ঢাকা ০৬:৩১ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রাজশাহী ৪: স্বতন্ত্র প্রার্থীর আচারণ বিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ

মোঃ সাকিবুল ইসলাম স্বাধীন, রাজশাহী

রাজশাহী-৪ ( বাগমারা) আসনে আ’লীগ মনোনীত নৌকা প্রার্থী অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদ বলেন, বাগমারা নৌকার জোয়ারে ভাটা পড়েছে ভাইরাল প্রার্থীসহ অন্যদের চর অঞ্চলে। অচিরেই ভাটায় অদৃশ্য হয়ে যাবে কেঁচি। নির্বাচনী আচারণ বিধি লঙ্ঘন করে জমায়েতের মাধ্যমে অর্থ বিলির অভিযোগ হয়েছে স্বতন্ত্র প্রার্থী এনামুলের বিরুদ্ধে।

অনেক আগেই বাগমারায় কেঁচির মালিক সম্মান হারিয়ে জনশূন্য হয়ে পড়েছে। জনপ্রিয়তা হারিয়ে ষড়যন্ত্র ও সংহিতা’য় লিপ্ত হয়েছেন। লাভ নাই এসব করে। বাগমারাবাসী কি চায় গত ৩ ই জানুয়ারী নৌকার জনসভায় জবাব দিয়েছে। আপনারা তো জনসভা ডেকে জনশূন্যতা দেখে আবার জনসভা বাতিল করেন। এবার বুঝেন আপনাদের অবস্থা কি? নির্বাচনে হারছেন নিশ্চিত, তবে নির্বাচনে কোনো প্রকার অপতৎপরতা বা ষড়যন্ত্রে কারো যদি ক্ষতি হয় এর পরিনতি ভালো হবে না। যেসব সন্ত্রাসীদের নিয়ে এসব পরিকল্পনা করছেন তা আমরা জানি। প্রশাসন এর কঠিন জবাব দিবে। মাঠে প্রশাসন শক্ত অবস্থানে আছে, কোনো প্রকার অপতৎপরতা চালাতে পারবেন না। শুক্রবার (৫ জানুয়ারী) একান্ত সাক্ষাৎকার কালে এসব কথা বলেন তিনি।

বাগমারা উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতারা বলছেন, প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার স্মার্ট বাংলাদেশ তৈরিতে অংশ নিতে এবার সবাই নৌকায় উঠেছে। বাগমারা’র ১৬ টি ইউনিয়নে এবার নৌকার জয়জয়কার। সাধারণ মানুষজন এবার নৌকার পক্ষে স্বতঃস্ফূর্তভাবে সাড়া দিয়েছে। এছাড়াও বাগমারাবাসী একজন সৎ যোগ্য ব্যক্তিত্ব সম্পুর্ণ ব্যপক জনপ্রিয় নৌকার মাঝি পেয়েছেন। যার কোনো স্ক্যান্ডাল নেই। যার সততায় সচ্চরিত্রে তাহেরপুরবাসী ইতোমধ্যে উপকৃত হয়েছে। এবার পুরো বাগমারাবাসী উপকৃত হবেন।

১৬টি ইউনিয়নে সরেজমিনে গিয়ে সাধারণ ভোটারদের মধ্যে ব্যপক উৎসব, উদ্দিপনা’র মধ্যে এবারের নির্বাচনে ভোট দেওয়ার কথা শোনা যাচ্ছে। তবে কিছুটা ভীতি সঞ্চার হয়েছে তাদের মধ্যে। কিছু বহিরাগত চিহ্নিত সন্ত্রাসী বাগমারা স্বতন্ত্র প্রার্থী পক্ষে মাঠে নেমেছে। তারা বড় কোনো হামলা করতে পারে বলে মন্তব্য করছেন সাধারণ ভোটাররা এবারে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে সর্তক থাকারও আহ্বান করেছেন তারা। নির্বাচনে এককভাবে নৌকার জনপ্রিয় এগিয়ে রাখছেন তাঁরা। ১৬ ইউনিয়নে করা একটি সামাজিক সংগঠনের জরিপে নৌকাকে এগিয়ে রাখছে বলে জানিয়ে ওই সংগঠনটি।

অনেকেই বলছেন নৌকার সঙ্গে কেঁচি প্রতীকে লড়াই হবে তবে সেটা প্রতিদ্বন্দ্বীতা মুলক হবে না। সিংহভাগ মানুষ নৌকার পক্ষেই রয়েছেন বলে ওই জরিপ রিপোর্টে বলা হয়েছে।

অভিযোগের বিষয়ে বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের এডভোকেট জালাল উদ্দীন বলেন, আমি গত ৫ জানুয়ারা স্বতন্ত্র প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হকের বিরুদ্ধে আচারণ বিধি লঙ্ঘন ও অর্থ বিলির অপরাধে বাগমারা সহকারী রির্টানিং কর্মকর্তা বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছি। বাগমারায় আ’লীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থী অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদ’দের পক্ষে উক্ত অভিযোগ দিয়েছি।

অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, বাগমারা ১০ নং মাড়িয়া ইউনিয়নের শিকদারীতে অবস্থিত সালেহা ইমারত কোল্ড স্টোরেজে নির্বাচনী আচারণ বিধি লঙ্ঘন করে মিটিং ও অর্থ বিলি করছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী কাঁচি প্রতীকের ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক। অভিযোগে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণের আহ্বান জানানো হয়।

অভিযোগের বিষয়ে নিশ্চিত করে বাগমারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উজ্জ্বল হোসেন বলেন, অভিযোগ পেয়ে তৎক্ষনাৎ ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। প্রমাণ পেলে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপডেট সময় ০১:১৬:৪৩ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৫ জানুয়ারী ২০২৪
৩৫ বার পড়া হয়েছে

রাজশাহী ৪: স্বতন্ত্র প্রার্থীর আচারণ বিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ

আপডেট সময় ০১:১৬:৪৩ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৫ জানুয়ারী ২০২৪

রাজশাহী-৪ ( বাগমারা) আসনে আ’লীগ মনোনীত নৌকা প্রার্থী অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদ বলেন, বাগমারা নৌকার জোয়ারে ভাটা পড়েছে ভাইরাল প্রার্থীসহ অন্যদের চর অঞ্চলে। অচিরেই ভাটায় অদৃশ্য হয়ে যাবে কেঁচি। নির্বাচনী আচারণ বিধি লঙ্ঘন করে জমায়েতের মাধ্যমে অর্থ বিলির অভিযোগ হয়েছে স্বতন্ত্র প্রার্থী এনামুলের বিরুদ্ধে।

অনেক আগেই বাগমারায় কেঁচির মালিক সম্মান হারিয়ে জনশূন্য হয়ে পড়েছে। জনপ্রিয়তা হারিয়ে ষড়যন্ত্র ও সংহিতা’য় লিপ্ত হয়েছেন। লাভ নাই এসব করে। বাগমারাবাসী কি চায় গত ৩ ই জানুয়ারী নৌকার জনসভায় জবাব দিয়েছে। আপনারা তো জনসভা ডেকে জনশূন্যতা দেখে আবার জনসভা বাতিল করেন। এবার বুঝেন আপনাদের অবস্থা কি? নির্বাচনে হারছেন নিশ্চিত, তবে নির্বাচনে কোনো প্রকার অপতৎপরতা বা ষড়যন্ত্রে কারো যদি ক্ষতি হয় এর পরিনতি ভালো হবে না। যেসব সন্ত্রাসীদের নিয়ে এসব পরিকল্পনা করছেন তা আমরা জানি। প্রশাসন এর কঠিন জবাব দিবে। মাঠে প্রশাসন শক্ত অবস্থানে আছে, কোনো প্রকার অপতৎপরতা চালাতে পারবেন না। শুক্রবার (৫ জানুয়ারী) একান্ত সাক্ষাৎকার কালে এসব কথা বলেন তিনি।

বাগমারা উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতারা বলছেন, প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার স্মার্ট বাংলাদেশ তৈরিতে অংশ নিতে এবার সবাই নৌকায় উঠেছে। বাগমারা’র ১৬ টি ইউনিয়নে এবার নৌকার জয়জয়কার। সাধারণ মানুষজন এবার নৌকার পক্ষে স্বতঃস্ফূর্তভাবে সাড়া দিয়েছে। এছাড়াও বাগমারাবাসী একজন সৎ যোগ্য ব্যক্তিত্ব সম্পুর্ণ ব্যপক জনপ্রিয় নৌকার মাঝি পেয়েছেন। যার কোনো স্ক্যান্ডাল নেই। যার সততায় সচ্চরিত্রে তাহেরপুরবাসী ইতোমধ্যে উপকৃত হয়েছে। এবার পুরো বাগমারাবাসী উপকৃত হবেন।

১৬টি ইউনিয়নে সরেজমিনে গিয়ে সাধারণ ভোটারদের মধ্যে ব্যপক উৎসব, উদ্দিপনা’র মধ্যে এবারের নির্বাচনে ভোট দেওয়ার কথা শোনা যাচ্ছে। তবে কিছুটা ভীতি সঞ্চার হয়েছে তাদের মধ্যে। কিছু বহিরাগত চিহ্নিত সন্ত্রাসী বাগমারা স্বতন্ত্র প্রার্থী পক্ষে মাঠে নেমেছে। তারা বড় কোনো হামলা করতে পারে বলে মন্তব্য করছেন সাধারণ ভোটাররা এবারে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে সর্তক থাকারও আহ্বান করেছেন তারা। নির্বাচনে এককভাবে নৌকার জনপ্রিয় এগিয়ে রাখছেন তাঁরা। ১৬ ইউনিয়নে করা একটি সামাজিক সংগঠনের জরিপে নৌকাকে এগিয়ে রাখছে বলে জানিয়ে ওই সংগঠনটি।

অনেকেই বলছেন নৌকার সঙ্গে কেঁচি প্রতীকে লড়াই হবে তবে সেটা প্রতিদ্বন্দ্বীতা মুলক হবে না। সিংহভাগ মানুষ নৌকার পক্ষেই রয়েছেন বলে ওই জরিপ রিপোর্টে বলা হয়েছে।

অভিযোগের বিষয়ে বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের এডভোকেট জালাল উদ্দীন বলেন, আমি গত ৫ জানুয়ারা স্বতন্ত্র প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হকের বিরুদ্ধে আচারণ বিধি লঙ্ঘন ও অর্থ বিলির অপরাধে বাগমারা সহকারী রির্টানিং কর্মকর্তা বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছি। বাগমারায় আ’লীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থী অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদ’দের পক্ষে উক্ত অভিযোগ দিয়েছি।

অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, বাগমারা ১০ নং মাড়িয়া ইউনিয়নের শিকদারীতে অবস্থিত সালেহা ইমারত কোল্ড স্টোরেজে নির্বাচনী আচারণ বিধি লঙ্ঘন করে মিটিং ও অর্থ বিলি করছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী কাঁচি প্রতীকের ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক। অভিযোগে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণের আহ্বান জানানো হয়।

অভিযোগের বিষয়ে নিশ্চিত করে বাগমারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উজ্জ্বল হোসেন বলেন, অভিযোগ পেয়ে তৎক্ষনাৎ ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। প্রমাণ পেলে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।