ঢাকা ০৫:২২ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সাভারে গ্রাহকের মারধরে আহত হয়েছেন পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির পাঁচ কর্মকর্তা

আনোয়ার সুলতান, সাভার

সাভারে বকেয়া বিদ্যুত বিল আদায় করতে গিয়ে গ্রাহকের মারধরে আহত হয়েছেন ঢাকা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির কর্মকর্তা ও কর্মচারীসহ পাঁচজন। এঘটনায় ভুক্তভোগীদের সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

বুধবার রাতে ভুক্তভোগীদের পক্ষে সাভার মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন ঢাকা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-৩ শিমুলতলা জোনের সহকারী মহাব্যবস্থাপক (এজিএম) আব্দুল মোত্তালিব হোসেন। এর আগে গতকাল বুধবার বিকেলে সাভার পৌরসভার জামসিং এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন- ঢাকা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-৩ এর জুনিয়র ইঞ্জিনিয়ার রিপন আলী, এনফোর্সমেন কোঅর্ডিনেটর গোলাম হোসেন, লাইন ম্যান মোঃ সানি হাসান, লাইনম্যান জয় সিকদার ও লাইনম্যান-সৈকত রায়হান।

অভিযুক্তরা হলেন- সাভারের জামসিং এলাকার মৃত ইব্রাহিম মিয়ার ছেলে মো. রিপন (৩৩) ও তার সহযোগী মো. সেলিম (৩৮), মনিরা বেগম (৩৪), মো. সুমন (৩৩) ও আঃ রশিদসহ (৫০) অজ্ঞাত ৩/৪ জন।

এদিকে মারধরের সময় গোপনে ধারণকৃত একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া দুই মিনিটের একটি ভিডিওতে দেখা যায়, মোটরসাইকেলে বসে থাকা অবস্থায় পল্লীবিদ্যুতের এক কর্মচারীকে বেশকয়েকজন মিলে অনবরত লাঠিসোটা দিয়ে ও কিল-ঘুষিসহ লাথি মারতে থাকেন। এক পর্যায়ে ওই কর্মচারীকে মারতে মারতে মাটিতে ফেলেও মারধর করতে দেখা যায় তাদের।

লিখিত অভিযোগে বলা হয়, জামসিং এলাকার গ্রাহক রিপনের ছয় মাসের বিদ্যুৎ বিল সাড়ে ১০ হাজার টাকা বকেয়া পরিশোধ না করে দীর্ঘদিন ধরে তালবাহানা করে আসছিলো। আজ দুপুরে পল্লীবিদ্যুতের কর্মকর্তা ও লাইন ম্যানসহ পাঁচজন সেই বকেয়া বিল আদায়ে রিপনের বাড়িতে যায়। এসময় নিয়ম অনুযায়ী বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ না করায় রিপনের বসতবাড়ির সংযোগে বিচ্ছিন্ন করতে গেলে তারা ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে। এসময় রিপন, তার ভাই সেলিম, বোন মনিরা বেগম, সুমন ও রশিদসহ অজ্ঞাত ৩-৪ জন কর্মকর্তা-কর্মচারীদের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে। এক পর্যায়ে লাঠিসোটা, লোহার রড ও ইটের টুকরো দিয়ে পল্লীবিদ্যুতের পাঁচজন স্টাফকে মারধর করে গুরুতর জখম করে। এসময় লাইনম্যান সানির পকেটে থাকা অন্য গ্রাহকের আদাকৃত ১ লাখ ৬৫ হাজার টাকা বিদ্যুত বিল ও তার মোবাইল ফোন ছিনিয়ে যায়। পরে স্থানীয়দের সহযোগিতায় আহতদের উদ্ধার করে সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

ঢাকা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-৩ শিমুলতলা জোনের সহকারী মহাব্যবস্থাপক (এজিএম) আব্দুল মোত্তালিব হোসেন বলেন, বকেয়া বিদ্যুত বিল আদায় করতে গিয়ে আমার অফিসের কর্মকর্তা ও কর্মচারীসহ পাঁচজনকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করা হয়েছে। বিল পরিশোধ না করলে নিয়ম অনুযায়ী সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়া হয়। সরকারি সেই দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে আমার স্টাফরা এরকম সন্ত্রাসী হামলার শিকার হয়েছেন। তাদের হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। এঘটনায় রাতে আমি সাভার মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ করেছি।

এবিষয়ে সাভার মডেল থানার ইন্সপেক্টর (অপারেশন) নয়ন কারকুন বলেন, পল্লীবিদ্যুতের স্টাফদের মারধরের ঘটনায় লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে পরবর্তীতে এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপডেট সময় ০১:২৪:৩৭ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
৬০ বার পড়া হয়েছে

সাভারে গ্রাহকের মারধরে আহত হয়েছেন পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির পাঁচ কর্মকর্তা

আপডেট সময় ০১:২৪:৩৭ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

সাভারে বকেয়া বিদ্যুত বিল আদায় করতে গিয়ে গ্রাহকের মারধরে আহত হয়েছেন ঢাকা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির কর্মকর্তা ও কর্মচারীসহ পাঁচজন। এঘটনায় ভুক্তভোগীদের সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

বুধবার রাতে ভুক্তভোগীদের পক্ষে সাভার মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন ঢাকা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-৩ শিমুলতলা জোনের সহকারী মহাব্যবস্থাপক (এজিএম) আব্দুল মোত্তালিব হোসেন। এর আগে গতকাল বুধবার বিকেলে সাভার পৌরসভার জামসিং এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন- ঢাকা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-৩ এর জুনিয়র ইঞ্জিনিয়ার রিপন আলী, এনফোর্সমেন কোঅর্ডিনেটর গোলাম হোসেন, লাইন ম্যান মোঃ সানি হাসান, লাইনম্যান জয় সিকদার ও লাইনম্যান-সৈকত রায়হান।

অভিযুক্তরা হলেন- সাভারের জামসিং এলাকার মৃত ইব্রাহিম মিয়ার ছেলে মো. রিপন (৩৩) ও তার সহযোগী মো. সেলিম (৩৮), মনিরা বেগম (৩৪), মো. সুমন (৩৩) ও আঃ রশিদসহ (৫০) অজ্ঞাত ৩/৪ জন।

এদিকে মারধরের সময় গোপনে ধারণকৃত একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া দুই মিনিটের একটি ভিডিওতে দেখা যায়, মোটরসাইকেলে বসে থাকা অবস্থায় পল্লীবিদ্যুতের এক কর্মচারীকে বেশকয়েকজন মিলে অনবরত লাঠিসোটা দিয়ে ও কিল-ঘুষিসহ লাথি মারতে থাকেন। এক পর্যায়ে ওই কর্মচারীকে মারতে মারতে মাটিতে ফেলেও মারধর করতে দেখা যায় তাদের।

লিখিত অভিযোগে বলা হয়, জামসিং এলাকার গ্রাহক রিপনের ছয় মাসের বিদ্যুৎ বিল সাড়ে ১০ হাজার টাকা বকেয়া পরিশোধ না করে দীর্ঘদিন ধরে তালবাহানা করে আসছিলো। আজ দুপুরে পল্লীবিদ্যুতের কর্মকর্তা ও লাইন ম্যানসহ পাঁচজন সেই বকেয়া বিল আদায়ে রিপনের বাড়িতে যায়। এসময় নিয়ম অনুযায়ী বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ না করায় রিপনের বসতবাড়ির সংযোগে বিচ্ছিন্ন করতে গেলে তারা ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে। এসময় রিপন, তার ভাই সেলিম, বোন মনিরা বেগম, সুমন ও রশিদসহ অজ্ঞাত ৩-৪ জন কর্মকর্তা-কর্মচারীদের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে। এক পর্যায়ে লাঠিসোটা, লোহার রড ও ইটের টুকরো দিয়ে পল্লীবিদ্যুতের পাঁচজন স্টাফকে মারধর করে গুরুতর জখম করে। এসময় লাইনম্যান সানির পকেটে থাকা অন্য গ্রাহকের আদাকৃত ১ লাখ ৬৫ হাজার টাকা বিদ্যুত বিল ও তার মোবাইল ফোন ছিনিয়ে যায়। পরে স্থানীয়দের সহযোগিতায় আহতদের উদ্ধার করে সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

ঢাকা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-৩ শিমুলতলা জোনের সহকারী মহাব্যবস্থাপক (এজিএম) আব্দুল মোত্তালিব হোসেন বলেন, বকেয়া বিদ্যুত বিল আদায় করতে গিয়ে আমার অফিসের কর্মকর্তা ও কর্মচারীসহ পাঁচজনকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করা হয়েছে। বিল পরিশোধ না করলে নিয়ম অনুযায়ী সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়া হয়। সরকারি সেই দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে আমার স্টাফরা এরকম সন্ত্রাসী হামলার শিকার হয়েছেন। তাদের হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। এঘটনায় রাতে আমি সাভার মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ করেছি।

এবিষয়ে সাভার মডেল থানার ইন্সপেক্টর (অপারেশন) নয়ন কারকুন বলেন, পল্লীবিদ্যুতের স্টাফদের মারধরের ঘটনায় লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে পরবর্তীতে এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি।