ঢাকা ০১:০৪ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বৃষ্টি পড়লেই বাদিয়াখালী বাজার সড়কে বাড়ে ভোগান্তি

মোঃ মাসুদ রানা, গাইবান্ধা

গাইবান্ধা সদর উপজেলার বাদিয়াখালী ইউনিয়নের পুরাতন বাদিয়াখালী বাজার সড়কে ভোগান্তি বাড়িয়েছে বৃষ্টি। বৃষ্টির কারণে রাস্তাটিতে কাদা জমে থাকায় হেঁটে চলাচল করাও অনেক কষ্টকর । জমে থাকা পানি পরিষ্কার না হওয়ায় দুর্গন্ধ বের হয় এবং ময়লায় আশপাশের পরিবেশ নষ্ট হয়ে যায়। সামান্য বৃষ্টি হলেই রাস্তায় পানি জমে বেড়ে যায় ভোগান্তি। আবার হাটের দিন রাস্তার দুই পাশে বসানো হয় মুরগির হাট যে দুই সাইডে মানুষ চলাচল করবে সেই রাস্তাটাও আর থাকে না। দীর্ঘদিন ধরে রাস্তা সংস্কার না হওয়ায় ও রাস্তাটি নিচু হওয়ায় মানুষের অভিযোগের শেষ নেই। সবকিছু দেখেশুনে নীরবে ঘুমিয়ে থাকেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা।

জানা গেছে, গাইবান্ধা সদর উপজেলার বাদিয়াখালী ইউনিয়নের ঐতিহ্য ও প্রাচীনতম দুইটি বাজার রয়েছে। এর মধ্যে প্রধান বাজার হলো পুরাতন বাদিয়াখালী বাজার। এতে করে বিভিন্ন এলাকার মানুষজন এসে ভিড় জমায়। মানুষ ও যানবাহনের সংখ্যা বাড়লেও বাড়েনি রাস্তাঘাট। বাজারের মধ্যে যে কয়টি রাস্তা রয়েছে, সব কটিতে সৃষ্টি হয়েছে জলাবদ্ধতা। এতে করে জনসাধারণকে ভোগান্তির মুখে পড়তে হচ্ছে।

পথচারী মোঃ সাইফুল ইসলাম বলেন, আমাদের বাজার করতে এসে কাদা ও ময়লাযুক্ত পানির মধ্য দিয়ে হেটে যেতে হয় এতে করে রোগ জীবাণু সৃষ্টি হওয়ার ঝুঁকি থাকে । কয়েক বছর ধরে রাস্তাটি নিচু করে নির্মাণ করায় খুব দুর্ভোগ হচ্ছে। তাই আমি মনে করি রাস্তাটি খুব জরুরী উঁচু করা দরকার। আমরা সকলেই চাই অচিরেই রাস্তাটি মেরামত করা হোক।

নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী সৈকত ইসলাম বলেন, ‘মানুষের স্বচ্ছন্দে চলাচলের জন্য এ রাস্তা খুব গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু এখানে বড় সমস্যা হলো, সামান্য একটু বৃষ্টি হলে রাস্তায় হাঁটুপানি জমে চলাচলের কোনো ব্যবস্থা তখন আর থাকে না। স্কুলে যাওয়ার সময় বই কাঁদাতে পড়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে ।

এখানকার স্থানীয় দোকানদার মোশারফ বলেন, ‘রাস্তাটা শুকনা থাকলে ধুলাবালু দোকানে আসে। আর বৃষ্টি হলে পানি জমে। আবার হাটের দিন মুরগির হাট লাগায় হাট কমিটিরা এখানে ব্যবসা-বাণিজ্য নেই বললেই চলে। রাস্তাটি দ্রুত মেরামত করে আমাদের ভোগান্তি দূর করবে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা এটাই প্রত্যাশা করছি।’

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপডেট সময় ০৭:১৩:২০ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
৭৬ বার পড়া হয়েছে

বৃষ্টি পড়লেই বাদিয়াখালী বাজার সড়কে বাড়ে ভোগান্তি

আপডেট সময় ০৭:১৩:২০ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

গাইবান্ধা সদর উপজেলার বাদিয়াখালী ইউনিয়নের পুরাতন বাদিয়াখালী বাজার সড়কে ভোগান্তি বাড়িয়েছে বৃষ্টি। বৃষ্টির কারণে রাস্তাটিতে কাদা জমে থাকায় হেঁটে চলাচল করাও অনেক কষ্টকর । জমে থাকা পানি পরিষ্কার না হওয়ায় দুর্গন্ধ বের হয় এবং ময়লায় আশপাশের পরিবেশ নষ্ট হয়ে যায়। সামান্য বৃষ্টি হলেই রাস্তায় পানি জমে বেড়ে যায় ভোগান্তি। আবার হাটের দিন রাস্তার দুই পাশে বসানো হয় মুরগির হাট যে দুই সাইডে মানুষ চলাচল করবে সেই রাস্তাটাও আর থাকে না। দীর্ঘদিন ধরে রাস্তা সংস্কার না হওয়ায় ও রাস্তাটি নিচু হওয়ায় মানুষের অভিযোগের শেষ নেই। সবকিছু দেখেশুনে নীরবে ঘুমিয়ে থাকেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা।

জানা গেছে, গাইবান্ধা সদর উপজেলার বাদিয়াখালী ইউনিয়নের ঐতিহ্য ও প্রাচীনতম দুইটি বাজার রয়েছে। এর মধ্যে প্রধান বাজার হলো পুরাতন বাদিয়াখালী বাজার। এতে করে বিভিন্ন এলাকার মানুষজন এসে ভিড় জমায়। মানুষ ও যানবাহনের সংখ্যা বাড়লেও বাড়েনি রাস্তাঘাট। বাজারের মধ্যে যে কয়টি রাস্তা রয়েছে, সব কটিতে সৃষ্টি হয়েছে জলাবদ্ধতা। এতে করে জনসাধারণকে ভোগান্তির মুখে পড়তে হচ্ছে।

পথচারী মোঃ সাইফুল ইসলাম বলেন, আমাদের বাজার করতে এসে কাদা ও ময়লাযুক্ত পানির মধ্য দিয়ে হেটে যেতে হয় এতে করে রোগ জীবাণু সৃষ্টি হওয়ার ঝুঁকি থাকে । কয়েক বছর ধরে রাস্তাটি নিচু করে নির্মাণ করায় খুব দুর্ভোগ হচ্ছে। তাই আমি মনে করি রাস্তাটি খুব জরুরী উঁচু করা দরকার। আমরা সকলেই চাই অচিরেই রাস্তাটি মেরামত করা হোক।

নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী সৈকত ইসলাম বলেন, ‘মানুষের স্বচ্ছন্দে চলাচলের জন্য এ রাস্তা খুব গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু এখানে বড় সমস্যা হলো, সামান্য একটু বৃষ্টি হলে রাস্তায় হাঁটুপানি জমে চলাচলের কোনো ব্যবস্থা তখন আর থাকে না। স্কুলে যাওয়ার সময় বই কাঁদাতে পড়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে ।

এখানকার স্থানীয় দোকানদার মোশারফ বলেন, ‘রাস্তাটা শুকনা থাকলে ধুলাবালু দোকানে আসে। আর বৃষ্টি হলে পানি জমে। আবার হাটের দিন মুরগির হাট লাগায় হাট কমিটিরা এখানে ব্যবসা-বাণিজ্য নেই বললেই চলে। রাস্তাটি দ্রুত মেরামত করে আমাদের ভোগান্তি দূর করবে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা এটাই প্রত্যাশা করছি।’