আমার প্রজেক্টে এসে যুবলীগের দলবল নিয়ে ভাংচুর করেছে। আমার লোকজনকে মেরে তাড়িয়ে দিয়েছে।’ তিনি আরও বলেন, ‘কয়েক দিন আগে দড়িখড়বোনা মোড়ে যুবলীগের কয়েকজন নেতাকর্মী আমার গাড়ীর পথরোধ করে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ ও হুমকি দেন। এ কারণে আমি র‌্যাব, পুলিশ, আদালতে তাদের বিরুদ্ধে নিরাপত্তা জনিত বিষয়ে অভিযোগ করেছি। আদালতের আইন অমান্য করে তারা জালিয়াতি করায় যথাযথ কর্তৃপক্ষের নিকট অভিযোগ করেছি।’

এদিকে বোয়ালিয়া থানার ওসি হুমায়ুনকে দিয়ে মিথ্যা অভিযোগ ও মামলা নিয়ে আমাকে হয়রানি করা হচ্ছে। মোটা অংকের ঘুষ নিয়ে একটি ভিত্তিহীন অভিযোগে তিনি মামলা নিলেন। মামলা নেওয়ার পরপরই তদন্ত ছাড়াই আমাকে তাৎক্ষণিক গ্রেফতার করলেন। যেটা অভিযোগ হওয়ার যোগ্য নয় সেটা হলো মামলা। যদিও গ্রেফতারের পর বিজ্ঞ আদালত ওইদিনই আমাকে জামিন দিয়েছেন। এসব বিষয় গণমাধ্যমে ফলাওভাবে প্রচার হয়েছে।

মানববন্ধন তিনি আরো বলেন, আমি তার (রনির) বিরুদ্ধে আদালতে চাঁদাবাজি মামলা দায়ের করেছি। বিজ্ঞ আদালত তা এজাহার হিসেবে নিলেও পুলিশ প্রশাসন তাকে আটক করছে না। সে এরকম বহু মানুষের সঙ্গে চাঁদাবাজি, জমি দখলসহ সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে লিপ্ত। তিনি মানববন্ধনে জীবনের নিরাপত্তাসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কাছে সহযোগিতা চান। সেই সাথে তৌরিদ আল মাসুদ রনির মতো ভুমি দর্স্যু, চাঁদাবাজ সন্ত্রাসীর দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি কামনা করেন। যুবলীগের সভাপতি পদ না পেয়েই তিনি যেসব কর্মকাণ্ড করছেন সভাপতি হলে শান্তির রাজশাহী অশান্ত হয়ে উঠবে। তাঁর ভয়ে অনেক ভুক্তভোগী মুখ খুলতে পারছেন না।

মানববন্ধনে দাবিকৃত কথা বিষয়ে জানতে রাজশাহী মহানগরের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তৌরিদ আল মাসুদ রনিকে একাধিকবার ফোন দেওয়া হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি। তাই তাঁর বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপডেট সময় ০১:৫০:২৪ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৯ মার্চ ২০২৪
৫৩ বার পড়া হয়েছে

পদ প্রত্যাশী সাবেক যুবলীগ নেতা রনি’র বিরুদ্ধে চাঁদা দাবি ও ভুমি দখলের অভিযোগে মানববন্ধন

আপডেট সময় ০১:৫০:২৪ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৯ মার্চ ২০২৪

যুবলীগের নাম ভাঙ্গিয়ে তৌরিদ আল মাসুদ রনি’র চাঁদা দাবি ও ভুমি দখলসহ বিভিন্ন জনকে দিয়ে মিথ্যা মামলা করিয়ে হয়রানির প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছেন আবাসন ব্যবসায়ী মোস্তাফিজুর রহমান।

বৃহস্পতিবার (২৮ মার্চ) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে উক্ত ঘটনার প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছেন ভুক্তভোগী গ্রীন প্লাজা রিয়েল এস্টেটের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. মোস্তাফিজুর রহমান।

রাজশাহী মহানগর যুবলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমানে সভাপতি পদ প্রত্যাশী তৌরিদ আল মাসুদ রনি বিরুদ্ধে হওয়া মানববন্ধনে ভুক্তভোগী রাজশাহীর আবাসন ব্যবসায়ী মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, রনি রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মাননীয় মেয়র মহোদয়ের নাম ভাঙ্গিয়ে বিভিন্ন ফায়দা হাসিল করছেন। এসব বিষয় আমি মেয়র মহোদয়কে অবগত করেছি। তিনিও তাঁর এমন কর্মকান্ডে বিব্রত। ‘আবু হানিফ আমার সঙ্গে চুক্তি করে টাকা নিয়ে সে যুবলীগ নেতার সঙ্গে আতাত করে এবং সম্পাদিত চুক্তি ভঙ্গ করেন। আমার দলবল নেই। আমি আইনের আশ্রয় নিয়েছি। এতে প্রতারক আবু হানিফ কারাভোগ করে। কয়েকদিন আগে সে জামিনে বের হয়ে যুবলীগ নেতা রনি ও তার দলবল নিয়ে বিভিন্ন সময় আমাকে হত্যা হুমকিসহ রাজশাহী থেকে বের করে দেবার হুমকি দিয়ে যাচ্ছে। এর আগেও হানিফ ও তার ছেলে আমার প্রজেক্টে এসে যুবলীগের দলবল নিয়ে ভাংচুর করেছে। আমার লোকজনকে মেরে তাড়িয়ে দিয়েছে।’ তিনি আরও বলেন, ‘কয়েক দিন আগে দড়িখড়বোনা মোড়ে যুবলীগের কয়েকজন নেতাকর্মী আমার গাড়ীর পথরোধ করে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ ও হুমকি দেন। এ কারণে আমি র‌্যাব, পুলিশ, আদালতে তাদের বিরুদ্ধে নিরাপত্তা জনিত বিষয়ে অভিযোগ করেছি। আদালতের আইন অমান্য করে তারা জালিয়াতি করায় যথাযথ কর্তৃপক্ষের নিকট অভিযোগ করেছি।’

এদিকে বোয়ালিয়া থানার ওসি হুমায়ুনকে দিয়ে মিথ্যা অভিযোগ ও মামলা নিয়ে আমাকে হয়রানি করা হচ্ছে। মোটা অংকের ঘুষ নিয়ে একটি ভিত্তিহীন অভিযোগে তিনি মামলা নিলেন। মামলা নেওয়ার পরপরই তদন্ত ছাড়াই আমাকে তাৎক্ষণিক গ্রেফতার করলেন। যেটা অভিযোগ হওয়ার যোগ্য নয় সেটা হলো মামলা। যদিও গ্রেফতারের পর বিজ্ঞ আদালত ওইদিনই আমাকে জামিন দিয়েছেন। এসব বিষয় গণমাধ্যমে ফলাওভাবে প্রচার হয়েছে।

মানববন্ধন তিনি আরো বলেন, আমি তার (রনির) বিরুদ্ধে আদালতে চাঁদাবাজি মামলা দায়ের করেছি। বিজ্ঞ আদালত তা এজাহার হিসেবে নিলেও পুলিশ প্রশাসন তাকে আটক করছে না। সে এরকম বহু মানুষের সঙ্গে চাঁদাবাজি, জমি দখলসহ সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে লিপ্ত। তিনি মানববন্ধনে জীবনের নিরাপত্তাসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কাছে সহযোগিতা চান। সেই সাথে তৌরিদ আল মাসুদ রনির মতো ভুমি দর্স্যু, চাঁদাবাজ সন্ত্রাসীর দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি কামনা করেন। যুবলীগের সভাপতি পদ না পেয়েই তিনি যেসব কর্মকাণ্ড করছেন সভাপতি হলে শান্তির রাজশাহী অশান্ত হয়ে উঠবে। তাঁর ভয়ে অনেক ভুক্তভোগী মুখ খুলতে পারছেন না।

মানববন্ধনে দাবিকৃত কথা বিষয়ে জানতে রাজশাহী মহানগরের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তৌরিদ আল মাসুদ রনিকে একাধিকবার ফোন দেওয়া হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি। তাই তাঁর বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।