ঢাকা ০৪:২৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিজয়নগর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী নিখোঁজের ৩দিন পর কাঁচপুর থেকে উদ্ধার

হাসান আহমেদ, নারায়ণগঞ্জ

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বিজয়নগর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নিখোঁজ হওয়া ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী প্রীতি খন্দকারের খোঁজ মিলেছে নারায়ণগঞ্জে। নিখোঁজের ৩ দিন পর বৃহস্পতিবার (৩০ মে) সোনারগাঁ উপজেলার কাঁচপুর থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে কাঁচপুর হাইওয়ে থানার পুলিশ পরিদর্শক (অফিসার ইনচার্জ) মো. রেজাউল হক জানান, সকালের দিকে কাচপুরে কর্মরত পুলিশ কর্মকর্তাদের কাছে এক নারী আসেন। তিনি উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী বলে পরিচয় দেন। এরপর বিষয়টি পরিবারের পাশাপাশি বিজয়নগর থানাকে অবহিত করা হয়। পরে তার স্বামীর উপস্থিতিতে বিজয়নগর থানা পুলিশের কাছে প্রীতি খন্দকার হালিমাকে বুজিয়ে দেয়া হয়।

তিনি আরও জানান, প্রীতি খন্দকার নিখোঁজ হওয়ার বিষয়ে জানিয়েছেন যে, ২৮ মে দুপুরে উপজেলার হরষপুর ইউনিয়নে নির্বাচনী প্রচারণা করার সময় কয়েকজন তাকে পান খেতে দেয়। এরপরই তিনি সেন্সলেস হয়ে যান। পরে বৃহস্পতিবার সকালে ৮টার দিকে নারায়ণগঞ্জের দেওয়ানবাগের হাইওয়ে সড়কে উনাকে রেখে যাওয়া হয়।

এর আগে, ২৮ মে নিজ এলাকায় নির্বাচনি প্রচারণার সময় নিখোঁজ হন প্রীতি খন্দকার। পরে তার স্বামী মাসুদ খন্দকার এ বিষয়ে থানায় জিডি করেন। এতে তার স্ত্রীকে গুম করা হয়ে থাকতে পারে বলে অভিযোগ করেন।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপডেট সময় ১০:৪২:১১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪
৪৬ বার পড়া হয়েছে

বিজয়নগর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী নিখোঁজের ৩দিন পর কাঁচপুর থেকে উদ্ধার

আপডেট সময় ১০:৪২:১১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বিজয়নগর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নিখোঁজ হওয়া ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী প্রীতি খন্দকারের খোঁজ মিলেছে নারায়ণগঞ্জে। নিখোঁজের ৩ দিন পর বৃহস্পতিবার (৩০ মে) সোনারগাঁ উপজেলার কাঁচপুর থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে কাঁচপুর হাইওয়ে থানার পুলিশ পরিদর্শক (অফিসার ইনচার্জ) মো. রেজাউল হক জানান, সকালের দিকে কাচপুরে কর্মরত পুলিশ কর্মকর্তাদের কাছে এক নারী আসেন। তিনি উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী বলে পরিচয় দেন। এরপর বিষয়টি পরিবারের পাশাপাশি বিজয়নগর থানাকে অবহিত করা হয়। পরে তার স্বামীর উপস্থিতিতে বিজয়নগর থানা পুলিশের কাছে প্রীতি খন্দকার হালিমাকে বুজিয়ে দেয়া হয়।

তিনি আরও জানান, প্রীতি খন্দকার নিখোঁজ হওয়ার বিষয়ে জানিয়েছেন যে, ২৮ মে দুপুরে উপজেলার হরষপুর ইউনিয়নে নির্বাচনী প্রচারণা করার সময় কয়েকজন তাকে পান খেতে দেয়। এরপরই তিনি সেন্সলেস হয়ে যান। পরে বৃহস্পতিবার সকালে ৮টার দিকে নারায়ণগঞ্জের দেওয়ানবাগের হাইওয়ে সড়কে উনাকে রেখে যাওয়া হয়।

এর আগে, ২৮ মে নিজ এলাকায় নির্বাচনি প্রচারণার সময় নিখোঁজ হন প্রীতি খন্দকার। পরে তার স্বামী মাসুদ খন্দকার এ বিষয়ে থানায় জিডি করেন। এতে তার স্ত্রীকে গুম করা হয়ে থাকতে পারে বলে অভিযোগ করেন।