ঢাকা ০৫:৫৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মোটরসাইকেল বিস্ফোরণে বাস পুরে ছাই

নিজস্ব সংবাদ

পাবনা ঈশ্বরদীতে বাস ও মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়েছে। সংঘর্ষের মোটরসাইকেলটি বাসের নিচে চলে যায়। পরে মোটরসাইকেলের তেলের ট্যাংক বিস্ফোরণে ৪০ সিটের বাসটি সম্পূর্ণ পুড়ে গেছে।

সোমবার (২৫ ডিসেম্বর) বিকেল ৩টার দিকে উপজেলার সাঁড়া ইউনিয়নের ঈশ্বরদী-বাঘা আঞ্চলিক মহাসড়কের পুরাতন ঈশ্বরদী গ্রামে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় গুরুতর আহত হয়েছেন মোটরসাইকেল চালক নাহিদ হাসান। তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। নাহিদ উপজেলার সাঁড়া ইউনিয়নের আরামবাড়িয়া গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে।

স্থানীয় বাসিন্দা মিজানুর রহমান  জানান, বাঘা থেকে ঈশ্বরদীগামী সুপার সনি পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাস পুরাতন ঈশ্বরদী এলাকা অতিক্রম করার সময় বিপরীত দিক থেকে আসা একটি দ্রুতগামী মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে চালক ছিটকে সড়কে পড়ে গেলে মোটরসাইকেলটি বাসের নিচে চলে যায়। বাস প্রায় ১০০ গজ টেনে নিয়ে যাওয়ার সময় মোটরসাইকেলের তেলের ট্যাংক বিস্ফোরণ ঘটে। এতে বাসের নিচের অংশে আগুন ধরে গেলে বাসের চালক ও যাত্রীরা তাড়াহুড়ো করে নামার সময় বেশ কয়েকজন যাএী আহত হন।

সুপার সনি পরিবহনের ম্যানেজার শাহিন আহমেদ বলেন, বাসটি পুরোপুরি পুড়ে গেছে। তবে যাত্রীদের তেমন কিছু হয়নি। সবাই নেমে যেতে পেরেছেন। বাসটি এখন পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

ঈশ্বরদী ফায়ার সার্ভিসের টিম লিডার মোখলেছুর রহমান জাগো নিউজকে বলেন, ঘটনাস্থলে এসে দেখতে পাই বাসটি আগুনে পুড়ছে। ৪০ সিটের বাসটির পুরোটাই পুড়ে গেছে। তবে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপডেট সময় ০১:১৭:০৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৫ ডিসেম্বর ২০২৩
৪৮ বার পড়া হয়েছে

মোটরসাইকেল বিস্ফোরণে বাস পুরে ছাই

আপডেট সময় ০১:১৭:০৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৫ ডিসেম্বর ২০২৩

পাবনা ঈশ্বরদীতে বাস ও মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়েছে। সংঘর্ষের মোটরসাইকেলটি বাসের নিচে চলে যায়। পরে মোটরসাইকেলের তেলের ট্যাংক বিস্ফোরণে ৪০ সিটের বাসটি সম্পূর্ণ পুড়ে গেছে।

সোমবার (২৫ ডিসেম্বর) বিকেল ৩টার দিকে উপজেলার সাঁড়া ইউনিয়নের ঈশ্বরদী-বাঘা আঞ্চলিক মহাসড়কের পুরাতন ঈশ্বরদী গ্রামে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় গুরুতর আহত হয়েছেন মোটরসাইকেল চালক নাহিদ হাসান। তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। নাহিদ উপজেলার সাঁড়া ইউনিয়নের আরামবাড়িয়া গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে।

স্থানীয় বাসিন্দা মিজানুর রহমান  জানান, বাঘা থেকে ঈশ্বরদীগামী সুপার সনি পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাস পুরাতন ঈশ্বরদী এলাকা অতিক্রম করার সময় বিপরীত দিক থেকে আসা একটি দ্রুতগামী মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে চালক ছিটকে সড়কে পড়ে গেলে মোটরসাইকেলটি বাসের নিচে চলে যায়। বাস প্রায় ১০০ গজ টেনে নিয়ে যাওয়ার সময় মোটরসাইকেলের তেলের ট্যাংক বিস্ফোরণ ঘটে। এতে বাসের নিচের অংশে আগুন ধরে গেলে বাসের চালক ও যাত্রীরা তাড়াহুড়ো করে নামার সময় বেশ কয়েকজন যাএী আহত হন।

সুপার সনি পরিবহনের ম্যানেজার শাহিন আহমেদ বলেন, বাসটি পুরোপুরি পুড়ে গেছে। তবে যাত্রীদের তেমন কিছু হয়নি। সবাই নেমে যেতে পেরেছেন। বাসটি এখন পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

ঈশ্বরদী ফায়ার সার্ভিসের টিম লিডার মোখলেছুর রহমান জাগো নিউজকে বলেন, ঘটনাস্থলে এসে দেখতে পাই বাসটি আগুনে পুড়ছে। ৪০ সিটের বাসটির পুরোটাই পুড়ে গেছে। তবে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে।