ঢাকা ১০:১২ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

স্থগিতের ৪ ঘণ্টা পর রাঙ্গার মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা

নিজস্ব সংবাদ

মামলা সংক্রান্ত তথ্য উল্লেখ না থাকায় জাতীয় পার্টির নেতা মশিয়ার রহমান রাঙ্গার মনোনয়নপত্রটি সকালে স্থগিত করে দেন রিটার্নিং অফিসার। পরে পুলিশও বিষয়টি নিশ্চিত করলে রাঙ্গার প্রতিনিধিদের তিন দিন সময় দেয়া হয় বিস্তারিত তথ্য জমা দেয়ার জন্য। পরে বিকেলেই বৈধ ঘোষণা করা হয় মনোনয়নপত্রটিকে।

রাঙ্গা রংপুর সদর-১ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী। একাদশ সংসদে বিরোধী দলীয় হুইপ। রওশনপন্থি হিসেবে পরিচিত এবার মনোনয়ন পাননি নিজ দল জাতীয় পার্টি থেকে।

শনিবার (২ ডিসেম্বর) বেলা ১১টায় রংপুরের ৬টি আসনের মধ্যে ৩টি আসনের মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই কার্যক্রম শুরু হয় রংপুর জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে। রংপুর- ১ আসনে দাখিল করা মনোনয়নপত্র ছিল ১২টি।

স্বতন্ত্র প্রার্থী রাঙ্গার মনোনয়নপত্রটি যাচাইকালে দেখা যায়, সেখানে তার মামলার বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে কোনো উল্লেখ নেই।

পরে রিটার্নিং অফিসার জেলা প্রশাসক মোবাশ্বের হাসান পুলিশ প্রশাসনের কাছে এ বিষয় জানতে চাইলে তারা রাঙ্গার বিরুদ্ধে দুদক আইনে একটিসহ মোট ৪টি মামলা রয়েছে বলে জানায়। এই পরিপ্রেক্ষিতে মনোনয়নপত্রটি স্থগিত রাখার নির্দেশ দেন জেলা প্রশাসক।

এ সময় রাঙ্গার পক্ষের প্রতিনিধিরা জানান, তারা মামলা সম্পর্কে সব তথ্য জানেন না। তাই সময় চান তারা। রিটার্নিং অফিসার প্রথমে বিকেল ৪টার মধ্যে সব কাগজ জমা দেয়ার কথা বলেন। পরে বলেন, যেহেতু ৩ দিন ধরে মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই চলবে, তা এর মধ্যে কাগজ জমা দেয়া যাবে।

একইভাবে বাংলাদেশ কংগ্রেস এর শ্যামলী রায়, ওয়ার্কার্স পার্টির বখতিয়ারসহ ৩ জনের মনোনয়নপত্র বাছাই কার্যক্রম স্থগিত ঘোষণা করেন রিটার্নিং অফিসার।

পরে বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে রিটার্নিং অফিসার রাঙ্গার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র পাওয়া গেছে বলে মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করেন।

সেই সঙ্গে বাংলাদেশ কংগ্রেস দলের প্রার্থী শ্যামলী রায়ের মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করেন। সেই সঙ্গে আরও ২ প্রার্থীর মনোনয়ন স্থগিত রাখা এবং একজনের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে বলে জানান জেলা প্রশাসক।

একইভাবে রংপুর-২ আসনের ৩ স্বতন্ত্র প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল ঘোষণা করা হয়। অন্যদিকে রংপুর-৩ আসনের ৯ প্রার্থীর মধ্যে ১ জনের মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষণা করেন জেলা প্রশাসক।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপডেট সময় ০৫:১৯:০৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ২ ডিসেম্বর ২০২৩
১২৫ বার পড়া হয়েছে

স্থগিতের ৪ ঘণ্টা পর রাঙ্গার মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা

আপডেট সময় ০৫:১৯:০৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ২ ডিসেম্বর ২০২৩

মামলা সংক্রান্ত তথ্য উল্লেখ না থাকায় জাতীয় পার্টির নেতা মশিয়ার রহমান রাঙ্গার মনোনয়নপত্রটি সকালে স্থগিত করে দেন রিটার্নিং অফিসার। পরে পুলিশও বিষয়টি নিশ্চিত করলে রাঙ্গার প্রতিনিধিদের তিন দিন সময় দেয়া হয় বিস্তারিত তথ্য জমা দেয়ার জন্য। পরে বিকেলেই বৈধ ঘোষণা করা হয় মনোনয়নপত্রটিকে।

রাঙ্গা রংপুর সদর-১ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী। একাদশ সংসদে বিরোধী দলীয় হুইপ। রওশনপন্থি হিসেবে পরিচিত এবার মনোনয়ন পাননি নিজ দল জাতীয় পার্টি থেকে।

শনিবার (২ ডিসেম্বর) বেলা ১১টায় রংপুরের ৬টি আসনের মধ্যে ৩টি আসনের মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই কার্যক্রম শুরু হয় রংপুর জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে। রংপুর- ১ আসনে দাখিল করা মনোনয়নপত্র ছিল ১২টি।

স্বতন্ত্র প্রার্থী রাঙ্গার মনোনয়নপত্রটি যাচাইকালে দেখা যায়, সেখানে তার মামলার বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে কোনো উল্লেখ নেই।

পরে রিটার্নিং অফিসার জেলা প্রশাসক মোবাশ্বের হাসান পুলিশ প্রশাসনের কাছে এ বিষয় জানতে চাইলে তারা রাঙ্গার বিরুদ্ধে দুদক আইনে একটিসহ মোট ৪টি মামলা রয়েছে বলে জানায়। এই পরিপ্রেক্ষিতে মনোনয়নপত্রটি স্থগিত রাখার নির্দেশ দেন জেলা প্রশাসক।

এ সময় রাঙ্গার পক্ষের প্রতিনিধিরা জানান, তারা মামলা সম্পর্কে সব তথ্য জানেন না। তাই সময় চান তারা। রিটার্নিং অফিসার প্রথমে বিকেল ৪টার মধ্যে সব কাগজ জমা দেয়ার কথা বলেন। পরে বলেন, যেহেতু ৩ দিন ধরে মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই চলবে, তা এর মধ্যে কাগজ জমা দেয়া যাবে।

একইভাবে বাংলাদেশ কংগ্রেস এর শ্যামলী রায়, ওয়ার্কার্স পার্টির বখতিয়ারসহ ৩ জনের মনোনয়নপত্র বাছাই কার্যক্রম স্থগিত ঘোষণা করেন রিটার্নিং অফিসার।

পরে বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে রিটার্নিং অফিসার রাঙ্গার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র পাওয়া গেছে বলে মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করেন।

সেই সঙ্গে বাংলাদেশ কংগ্রেস দলের প্রার্থী শ্যামলী রায়ের মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করেন। সেই সঙ্গে আরও ২ প্রার্থীর মনোনয়ন স্থগিত রাখা এবং একজনের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে বলে জানান জেলা প্রশাসক।

একইভাবে রংপুর-২ আসনের ৩ স্বতন্ত্র প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল ঘোষণা করা হয়। অন্যদিকে রংপুর-৩ আসনের ৯ প্রার্থীর মধ্যে ১ জনের মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষণা করেন জেলা প্রশাসক।