ঢাকা ১২:১৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সেনা মোতায়েনে সম্মত হয়েছেন রাষ্ট্রপতি: ইসি সচিব

নিজস্ব সংবাদ

আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নির্বাচন কমিশনের (ইসি) অনুরোধে সেনা মোতায়েনে সম্মতি দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. সাহাবুদ্দিন। রোববার (১৭ ডিসেম্বর) বঙ্গভবন থেকে বেরিয়ে এ তথ্য জানান ইসি সচিব মো. জাহাংগীর আলম।

তিনি বলেন, পূর্বনির্ধারিত সময় অনুযায়ী বেলা ১১টায় রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল। সংবিধানের ২০ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী, কমিশন সশস্ত্র বাহিনীর সর্বাধিনায়ক রাষ্ট্রপতির কাছে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ইন এইড টু সিভিল পাওয়ারের আওতায় বেসামরিক প্রশাসনকে সহায়তায় সামরিক বাহিনী নিযুক্ত করার জন্য অনুরোধ করেছেন। রাষ্ট্রপতি বিষয়টি শুনেছেন। তিনি আশ্বাস দিয়েছেন সশস্ত্র বাহিনীর সঙ্গে আলাপ করে অতি শিগগিরই সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেবেন। তিনি নীতিগতভাবে সামরিক বাহিনী দিতে সম্মত হয়েছেন।

সশস্ত্র বাহিনীর প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসার (পিএসএ) সম্প্রতি ১৩ দিনের জন্য সেনা মোতায়েন হতে পারে বলে জানিয়েছেন। ১৩ দিনই কি থাকবে- এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের সঙ্গে আলোচনা করে পৃথক চিঠি পাঠানো হবে। তার আলোকে সেখানে সময়, কখন কীভাবে তা নির্ধারণ হবে। সেটা সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের সঙ্গে চিঠির মাধ্যমে চূড়ান্ত করবে নির্বাচন কমিশন।

তিনি আরও বলেন, ১৩ দিন সেনা মোতায়েনের বিষয়টা, সেটা একটা আলোচনা ছিল। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী যেভাবে নিয়োজিত থাকবে, তার সঙ্গে সমন্বয় রেখে তারা যাতে দায়িত্ব পালন করতে পারেন, সেজন্য তিনি (পিএসও) কথাটা বলেছেন। এটা চূড়ান্ত নয়। এটা আলোচনা করে আমরা ঠিক করে নেব।

আগামী ৭ জানুয়ারি দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সম্প্রতি পিএসও ইসির সঙ্গে বৈঠকের পর সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, রাষ্ট্রপতি অনুমতি দিলে আগামী ২৯ ডিসেম্বর থেকে ১০ জানুয়ারি পর্যন্ত ১৩ দিনের জন্য ভোটের দায়িত্ব পালন করবেন।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপডেট সময় ০৬:৫৬:০০ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০২৩
৫২ বার পড়া হয়েছে

সেনা মোতায়েনে সম্মত হয়েছেন রাষ্ট্রপতি: ইসি সচিব

আপডেট সময় ০৬:৫৬:০০ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০২৩

আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নির্বাচন কমিশনের (ইসি) অনুরোধে সেনা মোতায়েনে সম্মতি দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. সাহাবুদ্দিন। রোববার (১৭ ডিসেম্বর) বঙ্গভবন থেকে বেরিয়ে এ তথ্য জানান ইসি সচিব মো. জাহাংগীর আলম।

তিনি বলেন, পূর্বনির্ধারিত সময় অনুযায়ী বেলা ১১টায় রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল। সংবিধানের ২০ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী, কমিশন সশস্ত্র বাহিনীর সর্বাধিনায়ক রাষ্ট্রপতির কাছে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ইন এইড টু সিভিল পাওয়ারের আওতায় বেসামরিক প্রশাসনকে সহায়তায় সামরিক বাহিনী নিযুক্ত করার জন্য অনুরোধ করেছেন। রাষ্ট্রপতি বিষয়টি শুনেছেন। তিনি আশ্বাস দিয়েছেন সশস্ত্র বাহিনীর সঙ্গে আলাপ করে অতি শিগগিরই সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেবেন। তিনি নীতিগতভাবে সামরিক বাহিনী দিতে সম্মত হয়েছেন।

সশস্ত্র বাহিনীর প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসার (পিএসএ) সম্প্রতি ১৩ দিনের জন্য সেনা মোতায়েন হতে পারে বলে জানিয়েছেন। ১৩ দিনই কি থাকবে- এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের সঙ্গে আলোচনা করে পৃথক চিঠি পাঠানো হবে। তার আলোকে সেখানে সময়, কখন কীভাবে তা নির্ধারণ হবে। সেটা সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের সঙ্গে চিঠির মাধ্যমে চূড়ান্ত করবে নির্বাচন কমিশন।

তিনি আরও বলেন, ১৩ দিন সেনা মোতায়েনের বিষয়টা, সেটা একটা আলোচনা ছিল। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী যেভাবে নিয়োজিত থাকবে, তার সঙ্গে সমন্বয় রেখে তারা যাতে দায়িত্ব পালন করতে পারেন, সেজন্য তিনি (পিএসও) কথাটা বলেছেন। এটা চূড়ান্ত নয়। এটা আলোচনা করে আমরা ঠিক করে নেব।

আগামী ৭ জানুয়ারি দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সম্প্রতি পিএসও ইসির সঙ্গে বৈঠকের পর সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, রাষ্ট্রপতি অনুমতি দিলে আগামী ২৯ ডিসেম্বর থেকে ১০ জানুয়ারি পর্যন্ত ১৩ দিনের জন্য ভোটের দায়িত্ব পালন করবেন।