ঢাকা ১০:৫১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সরকারের ওপর আস্থা রাখার আহবান বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রীর

নিজস্ব সংবাদ

সিন্ডিকেট ইস্যুতে বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটু বলেছেন, আমাদের ওপর আস্থা রাখেন। আমরা সর্বচ্চ চেষ্টা করব আমাদের অবস্থান থেকে । (৮ ফেব্রুয়ারি) সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি।

সিন্ডিকেটের কোন ধর্ম নেই, তারা প্রতিবার একই পরিস্থিতি তৈরি করে– এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনি বলেন, আমাদের ওপর আস্থা রাখেন। ভায়োলেট হলে জবাব দেব। দায়িত্ব নিয়ে বলছি, এখন থেকে যা হবে আমাদের এখান থেকে প্রচেষ্টা কম থাকবে না।

পণ্য সরবরাহে সিন্ডিকেট  তৈরি করলে তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনে জরুরি আইনে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী।

সরকার দাম বেধে দিলেও সেটি বাজারে প্রতিফলিত হয় না– এ বিষয়ে জানতে চাইলে আহসানুল ইসলাম টিটু বলেন, আমাদের একাধিক আইন আছে বাজার মনিটরিং করার। প্রথমে ভোক্তা অধিদপ্তরের মাধ্যমে আমাদের বাণিজ্য মন্ত্রণালয় বাজার মনিটর করবে। কৃষি বিপণন আইন আছে, সেটি দিয়েও আমরা মনিটরিং করব।

তিনি বলেন, আমাদের ১৯৫৬ এর অত্যাবশকীয় পণ্য আইন আছে, সে আইনে করব। প্রয়োজনে জরুরি আইনে যারা নির্দেশনা অমান্য করে পণ্য সরবরাহে প্রতিবন্ধকতা তৈরি করবে তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

পুলিশিং করে বাজার ব্যবস্থাপনা করা যায় না উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমরা আজ যেটা করলাম (শুল্ক কমানো), সেটা বাজার ব্যবস্থাপনার একটা অংশ। যাতে উৎপাদক ও আমদানিকারকরা তাদের দামটা যৌক্তিক পর্যায়ে নিয়ে আসতে পারে। আমরা পুলিশিং করতে চাই না। রমজান ধর্মীয় অনুভূতির ব্যাপার। তাই উৎপাদক থেকে পাইকারি ব্যবসায়ীরা রমজানের ভাবগাম্ভীর্যকে মাথায় রেখে মূল দামের চেয়ে ছাড় দিয়ে ব্যবসা করবে বলে আশা করি।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপডেট সময় ০৫:১২:১৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
৫৬ বার পড়া হয়েছে

সরকারের ওপর আস্থা রাখার আহবান বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রীর

আপডেট সময় ০৫:১২:১৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

সিন্ডিকেট ইস্যুতে বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটু বলেছেন, আমাদের ওপর আস্থা রাখেন। আমরা সর্বচ্চ চেষ্টা করব আমাদের অবস্থান থেকে । (৮ ফেব্রুয়ারি) সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি।

সিন্ডিকেটের কোন ধর্ম নেই, তারা প্রতিবার একই পরিস্থিতি তৈরি করে– এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনি বলেন, আমাদের ওপর আস্থা রাখেন। ভায়োলেট হলে জবাব দেব। দায়িত্ব নিয়ে বলছি, এখন থেকে যা হবে আমাদের এখান থেকে প্রচেষ্টা কম থাকবে না।

পণ্য সরবরাহে সিন্ডিকেট  তৈরি করলে তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনে জরুরি আইনে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী।

সরকার দাম বেধে দিলেও সেটি বাজারে প্রতিফলিত হয় না– এ বিষয়ে জানতে চাইলে আহসানুল ইসলাম টিটু বলেন, আমাদের একাধিক আইন আছে বাজার মনিটরিং করার। প্রথমে ভোক্তা অধিদপ্তরের মাধ্যমে আমাদের বাণিজ্য মন্ত্রণালয় বাজার মনিটর করবে। কৃষি বিপণন আইন আছে, সেটি দিয়েও আমরা মনিটরিং করব।

তিনি বলেন, আমাদের ১৯৫৬ এর অত্যাবশকীয় পণ্য আইন আছে, সে আইনে করব। প্রয়োজনে জরুরি আইনে যারা নির্দেশনা অমান্য করে পণ্য সরবরাহে প্রতিবন্ধকতা তৈরি করবে তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

পুলিশিং করে বাজার ব্যবস্থাপনা করা যায় না উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমরা আজ যেটা করলাম (শুল্ক কমানো), সেটা বাজার ব্যবস্থাপনার একটা অংশ। যাতে উৎপাদক ও আমদানিকারকরা তাদের দামটা যৌক্তিক পর্যায়ে নিয়ে আসতে পারে। আমরা পুলিশিং করতে চাই না। রমজান ধর্মীয় অনুভূতির ব্যাপার। তাই উৎপাদক থেকে পাইকারি ব্যবসায়ীরা রমজানের ভাবগাম্ভীর্যকে মাথায় রেখে মূল দামের চেয়ে ছাড় দিয়ে ব্যবসা করবে বলে আশা করি।