ঢাকা ০৫:৪৭ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

স্বাধীনতা দিবসে রাবির হলগুলোতে অনাবাসিকদের জন্যও বিশেষ খাবারের ব্যাবস্থার দাবি

মইনুল ইসলাম রাজু, রাবি
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) হলগুলোতে স্বাধীনতা দিবসে আবাসিক শিক্ষার্থীদের জন্য বিশেষ খাবারের ব্যবস্থা করে হল প্রশাসন। আবাসিক শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি অনাবাসিকদের জন্যও এ বিশেষ খাবারের ব্যবস্থার দাবী জানান বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রগতিশীল ছাত্র সংগঠনগুলো। বুধবার (২০ মার্চ) সাংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ দাবি জানান তারা।
সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে যৌথভাবে বিবৃতি দেন রাবি শাখা সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের আহ্বায়ক ফুয়াদ রাতুল, বিপ্লবী ছাত্র মৈত্রীর সভাপতি শাকিল হোসেন, ছাত্র ইউনিয়নের আহ্বায়ক জান্নাতুল নাঈম, নাগরিক ছাত্র ঐক্যের কেন্দ্রীয় সমন্বয়ক মেহেদী হাসান মুন্না, বিপ্লবী ছাত্র-যুব আন্দোলনের আহ্বায়ক তারেক আশরাফ, বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক সমু চাকমা এবং ছাত্র গণমঞ্চের সমন্বয়ক নাসিম সরকার।
যৌথ বিবৃতিতে তারা বলেন, হল প্রশাসন স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে শুধু আবাসিক শিক্ষার্থীদের জন্যে বিশেষ খাবারের ব্যবস্থা করে থাকে। এমন বৈষম্যমূলক আচরণে প্রশ্ন উঠে আসে তাহলে স্বাধীনতা দিবস কী শুধু আবাসিক শিক্ষার্থীদের জন্য? অন্যদিকে অনাবাসিক শিক্ষার্থীদের আবাসিকতা না পাওয়াটা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনেরই ব্যর্থতা।
তারা আরো বলেন,  হলে না থাকা সত্ত্বেও প্রতিবছর  ইন্টারনেট ফি থেকে শুরু করে হলের যাবতীয় ফি অনাবাসিক শিক্ষার্থীদের পরিশোধ করতে হয়। তাদের উপর বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের এমন বৈষম্য মুলক আচরণ শিক্ষার্থীদের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি করেছে।
স্বাধীনতা দিবসে ভর্তুকি দিয়ে অবিলম্বে ২৬ মার্চের এ বিশেষ খাবারে সকল শিক্ষার্থীর অংশগ্রহণ নিশ্চিত  করার জোর দাবি জানান তারা।
ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপডেট সময় ০৮:২৫:৪৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ২০ মার্চ ২০২৪
২০৫ বার পড়া হয়েছে

স্বাধীনতা দিবসে রাবির হলগুলোতে অনাবাসিকদের জন্যও বিশেষ খাবারের ব্যাবস্থার দাবি

আপডেট সময় ০৮:২৫:৪৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ২০ মার্চ ২০২৪
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) হলগুলোতে স্বাধীনতা দিবসে আবাসিক শিক্ষার্থীদের জন্য বিশেষ খাবারের ব্যবস্থা করে হল প্রশাসন। আবাসিক শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি অনাবাসিকদের জন্যও এ বিশেষ খাবারের ব্যবস্থার দাবী জানান বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রগতিশীল ছাত্র সংগঠনগুলো। বুধবার (২০ মার্চ) সাংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ দাবি জানান তারা।
সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে যৌথভাবে বিবৃতি দেন রাবি শাখা সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের আহ্বায়ক ফুয়াদ রাতুল, বিপ্লবী ছাত্র মৈত্রীর সভাপতি শাকিল হোসেন, ছাত্র ইউনিয়নের আহ্বায়ক জান্নাতুল নাঈম, নাগরিক ছাত্র ঐক্যের কেন্দ্রীয় সমন্বয়ক মেহেদী হাসান মুন্না, বিপ্লবী ছাত্র-যুব আন্দোলনের আহ্বায়ক তারেক আশরাফ, বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক সমু চাকমা এবং ছাত্র গণমঞ্চের সমন্বয়ক নাসিম সরকার।
যৌথ বিবৃতিতে তারা বলেন, হল প্রশাসন স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে শুধু আবাসিক শিক্ষার্থীদের জন্যে বিশেষ খাবারের ব্যবস্থা করে থাকে। এমন বৈষম্যমূলক আচরণে প্রশ্ন উঠে আসে তাহলে স্বাধীনতা দিবস কী শুধু আবাসিক শিক্ষার্থীদের জন্য? অন্যদিকে অনাবাসিক শিক্ষার্থীদের আবাসিকতা না পাওয়াটা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনেরই ব্যর্থতা।
তারা আরো বলেন,  হলে না থাকা সত্ত্বেও প্রতিবছর  ইন্টারনেট ফি থেকে শুরু করে হলের যাবতীয় ফি অনাবাসিক শিক্ষার্থীদের পরিশোধ করতে হয়। তাদের উপর বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের এমন বৈষম্য মুলক আচরণ শিক্ষার্থীদের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি করেছে।
স্বাধীনতা দিবসে ভর্তুকি দিয়ে অবিলম্বে ২৬ মার্চের এ বিশেষ খাবারে সকল শিক্ষার্থীর অংশগ্রহণ নিশ্চিত  করার জোর দাবি জানান তারা।