ঢাকা ০৬:৫০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মানসিক ভারসাম্যহীন ব্যক্তিকে অর্থের বিনিময়ে নিয়োগের পায়তারা

মোঃ মামুন, ডিমলা, নীলফামারী

 

নীলফামারীর ডিমলা উপজেলার আকাশ কুড়ি উচ্চ বিদ্যালয়ের তিনটি নবসৃষ্ট পদের একটি পদে নিয়োগ বানিজ্যের অভিযোগ উঠেছে,অত্র বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও নাউতারা ইউপি চেয়ারম্যান আশিক ইমতিয়াজ মোরশেদ মনির বিরুদ্ধে।

বিশ্বস্ত সূত্র মতে লিখিত পরীক্ষা হওয়ার পূর্বেই নিরাপত্তা কর্মী পদে নিয়োগ পাচ্ছেন মানসিক ভারসাম্যহীন সবুজ ইসলাম (২৫)নামের এক ব্যক্তি।এ পদে মোটা অংকের অর্থ বানিজ্যের অভিযোগ করেছেন এলাকাবাসী।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে কয়েকজন এলাকাবাসী জানান, এই নিয়োগে স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আশিক ইমতিয়াজ মোরশেদ মনি ও প্রধান শিক্ষক মিলে যৌথভাবে নিরাপত্তা কর্মী পদে একাব্বর হোসেনের ছেলে সবুজ ইসলামকে টাকার বিনিময়ে নিয়োগ পরীক্ষা হওয়ার আগেই প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত করেছেন।

তারা আরো জানান সৃষ্ট এই পদে ৮ লক্ষ টাকা লেনদেন হয়েছে বলে আমরা জানতে পেরেছি। বিষয়টি নিয়ে এলাকায় বেশ গুঞ্জন ও কানাঘুষা চলছে। খলিল নামের একজন অভিযোগ করে বলেন, অর্থের বিনিময়ে একজন পাগলের চাকরি শিক্ষকসহ ছাত্র – ছাত্রী সারাক্ষণ আতঙ্কের মধ্যে থাকবে। নষ্ট হবে বিদ্যালয়ের সুশৃঙ্খল পরিবেশ। শুধুমাত্র অর্থের বিনিময়ে একজন পাগলকে নিয়োগ দিয়ে বিদ্যালয়ের পরিবেশ নষ্ট করবে এটা কাম্য হতে পারে না।

জানা যায়, গত ৫ অক্টোবর ২০২৩ খ্রি. একটি জাতীয় ও একাধিক স্থানীয় পত্রিকায় কর্মচারী নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়। প্রকাশিত নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিটিতে নিরাপত্তা কর্মী, অফিস সহায়ক ও আয়া পদে আবেদন করার জন্য বলা হয়েছে। উক্ত তিনটি পদে ২৮ জনপ্রার্থী আবেদন করেন। অফিস সূত্রে জানা যায়, নিরাপত্তা কর্মী পদে আলিনুর রহমান, কাজী পলাশ, জাহাঙ্গীর আলম, শাহিনুর ইসলাম, সিদ্দিকুর রহমান, আলিনুর রহমান, সবুজ ইসলাম, কালাম হোসেন, জয়ন্ত কুমার, রাসেল মিয়াসহ ১০ জন আবেদন করেন।

এদের মধ্যে সবুজ ইসলামের নিকট থেকে ৮ লাখ টাকা নিয়েছেন বলে এলাকাবাসী জানান। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক প্রার্থী বলেন, মেধা থেকে কি লাভ? টকার কাছে হেরে যাচ্ছি! তবে আমার বিশ্বাস যোগ্যতার ভিত্তিতেই নিয়োগ হবে। অত্র বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও নাউতারা ইউপি চেয়ারম্যান আশিক ইমতিয়াজ মোরশেদ মনি অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, পরিক্ষার মাধ্যমে যাচাই-বাচাই করে প্রার্থী নিয়োগ দেওয়া হবে। অবৈধ লেনদেনের প্রশ্নই উঠে না। শতভাগ যোগ্যতার ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে।

এছাড়া তিনি আরও বলেন, আমি একজন রাজনৈতিক ব্যক্তি ও নাউতারা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান। তাই এলাকার একটি কুচক্রী মহল আমার বিরুদ্ধে উঠেপড়ে লেগেছে যাতে আমার সম্মানহানি হয়। আকাশ কুড়ি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কামিনী কুমার রায় জানান, শতভাগ মেধা ও যোগ্যতার ভিত্তিতে কর্মচারী নিয়োগ দেওয়া হবে। অর্থ বাণিজ্য সম্পর্কে আমি কিছুই জানিনা। যারা বলেছেন অতিরিক্ত বলেছেন।

ডিমলা উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আব্দুল হালিম বলেন, এ বিষয়ে আমি জানি না, যারা টাকা নিয়েছে তাদের সাথে কথা বললে ভালো হয় বলে তিনি ফোন কেটে দেন।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপডেট সময় ০২:৪৩:৩০ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৮ ডিসেম্বর ২০২৩
২০০ বার পড়া হয়েছে

মানসিক ভারসাম্যহীন ব্যক্তিকে অর্থের বিনিময়ে নিয়োগের পায়তারা

আপডেট সময় ০২:৪৩:৩০ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৮ ডিসেম্বর ২০২৩

 

নীলফামারীর ডিমলা উপজেলার আকাশ কুড়ি উচ্চ বিদ্যালয়ের তিনটি নবসৃষ্ট পদের একটি পদে নিয়োগ বানিজ্যের অভিযোগ উঠেছে,অত্র বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও নাউতারা ইউপি চেয়ারম্যান আশিক ইমতিয়াজ মোরশেদ মনির বিরুদ্ধে।

বিশ্বস্ত সূত্র মতে লিখিত পরীক্ষা হওয়ার পূর্বেই নিরাপত্তা কর্মী পদে নিয়োগ পাচ্ছেন মানসিক ভারসাম্যহীন সবুজ ইসলাম (২৫)নামের এক ব্যক্তি।এ পদে মোটা অংকের অর্থ বানিজ্যের অভিযোগ করেছেন এলাকাবাসী।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে কয়েকজন এলাকাবাসী জানান, এই নিয়োগে স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আশিক ইমতিয়াজ মোরশেদ মনি ও প্রধান শিক্ষক মিলে যৌথভাবে নিরাপত্তা কর্মী পদে একাব্বর হোসেনের ছেলে সবুজ ইসলামকে টাকার বিনিময়ে নিয়োগ পরীক্ষা হওয়ার আগেই প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত করেছেন।

তারা আরো জানান সৃষ্ট এই পদে ৮ লক্ষ টাকা লেনদেন হয়েছে বলে আমরা জানতে পেরেছি। বিষয়টি নিয়ে এলাকায় বেশ গুঞ্জন ও কানাঘুষা চলছে। খলিল নামের একজন অভিযোগ করে বলেন, অর্থের বিনিময়ে একজন পাগলের চাকরি শিক্ষকসহ ছাত্র – ছাত্রী সারাক্ষণ আতঙ্কের মধ্যে থাকবে। নষ্ট হবে বিদ্যালয়ের সুশৃঙ্খল পরিবেশ। শুধুমাত্র অর্থের বিনিময়ে একজন পাগলকে নিয়োগ দিয়ে বিদ্যালয়ের পরিবেশ নষ্ট করবে এটা কাম্য হতে পারে না।

জানা যায়, গত ৫ অক্টোবর ২০২৩ খ্রি. একটি জাতীয় ও একাধিক স্থানীয় পত্রিকায় কর্মচারী নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়। প্রকাশিত নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিটিতে নিরাপত্তা কর্মী, অফিস সহায়ক ও আয়া পদে আবেদন করার জন্য বলা হয়েছে। উক্ত তিনটি পদে ২৮ জনপ্রার্থী আবেদন করেন। অফিস সূত্রে জানা যায়, নিরাপত্তা কর্মী পদে আলিনুর রহমান, কাজী পলাশ, জাহাঙ্গীর আলম, শাহিনুর ইসলাম, সিদ্দিকুর রহমান, আলিনুর রহমান, সবুজ ইসলাম, কালাম হোসেন, জয়ন্ত কুমার, রাসেল মিয়াসহ ১০ জন আবেদন করেন।

এদের মধ্যে সবুজ ইসলামের নিকট থেকে ৮ লাখ টাকা নিয়েছেন বলে এলাকাবাসী জানান। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক প্রার্থী বলেন, মেধা থেকে কি লাভ? টকার কাছে হেরে যাচ্ছি! তবে আমার বিশ্বাস যোগ্যতার ভিত্তিতেই নিয়োগ হবে। অত্র বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও নাউতারা ইউপি চেয়ারম্যান আশিক ইমতিয়াজ মোরশেদ মনি অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, পরিক্ষার মাধ্যমে যাচাই-বাচাই করে প্রার্থী নিয়োগ দেওয়া হবে। অবৈধ লেনদেনের প্রশ্নই উঠে না। শতভাগ যোগ্যতার ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে।

এছাড়া তিনি আরও বলেন, আমি একজন রাজনৈতিক ব্যক্তি ও নাউতারা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান। তাই এলাকার একটি কুচক্রী মহল আমার বিরুদ্ধে উঠেপড়ে লেগেছে যাতে আমার সম্মানহানি হয়। আকাশ কুড়ি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কামিনী কুমার রায় জানান, শতভাগ মেধা ও যোগ্যতার ভিত্তিতে কর্মচারী নিয়োগ দেওয়া হবে। অর্থ বাণিজ্য সম্পর্কে আমি কিছুই জানিনা। যারা বলেছেন অতিরিক্ত বলেছেন।

ডিমলা উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আব্দুল হালিম বলেন, এ বিষয়ে আমি জানি না, যারা টাকা নিয়েছে তাদের সাথে কথা বললে ভালো হয় বলে তিনি ফোন কেটে দেন।