ঢাকা ০৬:১৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মির্জাগঞ্জে জিয়াউর রহমানের ৮৮তম জন্মবার্ষিকী পালিত

মোঃ শাহিন হাওলাদার, মির্জাগঞ্জ

 

 

পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা ও সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৮৮ তম জন্মবার্ষিকী পালিত হয়েছে।

এ উপলক্ষে শনিবার ( ২০ জানুয়ারি) বেলা ১১ টায় উপজেলা সদর সুবিদখালী বাজারে অবস্থিত আশ্রাফ পার্টি সেন্টারে আলোচনা সভা ও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়।

উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি আলহাজ্ব মো. আশ্রাফ আলী হাওলাদারের সভাপতিত্বে ও বর্তমান সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর হোসাইন ফরাজির সঞ্চালনায় এতে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি আনোয়ার হোসেন সিকদার, বিএনপি নেতা নুর হোসেন মৃধা, মাধবখালী ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি শাহীন চৌধুরী পাশা, উপজেলা যুবদলের আহবায়ক গাজী রাশেদ সামস্, সদস্য সচিব আতাউর রহমান প্রমুখ। এছাড়াও উপজেলা বিএনপি এবং অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

আলোচনা সভায় আশ্রাফ আলী হাওলাদার বলেন, ‘শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান বাংলাদেশকে সুখি সমৃদ্ধ রাষ্ট্র তৈরি ও তার রূপরেখা প্রণয়ন করেছিলেন। তার ১৯ দফা কর্মসূচি সেই স্বপ্নেরই অংশ। তাবেদারের দাসত্ব থেকে বাংলাদেশকে মুক্ত করার উদ্যোগ নেওয়ার মুহুর্তেই ষড়যন্ত্রকারীরা জিয়াউর রহমানকে নির্মমভাবে শহীদ করেছিলেন। তার এই হত্যার পেছনে ছিল গভীর ষড়যন্ত্র। শেখ হাসিনা একদলীয় পাতানো নির্বাচন করার জন্য বিএনপির নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে  মিথ্যা গায়েবী মামলা দিয়ে তাদেরকে বাড়ি ঘর ছাড়া করে অবৈধ পথে নির্বাচন সম্পন্ন করেছেন। বিএনপি ও সমমনা দলের আহ্বানে সাড়া দিয়ে এদেশের জনগণে ভোট দিতে আসেনি। ওই ডামী নির্বাচন জনগণ সম্পূর্ণরূপে বর্জন করেছেন।

আলোচনা শেষে শহীদ জিয়াউর রহমানের রুহের মাগফিরাত ও বেগম খালেদা জিয়ার সুস্থতা কামনা করে মোনাজাত পরিচালনা করেন, উপজেলা ওলামা দলের সভাপতি মাওলানা আবুল কালাম আজাদ।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপডেট সময় ০৩:১৪:০৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ জানুয়ারী ২০২৪
৫৭ বার পড়া হয়েছে

মির্জাগঞ্জে জিয়াউর রহমানের ৮৮তম জন্মবার্ষিকী পালিত

আপডেট সময় ০৩:১৪:০৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ জানুয়ারী ২০২৪

 

 

পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা ও সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৮৮ তম জন্মবার্ষিকী পালিত হয়েছে।

এ উপলক্ষে শনিবার ( ২০ জানুয়ারি) বেলা ১১ টায় উপজেলা সদর সুবিদখালী বাজারে অবস্থিত আশ্রাফ পার্টি সেন্টারে আলোচনা সভা ও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়।

উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি আলহাজ্ব মো. আশ্রাফ আলী হাওলাদারের সভাপতিত্বে ও বর্তমান সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর হোসাইন ফরাজির সঞ্চালনায় এতে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি আনোয়ার হোসেন সিকদার, বিএনপি নেতা নুর হোসেন মৃধা, মাধবখালী ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি শাহীন চৌধুরী পাশা, উপজেলা যুবদলের আহবায়ক গাজী রাশেদ সামস্, সদস্য সচিব আতাউর রহমান প্রমুখ। এছাড়াও উপজেলা বিএনপি এবং অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

আলোচনা সভায় আশ্রাফ আলী হাওলাদার বলেন, ‘শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান বাংলাদেশকে সুখি সমৃদ্ধ রাষ্ট্র তৈরি ও তার রূপরেখা প্রণয়ন করেছিলেন। তার ১৯ দফা কর্মসূচি সেই স্বপ্নেরই অংশ। তাবেদারের দাসত্ব থেকে বাংলাদেশকে মুক্ত করার উদ্যোগ নেওয়ার মুহুর্তেই ষড়যন্ত্রকারীরা জিয়াউর রহমানকে নির্মমভাবে শহীদ করেছিলেন। তার এই হত্যার পেছনে ছিল গভীর ষড়যন্ত্র। শেখ হাসিনা একদলীয় পাতানো নির্বাচন করার জন্য বিএনপির নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে  মিথ্যা গায়েবী মামলা দিয়ে তাদেরকে বাড়ি ঘর ছাড়া করে অবৈধ পথে নির্বাচন সম্পন্ন করেছেন। বিএনপি ও সমমনা দলের আহ্বানে সাড়া দিয়ে এদেশের জনগণে ভোট দিতে আসেনি। ওই ডামী নির্বাচন জনগণ সম্পূর্ণরূপে বর্জন করেছেন।

আলোচনা শেষে শহীদ জিয়াউর রহমানের রুহের মাগফিরাত ও বেগম খালেদা জিয়ার সুস্থতা কামনা করে মোনাজাত পরিচালনা করেন, উপজেলা ওলামা দলের সভাপতি মাওলানা আবুল কালাম আজাদ।