ঢাকা ১১:২৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

লাগামহীন দাম বৃদ্ধি পেয়েছে বেগুনের: ক্রেতাদের ক্ষোভ

নিজস্ব সংবাদ

চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আর একদিন পরেই শুরু হবে রমজান মাস। কিন্তু রমজান আসার আগেই ইফতার সামগ্রীর অন্যতম অনুষঙ্গ বেগুন বাড়তি দামে বিক্রি হচ্ছে। এতে বিপাকে পড়েছেন সাধারণ ক্রেতারা।

 

রোববার (১০ মার্চ) রাজধানির কিছু স্থানীয় বাজার ঘুরে দেখা গেছে, কেজিপ্রতি বেগুন বিক্রি হচ্ছে ৭০ থেকে ৮০ টাকায়। যা গত সপ্তাহেও বিক্রি হয়েছে ৫০ থেকে ৬০ টাকা কেজি।

এছাড়া কাঁচামরিচ ৮০ থেকে ১০০ টাকা, আলু কেজি ৩০ টাকা ও হালিপ্রতি লেবু বিক্রি হচ্ছে ২০ থেকে ৩০ টাকায় যা গত সপ্তাহের মতোই স্থিতিশীল।

রমজানের আগে বেগুনের দাম বেড়ে যাওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করছেন ক্রেতারা। বাজার করতে আসােএক ক্রেতা বলেন, রমজান উপলক্ষ্যে অন্যান্য দেশে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম কমানো হয়, আর আমাদের দেশে যেন তার উল্টোটা। কিছুদিন আগে যে বেগুন কিনলাম ৫০ টাকায়, সেটা আজ ৮০ টাকায় কিনতে হচ্ছে।

আরেক ক্রেতা  বলেন, রোজা এলে বেগুনের চাহিদা বাড়ে, আর সেটারই ফায়দা নেয় ব্যবসায়ীরা। সাধারণ মানুষের কথা চিন্তা করার কেউ নেই।

অন্যদিকে মূল্যবৃদ্ধির কারণ হিসেবে ব্যবসায়ীরা দায়ী করছেন পাইকারি বাজারকে। তারা বলছেন, আড়তে যেখান থেকে পাইকারি বিক্রি হয় সেখানেই সবকিছু বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে। আর আমাদের তাদের কাছ থেকে বেশি দামে কেনার কারণে খুচরাপর্যায়ে বেশি দামে বিক্রি করতে হচ্ছে। আমরা তো লোকসান দিয়ে বিক্রি করতে পারব না।

এক ব্যবসায়ী বলেন, পাইকারিতে হঠাৎ করে দাম বেড়ে গেছে, এখানে আমরা কি করব। যে দামে কিনতে হয়, সামান্য লাভ রেখেই তারপর বিক্রি করতে হয়।

আরেক ব্যবসায়ী মোহাম্মদ মোবারক বলেন, আমরা যেখান থেকে পণ্য কিনে আনি, সেখানকার দাম অনুযায়ী খুচরায় বিক্রি করে থাকি। ফলে পাইকারি বাজারে দাম বাড়ালে আমাদেরও বেশি দামেই রেট দিতে হয়। রোজা আসলে বিভিন্ন আইটেমের দাম বেড়ে যায়, কিন্তু এখানে আমাদের কিছু করার নেই।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপডেট সময় ০৫:০৫:৩৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ১১ মার্চ ২০২৪
৬৬ বার পড়া হয়েছে

লাগামহীন দাম বৃদ্ধি পেয়েছে বেগুনের: ক্রেতাদের ক্ষোভ

আপডেট সময় ০৫:০৫:৩৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ১১ মার্চ ২০২৪

চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আর একদিন পরেই শুরু হবে রমজান মাস। কিন্তু রমজান আসার আগেই ইফতার সামগ্রীর অন্যতম অনুষঙ্গ বেগুন বাড়তি দামে বিক্রি হচ্ছে। এতে বিপাকে পড়েছেন সাধারণ ক্রেতারা।

 

রোববার (১০ মার্চ) রাজধানির কিছু স্থানীয় বাজার ঘুরে দেখা গেছে, কেজিপ্রতি বেগুন বিক্রি হচ্ছে ৭০ থেকে ৮০ টাকায়। যা গত সপ্তাহেও বিক্রি হয়েছে ৫০ থেকে ৬০ টাকা কেজি।

এছাড়া কাঁচামরিচ ৮০ থেকে ১০০ টাকা, আলু কেজি ৩০ টাকা ও হালিপ্রতি লেবু বিক্রি হচ্ছে ২০ থেকে ৩০ টাকায় যা গত সপ্তাহের মতোই স্থিতিশীল।

রমজানের আগে বেগুনের দাম বেড়ে যাওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করছেন ক্রেতারা। বাজার করতে আসােএক ক্রেতা বলেন, রমজান উপলক্ষ্যে অন্যান্য দেশে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম কমানো হয়, আর আমাদের দেশে যেন তার উল্টোটা। কিছুদিন আগে যে বেগুন কিনলাম ৫০ টাকায়, সেটা আজ ৮০ টাকায় কিনতে হচ্ছে।

আরেক ক্রেতা  বলেন, রোজা এলে বেগুনের চাহিদা বাড়ে, আর সেটারই ফায়দা নেয় ব্যবসায়ীরা। সাধারণ মানুষের কথা চিন্তা করার কেউ নেই।

অন্যদিকে মূল্যবৃদ্ধির কারণ হিসেবে ব্যবসায়ীরা দায়ী করছেন পাইকারি বাজারকে। তারা বলছেন, আড়তে যেখান থেকে পাইকারি বিক্রি হয় সেখানেই সবকিছু বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে। আর আমাদের তাদের কাছ থেকে বেশি দামে কেনার কারণে খুচরাপর্যায়ে বেশি দামে বিক্রি করতে হচ্ছে। আমরা তো লোকসান দিয়ে বিক্রি করতে পারব না।

এক ব্যবসায়ী বলেন, পাইকারিতে হঠাৎ করে দাম বেড়ে গেছে, এখানে আমরা কি করব। যে দামে কিনতে হয়, সামান্য লাভ রেখেই তারপর বিক্রি করতে হয়।

আরেক ব্যবসায়ী মোহাম্মদ মোবারক বলেন, আমরা যেখান থেকে পণ্য কিনে আনি, সেখানকার দাম অনুযায়ী খুচরায় বিক্রি করে থাকি। ফলে পাইকারি বাজারে দাম বাড়ালে আমাদেরও বেশি দামেই রেট দিতে হয়। রোজা আসলে বিভিন্ন আইটেমের দাম বেড়ে যায়, কিন্তু এখানে আমাদের কিছু করার নেই।