ঢাকা ০৭:৩৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

হলুদ চায়ে কমবে ৪ অসুখ

নিজস্ব সংবাদ

চায়ে হলুদ মেশালে হতে পারে ম্যাজিক। এই পানীয়ে রয়েছে অনেকটা পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট।কোলেস্টেরল কমানো থেকে ক্যানসারের আশঙ্কা কমায় এই পানীয়। কোলেস্টেরল কমাতে চাইলে আপনি খেতে পারেন হলুদ চা। এই খাবারে থাকা নানা উপকারী উপাদান কিন্তু ভালো কোলেস্টেরল বাড়ায় ও খারাপ কোলেস্টেরল কমায়। ফলে দূরে থাকে হৃদরোগ। চা না খেলে অনেক মানুষের দিন ঠিকমতো এগিয়ে যায় না। টয়লেট পর্যন্ত অসম্পূর্ণ থাকে অনেকের। তাই চায়ের তুলনা বাঙালি জীবনে নেই বললেই চলে। দেখা গেছে যে চায়ের রয়েছে একগাদা গুণ। এবার তার সঙ্গে যদি একটু হলুদ মিশিয়ে নিতে পারেন, তাহলে গুণ আরও বেড়ে যায়।

চায়ে থাকে অনেকেটা পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। এছাড়া মাথায় রাখতে হবে যে হলুদের গুণও কিন্তু কম নয়। এরমধ্যে রয়েছে প্রদাহনাশক ক্ষমতা। তাই যেকোনো মানুষ অনায়াসে খেয়ে নিতে পারেন এই খাবার। ভালো থাকতে পারবেন। এতেই কমতে পারে সমস্যা।

বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে, হার্ট থেকে শুরু করে লিভারের সমস্যা কমিয়ে দিতে পারে এই খাবার। তাই এই বিষয়টা মাথায় রাখার চেষ্টা করুন। তাহলে চলুন হলুদ চায়ের কিছু গুণ জেনে নিই:

প্রদাহ কমায় হলুদ মেশানো চা

এই পানীয়ে রয়েছে অনেকটা পরিমাণে ভিটামিন বি৩, বি৬, কপার, আয়রন ইত্যাদি। এছাড়াও নানা অ্যান্টিঅক্সিডেন্টে ভরপুর থাকে এই খাবার। তাই নানা প্রদাহ কমাতে পারে এই খাবার। এটা মাথায় রাখতে হবে।

জয়েন্টের ব্যথার জন্য ভালো এই হলুদ চা
হলুদে রয়েছে কারকিউমিন। এবার দেখা গেছে যে আর্থ্রাইটিস থেকে শুরু করে নানা জয়েন্টের ব্যথার সমাধান করতে পারে এই হলুদ চা। তাই এটা মাথায় রাখুন।

কোলেস্টেরল কমাতে পারে হলুদ চা

কোলেস্টেরল কমাতে চাইলে আপনি খেতে পারেন হলুদ চা। এই খাবারে থাকা নানা উপকারী উপাদান কিন্তু ভালো কোলেস্টেরল বাড়ায় ও খারাপ কোলেস্টেরল কমায়। ফলে দূরে থাকে হৃদরোগ। এটি মাথায় রাখতে হবে।

ক্যানসারের আশঙ্কা কমায় এই খাবার 

এই পানীয়ে থাকে কিছুটা পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। তাই মাথায় রাখতে হবে যে ক্যানসারের সমস্যা দূর করে দিতে পারে খাবার। এটা মাথায় রাখতে হবে। তবেই সুস্থ থাকতে পারবেন। তবে এই পানীয় বেশি খেতে যাবেন না। কারণ বেশি খেলে ঘুমের সমস্যা হতে পারে। বরং দিনে একবার পান করতে পারে হলুদ দিয়ে চা। তাই এটি মাথায় রাখা খুবই জরুরি। নাহলে সমস্যা কমার বদলে বেড়ে যেতে পারে।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপডেট সময় ০২:১০:২৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ নভেম্বর ২০২৩
১৬৩ বার পড়া হয়েছে

হলুদ চায়ে কমবে ৪ অসুখ

আপডেট সময় ০২:১০:২৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ নভেম্বর ২০২৩

চায়ে হলুদ মেশালে হতে পারে ম্যাজিক। এই পানীয়ে রয়েছে অনেকটা পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট।কোলেস্টেরল কমানো থেকে ক্যানসারের আশঙ্কা কমায় এই পানীয়। কোলেস্টেরল কমাতে চাইলে আপনি খেতে পারেন হলুদ চা। এই খাবারে থাকা নানা উপকারী উপাদান কিন্তু ভালো কোলেস্টেরল বাড়ায় ও খারাপ কোলেস্টেরল কমায়। ফলে দূরে থাকে হৃদরোগ। চা না খেলে অনেক মানুষের দিন ঠিকমতো এগিয়ে যায় না। টয়লেট পর্যন্ত অসম্পূর্ণ থাকে অনেকের। তাই চায়ের তুলনা বাঙালি জীবনে নেই বললেই চলে। দেখা গেছে যে চায়ের রয়েছে একগাদা গুণ। এবার তার সঙ্গে যদি একটু হলুদ মিশিয়ে নিতে পারেন, তাহলে গুণ আরও বেড়ে যায়।

চায়ে থাকে অনেকেটা পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। এছাড়া মাথায় রাখতে হবে যে হলুদের গুণও কিন্তু কম নয়। এরমধ্যে রয়েছে প্রদাহনাশক ক্ষমতা। তাই যেকোনো মানুষ অনায়াসে খেয়ে নিতে পারেন এই খাবার। ভালো থাকতে পারবেন। এতেই কমতে পারে সমস্যা।

বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে, হার্ট থেকে শুরু করে লিভারের সমস্যা কমিয়ে দিতে পারে এই খাবার। তাই এই বিষয়টা মাথায় রাখার চেষ্টা করুন। তাহলে চলুন হলুদ চায়ের কিছু গুণ জেনে নিই:

প্রদাহ কমায় হলুদ মেশানো চা

এই পানীয়ে রয়েছে অনেকটা পরিমাণে ভিটামিন বি৩, বি৬, কপার, আয়রন ইত্যাদি। এছাড়াও নানা অ্যান্টিঅক্সিডেন্টে ভরপুর থাকে এই খাবার। তাই নানা প্রদাহ কমাতে পারে এই খাবার। এটা মাথায় রাখতে হবে।

জয়েন্টের ব্যথার জন্য ভালো এই হলুদ চা
হলুদে রয়েছে কারকিউমিন। এবার দেখা গেছে যে আর্থ্রাইটিস থেকে শুরু করে নানা জয়েন্টের ব্যথার সমাধান করতে পারে এই হলুদ চা। তাই এটা মাথায় রাখুন।

কোলেস্টেরল কমাতে পারে হলুদ চা

কোলেস্টেরল কমাতে চাইলে আপনি খেতে পারেন হলুদ চা। এই খাবারে থাকা নানা উপকারী উপাদান কিন্তু ভালো কোলেস্টেরল বাড়ায় ও খারাপ কোলেস্টেরল কমায়। ফলে দূরে থাকে হৃদরোগ। এটি মাথায় রাখতে হবে।

ক্যানসারের আশঙ্কা কমায় এই খাবার 

এই পানীয়ে থাকে কিছুটা পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। তাই মাথায় রাখতে হবে যে ক্যানসারের সমস্যা দূর করে দিতে পারে খাবার। এটা মাথায় রাখতে হবে। তবেই সুস্থ থাকতে পারবেন। তবে এই পানীয় বেশি খেতে যাবেন না। কারণ বেশি খেলে ঘুমের সমস্যা হতে পারে। বরং দিনে একবার পান করতে পারে হলুদ দিয়ে চা। তাই এটি মাথায় রাখা খুবই জরুরি। নাহলে সমস্যা কমার বদলে বেড়ে যেতে পারে।