ঢাকা ১১:৫০ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মাদক ব্যবসায়ীদের গাঁজা সরবরাহ করতেন শারীরিক অক্ষম প্রতিবন্ধী মনিরুল

ইয়াসিন আরাফাত, চাঁপাইনবাবগঞ্জ

চাঁপাইনবাবগঞ্জে মাদক ব্যবসায়ী ও সরবরাহকারী মনিরুল ইসলাম নিজে চলাফেরা করতে পারেন না। অন্যের সহযোগিতা নিয়ে চলাফেরা এবং গাঁজা ক্রয়-বিক্রয় করতে হয়। শারীরিক প্রতিবন্ধীতা সুযোগ নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে কুমিল্লা থেকে চাঁপাইনবাবগঞ্জে গাঁজা নিয়ে আসতো মনিরুল। এরপর এসব গাঁজা স্থানীয় মাদক ব্যবসায়ীদের মাঝে সরবরাহ করতো।

 

গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে মাদক ব্যবসায়ীদের মধ্যে একটি কলাবাগানের মধ্যে গাঁজা বন্টনের সময় অভিযান পরিচালনা করে প্রতিবন্ধী ও একাধিক মাদক মামলার আসামী মনিরুলসহ ৮ মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর মডেল থানা পুলিশ। বুধবার (৩১ জানুয়ারী) দুপুরে থানায় এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান, সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিন্টু রহমান।

 

আটককৃত মাদক ব্যবসায়ীরা হলেন- সদর উপজেলার বালিয়াডাঙ্গা গ্রামের সাদিকুল ইসলামের ছেলে শারীরিক প্রতিবন্ধী মো. মনিরুল ইসলাম (৩৫), একই গ্রামের মো. রমজান আলীর ছেলে মো. হিমেল আলী ওরফে শামসুল আলম (২৮), বালিয়াডাঙ্গা ইউনিয়নের পলশা গ্রামের মো. রুকুলের ছেলে মো. জুবায়ের হোসেন (২১), একই গ্রামের মৃত সাদেকুল ইসলামের ছেলে মো. মামুন ইসলাম (৩৫), বালিয়াডাঙ্গা বড়ঘাট গ্রামের তহরুল ইসলামের ছেলে মো. আহাদ আলী (২৭), রাধুনীডাঙ্গা গ্রামের আব্দল মালেকের ছেলে মো. আলামিন ইসলাম (২৬), জেলা শহরের আজাইপুর গ্রামের মৃত আব্দল গাফফারের ছেলে মো. আলিউল ইসলাম (৪৫), নাচোল উপজেলার পাহাড়পুর মমিনমোড়ের মো. লদু আলীর ছেলে মো. আলম (২২)।

 

ওসি মিন্টু রহমান জানান, মঙ্গলবার ভোর ৫টা ২০ মিনিটের দিকে সদর উপজেলার নয়াগোলা মোড়ের পাশের একটি কলাবাগান হতে তাদেরকে আটক করা হয়। তারা সবাই মাদক ব্যবসায়ী। আটককৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করে গোমস্তাপুর ও নাচোল থানায় অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে। প্রতিবন্ধীতার সুযোগ নিয়ে মানুষের সহমর্মিতা কাজে লাগিয়ে দীর্ঘদিন ধরে মনিরুল কুমিল্লা থেকে চাঁপাইনবাবগঞ্জে গাঁজা নিয়ে এসে মাদক ব্যবসায়ীদেরকে সরবরাহ করতেন এবং নিজেও বিক্রি করতেন।

 

তিনি আরও জানান, মাদক ব্যবসায়ীদের আটক করতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। উদ্ধারকৃত গাঁজার বাজারমূল্য প্রায় ৬ লাখ টাকা। আটককৃতদের বিরুদ্ধে ২০১৮ সালের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে এবং কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে বলে জানান ওসি মিন্টু রহমান।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপডেট সময় ০৭:৩২:২১ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩১ জানুয়ারী ২০২৪
১০৪ বার পড়া হয়েছে

মাদক ব্যবসায়ীদের গাঁজা সরবরাহ করতেন শারীরিক অক্ষম প্রতিবন্ধী মনিরুল

আপডেট সময় ০৭:৩২:২১ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩১ জানুয়ারী ২০২৪

চাঁপাইনবাবগঞ্জে মাদক ব্যবসায়ী ও সরবরাহকারী মনিরুল ইসলাম নিজে চলাফেরা করতে পারেন না। অন্যের সহযোগিতা নিয়ে চলাফেরা এবং গাঁজা ক্রয়-বিক্রয় করতে হয়। শারীরিক প্রতিবন্ধীতা সুযোগ নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে কুমিল্লা থেকে চাঁপাইনবাবগঞ্জে গাঁজা নিয়ে আসতো মনিরুল। এরপর এসব গাঁজা স্থানীয় মাদক ব্যবসায়ীদের মাঝে সরবরাহ করতো।

 

গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে মাদক ব্যবসায়ীদের মধ্যে একটি কলাবাগানের মধ্যে গাঁজা বন্টনের সময় অভিযান পরিচালনা করে প্রতিবন্ধী ও একাধিক মাদক মামলার আসামী মনিরুলসহ ৮ মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর মডেল থানা পুলিশ। বুধবার (৩১ জানুয়ারী) দুপুরে থানায় এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান, সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিন্টু রহমান।

 

আটককৃত মাদক ব্যবসায়ীরা হলেন- সদর উপজেলার বালিয়াডাঙ্গা গ্রামের সাদিকুল ইসলামের ছেলে শারীরিক প্রতিবন্ধী মো. মনিরুল ইসলাম (৩৫), একই গ্রামের মো. রমজান আলীর ছেলে মো. হিমেল আলী ওরফে শামসুল আলম (২৮), বালিয়াডাঙ্গা ইউনিয়নের পলশা গ্রামের মো. রুকুলের ছেলে মো. জুবায়ের হোসেন (২১), একই গ্রামের মৃত সাদেকুল ইসলামের ছেলে মো. মামুন ইসলাম (৩৫), বালিয়াডাঙ্গা বড়ঘাট গ্রামের তহরুল ইসলামের ছেলে মো. আহাদ আলী (২৭), রাধুনীডাঙ্গা গ্রামের আব্দল মালেকের ছেলে মো. আলামিন ইসলাম (২৬), জেলা শহরের আজাইপুর গ্রামের মৃত আব্দল গাফফারের ছেলে মো. আলিউল ইসলাম (৪৫), নাচোল উপজেলার পাহাড়পুর মমিনমোড়ের মো. লদু আলীর ছেলে মো. আলম (২২)।

 

ওসি মিন্টু রহমান জানান, মঙ্গলবার ভোর ৫টা ২০ মিনিটের দিকে সদর উপজেলার নয়াগোলা মোড়ের পাশের একটি কলাবাগান হতে তাদেরকে আটক করা হয়। তারা সবাই মাদক ব্যবসায়ী। আটককৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করে গোমস্তাপুর ও নাচোল থানায় অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে। প্রতিবন্ধীতার সুযোগ নিয়ে মানুষের সহমর্মিতা কাজে লাগিয়ে দীর্ঘদিন ধরে মনিরুল কুমিল্লা থেকে চাঁপাইনবাবগঞ্জে গাঁজা নিয়ে এসে মাদক ব্যবসায়ীদেরকে সরবরাহ করতেন এবং নিজেও বিক্রি করতেন।

 

তিনি আরও জানান, মাদক ব্যবসায়ীদের আটক করতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। উদ্ধারকৃত গাঁজার বাজারমূল্য প্রায় ৬ লাখ টাকা। আটককৃতদের বিরুদ্ধে ২০১৮ সালের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে এবং কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে বলে জানান ওসি মিন্টু রহমান।