ঢাকা ১২:৪২ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভর্তি পরিক্ষায় রাবি প্রশাসনের ২৫ পদক্ষেপ

মইনুল ইসলাম রাজু, রাবি

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ২০২৩-২০২৪ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষের ভর্তি পরিক্ষা শুরু হচ্ছে আগামী মঙ্গলবার। পরিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের সুবিধার্থে প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিরাপত্তা, নির্দেশনা ও আবাসনসহ অন্যান্য বিষয়ে ২৫ টি পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। শুক্রবার (১ মার্চ) বিকাল সাড়ে চারটায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ সিনেট ভবনে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে এতথ্য জানান করে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক গোলাম সাব্বির সাত্তার।

যানবাহন চলাচলের ব্যাপারে উপাচার্য জানান, ভর্তি পরীক্ষা চলাকালীন (৫,৬ ও ৭ মার্চ) শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীগণ তাদের গাড়ি রাখতে সাবাস বাংলাদেশ-এর মাঠ ব্যাবহার করবেন। তবে তাদের ৭:৩০ মিনিটের মধ্যে গাড়ি পার্ক করতে হবে। এছাড়া, বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসগুলো শহরের নির্ধারিত স্থান থেকে সকাল ৭:১৫ মিনিটে ক্যাম্পাস অভিমুখে ছেড়ে আসবে। ৫ ও ৬ মার্চ ক্যাম্পাস থেকে বিকেল ৫:১৫ মিনিটে এবং ৭ মার্চ বেলা ২:৪৫ মিনিটে ক্যাম্পাস থেকে ছেড়ে যাবে। সকাল ৭:৩০ মিনিটের পর ক্যাম্পাসে কোনো প্রকার ভারী যানবাহন প্রবেশ করতে পারবে না। ব্যক্তিগত গাড়ি ও অন্যান্য যানবাহন কাজলা ও বিনোদপুর গেট দিয়ে প্রবেশ করে মেইন গেট দিয়ে বেরিয়ে যাবে।

শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের আবাসন সংকট নিরসনে ব্যাবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। এবিষয়ে তিনি বলেন, পরীক্ষার্থীদের বিভিন্ন আবাসিক হলে ও বিশ্ববিদ্যালয় জিমনেসিয়ামে সীমিত আকারে থাকার ব্যাবস্থা করা হয়েছে। নারী অভিভাবকদের অবস্থানের জন্য মিহিলা জিমনেসিয়াম ও পশ্চিম ৯০ নম্বর বাসায় সীমিত ব্যাবস্থা করা হয়েছে। পরীক্ষার্থীদের প্রবেশপত্রের ফটোকপি ও জাতীয় পরিচয়পত্রে ফটোকপির বিনিময়ে এ-সুবিধা গ্রহণ করা যাবে। এছাড়া ক্যাম্পাসের বিভিন্ন জায়গায় ২০০ চেয়ারসহ ১১ টি টেন্ট থাকবে, ১১ টি স্থানে ওয়াশরুমের ব্যাবস্থা, ১০ টি স্থানে সহজে দৃশ্যমান ব্যানার ও নির্দেশিকা ও খাদ্যের অতিরিক্ত মূল্য আদায় করা বন্ধ করতে ১০ সদস্য বিশিষ্ট ভোক্তা অধিদপ্তরের একটি টিমগঠন করা হয়েছে।

পরিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় রাবি চিকিৎসাকেন্দ্রের সাহায্যে নেওয়া হয়েছে পদক্ষেপ। এ-বিষয়ে তিনি উল্লেখ করেন, ৫ থেকে ৭ তারিখ পর্যন্ত রাবি চিকিৎসাকেন্দ্র, কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশন ও সিটি কর্পোরেশন এর ৬ টি এম্বুলেন্সসহ ৩ টি মেডিকেল টিম কাজ করবে। এছাড়া ১২ টি সহায়তা বুথ থাকবে এবং প্রতিটি বুথেই সুপেয় পানির ব্যাবস্থা থাকবে।

ভর্তি পরিক্ষায় সকল ধরনের জালিয়াতি ও দুর্নীতি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সকল প্রকার জালিয়াতি এড়াতে শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারী, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাবাহিনীর কর্মকর্তা, প্রক্টর দপ্তর ও পুলিশের একটি স্মার্ট টিম এবং বেশ কয়েকটি গোয়েন্দা সংস্থা কাজ করবে।

পরিক্ষার্থী ও আগত অতিথিদের প্রতি বছরেই নানান হয়রানি স্বীকার হওয়ার তথ্য পাওয়া যায়। এই সংকট নিরসনে তিনি উল্লেখ করেন, বিভিন্ন দপ্তর ও প্রশাসনিক সংস্থার সাথে সমন্বয় করে শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারী ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাবাহিনীর কর্মকর্তাসহ সকলের সহযোগিতা কামনা করে আহ্বানপত্র প্রচার, মেস-মালিক সংগঠনের সাথে আলোচনা, ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণ, সহ ২৫ টি পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

প্রসঙ্গত, এ বছর বিশেষ কোটাসহ মোট আসন সংখ্যা ৪ হাজার ৪৩৮টি এবং কোটা বাদে আসন সংখ্যা ৩ হাজার ৯০৪টি। এই আসনের বিপরীতে মোট ১ লক্ষ ৮৫ হাজার ৬৮০টি চূড়ান্ত আবেদন জমা হয়েছে। A ইউনিটে ৭৪ হাজার ৭৮৫টি, B ইউনিটে ৩৪ হাজার ৫৪১টি এবং C ইউনিটে ৭৬ হাজার ৩৫৪টি চূড়ান্ত আবেদন সম্পন্ন হয়েছে। এবার একক আবেদনকারীর সংখ্যা ১ লক্ষ ৫৪ হাজার ৯৭৭ টি।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপডেট সময় ০৭:১৪:২১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১ মার্চ ২০২৪
৫৩ বার পড়া হয়েছে

ভর্তি পরিক্ষায় রাবি প্রশাসনের ২৫ পদক্ষেপ

আপডেট সময় ০৭:১৪:২১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১ মার্চ ২০২৪

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ২০২৩-২০২৪ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষের ভর্তি পরিক্ষা শুরু হচ্ছে আগামী মঙ্গলবার। পরিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের সুবিধার্থে প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিরাপত্তা, নির্দেশনা ও আবাসনসহ অন্যান্য বিষয়ে ২৫ টি পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। শুক্রবার (১ মার্চ) বিকাল সাড়ে চারটায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ সিনেট ভবনে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে এতথ্য জানান করে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক গোলাম সাব্বির সাত্তার।

যানবাহন চলাচলের ব্যাপারে উপাচার্য জানান, ভর্তি পরীক্ষা চলাকালীন (৫,৬ ও ৭ মার্চ) শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীগণ তাদের গাড়ি রাখতে সাবাস বাংলাদেশ-এর মাঠ ব্যাবহার করবেন। তবে তাদের ৭:৩০ মিনিটের মধ্যে গাড়ি পার্ক করতে হবে। এছাড়া, বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসগুলো শহরের নির্ধারিত স্থান থেকে সকাল ৭:১৫ মিনিটে ক্যাম্পাস অভিমুখে ছেড়ে আসবে। ৫ ও ৬ মার্চ ক্যাম্পাস থেকে বিকেল ৫:১৫ মিনিটে এবং ৭ মার্চ বেলা ২:৪৫ মিনিটে ক্যাম্পাস থেকে ছেড়ে যাবে। সকাল ৭:৩০ মিনিটের পর ক্যাম্পাসে কোনো প্রকার ভারী যানবাহন প্রবেশ করতে পারবে না। ব্যক্তিগত গাড়ি ও অন্যান্য যানবাহন কাজলা ও বিনোদপুর গেট দিয়ে প্রবেশ করে মেইন গেট দিয়ে বেরিয়ে যাবে।

শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের আবাসন সংকট নিরসনে ব্যাবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। এবিষয়ে তিনি বলেন, পরীক্ষার্থীদের বিভিন্ন আবাসিক হলে ও বিশ্ববিদ্যালয় জিমনেসিয়ামে সীমিত আকারে থাকার ব্যাবস্থা করা হয়েছে। নারী অভিভাবকদের অবস্থানের জন্য মিহিলা জিমনেসিয়াম ও পশ্চিম ৯০ নম্বর বাসায় সীমিত ব্যাবস্থা করা হয়েছে। পরীক্ষার্থীদের প্রবেশপত্রের ফটোকপি ও জাতীয় পরিচয়পত্রে ফটোকপির বিনিময়ে এ-সুবিধা গ্রহণ করা যাবে। এছাড়া ক্যাম্পাসের বিভিন্ন জায়গায় ২০০ চেয়ারসহ ১১ টি টেন্ট থাকবে, ১১ টি স্থানে ওয়াশরুমের ব্যাবস্থা, ১০ টি স্থানে সহজে দৃশ্যমান ব্যানার ও নির্দেশিকা ও খাদ্যের অতিরিক্ত মূল্য আদায় করা বন্ধ করতে ১০ সদস্য বিশিষ্ট ভোক্তা অধিদপ্তরের একটি টিমগঠন করা হয়েছে।

পরিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় রাবি চিকিৎসাকেন্দ্রের সাহায্যে নেওয়া হয়েছে পদক্ষেপ। এ-বিষয়ে তিনি উল্লেখ করেন, ৫ থেকে ৭ তারিখ পর্যন্ত রাবি চিকিৎসাকেন্দ্র, কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশন ও সিটি কর্পোরেশন এর ৬ টি এম্বুলেন্সসহ ৩ টি মেডিকেল টিম কাজ করবে। এছাড়া ১২ টি সহায়তা বুথ থাকবে এবং প্রতিটি বুথেই সুপেয় পানির ব্যাবস্থা থাকবে।

ভর্তি পরিক্ষায় সকল ধরনের জালিয়াতি ও দুর্নীতি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সকল প্রকার জালিয়াতি এড়াতে শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারী, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাবাহিনীর কর্মকর্তা, প্রক্টর দপ্তর ও পুলিশের একটি স্মার্ট টিম এবং বেশ কয়েকটি গোয়েন্দা সংস্থা কাজ করবে।

পরিক্ষার্থী ও আগত অতিথিদের প্রতি বছরেই নানান হয়রানি স্বীকার হওয়ার তথ্য পাওয়া যায়। এই সংকট নিরসনে তিনি উল্লেখ করেন, বিভিন্ন দপ্তর ও প্রশাসনিক সংস্থার সাথে সমন্বয় করে শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারী ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাবাহিনীর কর্মকর্তাসহ সকলের সহযোগিতা কামনা করে আহ্বানপত্র প্রচার, মেস-মালিক সংগঠনের সাথে আলোচনা, ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণ, সহ ২৫ টি পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

প্রসঙ্গত, এ বছর বিশেষ কোটাসহ মোট আসন সংখ্যা ৪ হাজার ৪৩৮টি এবং কোটা বাদে আসন সংখ্যা ৩ হাজার ৯০৪টি। এই আসনের বিপরীতে মোট ১ লক্ষ ৮৫ হাজার ৬৮০টি চূড়ান্ত আবেদন জমা হয়েছে। A ইউনিটে ৭৪ হাজার ৭৮৫টি, B ইউনিটে ৩৪ হাজার ৫৪১টি এবং C ইউনিটে ৭৬ হাজার ৩৫৪টি চূড়ান্ত আবেদন সম্পন্ন হয়েছে। এবার একক আবেদনকারীর সংখ্যা ১ লক্ষ ৫৪ হাজার ৯৭৭ টি।