ঢাকা ০৭:২৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

১৫ বছর মানুষের ভালোবাসা পেয়েছি ও ভালোবাসা দিয়েছি – বীর প্রতীক গোলাম দস্তগীর

রাকিব হাসান সাগর, নারায়ণগঞ্জ

 

১৫ বছর রূপগঞ্জের ১ আসনে মানুষের ভালোবাসা পেয়েছি ও ভালোবাসা দিয়েছি। বীর প্রতীক গোলাম দস্তগীর গাজী।

নির্বাচনের শেষ প্রস্তুতি আমরা খুব সুন্দর ভাবে শেষ করেছি আলহামদুলিল্লাহ, আমরা যে গণসংযোগ ও সমাবেশ করেছিলাম তাতে ভোটাররা আমার প্রতি খুব আন্তরিক ছিল ও ভোটারদের চোখে মুখে যে অভিব্যক্তি ফুটে এসেছে তাতে আমরা বুঝতে পারি এবার নির্বাচনটা খুব উৎসব মুখে প্রয়োজন হবে, আমি গত ১৫ বছর ধরে তাদের সঙ্গে ছিলাম তাদের ভালোবাসা পেয়েছি ও তাদের ভালোবাসা দিয়েছি তাই আমি দ্বাদশ নির্বাচনে একটু বেশি কনফিডেন্ট, নির্বাচনের সময় একটু একটু ঝামেলা হয় হবেই নয়তো নির্বাচনের ইমেজটা থাকেনা৷

কে আমাকে কি বলল কে আমার কি করলো কে আমার নির্বাচনে ব্যাঘাত ঘটানো সৃষ্টি করল, ফি আমার নির্বাচনী প্রচারণায় বাধা দিল কে আমার নির্বাচনী ক্যাম্পে ঝামেলা কর তা নেই আমার কোন মাথা ব্যাথা নেই৷ আমার লোক বা অন্যের লোক কেউ যদি নির্বাচনে কোন প্রচার প্রচার বাধা ঘটায় আমি মনে করি তাহলে এটা মিলেমিশে বসে ঠিক করে নেওয়া উচিত৷

আমি লম্বা সময় ধরে ১৫ বছর যাবত নির্বাচনে বিপুল ভোটে জয়যুক্ত হয়ে যাচ্ছি আলহামদুলিল্লাহ৷ যদি আমি মানুষের উপকার করে থাকি আমার নির্বাচন এলাকা উন্নয়ন করে থাকি তাহলে মানুষ আমাকে কোনভাবে ভুলতে পারবে না৷  নতুন প্রজন্ম ও প্রবীণ সবাই উন্নয়নে বিশ্বাস করে ও আমার উন্নয়ন সবাই চোখে দেখেছে, সবাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নকে বিশ্বাস করে শেখ হাসিনা সরকারকে বিশ্বাস করে সেই সঙ্গে তার উসিলায় আমাকেও ভালবাসে৷

এই নির্বাচনে অনেক নতুন ভোটার হয়েছে তারা উন্নয়ন দেখে বড় হয়েছে তারা মনে করছে এই সরকার এই দেশটাকে আরো উন্নয়নের শিখরে নিয়ে যেতে পারবে, তাদের জিবন মানের আরও সুবিধা বারবে সব দিক বিবেচনা করে নতুন ও পুরাতন সবাই মিলে নৌকা কি ভোট দিয়ে বিজয় করবে আমি আশাবাদি৷

আমরা সব সময় সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে সময়োপযোগী সিদ্ধান্ত নিয়ে আসছি কিছু করার, উন্নয়ন চলমান উন্নয়নের ধারা অব্যাহত থাকবে, যে উন্নয়ন করলে জাতি জনগণের জীবনযাপন সহজ ও দেশের ভাবমূর্তি বাড়বে আমরা সেই উন্নয়নের দিকেই হাঁটার চেষ্টা করি৷

রাজনীতি নিয়ে আমার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা আমার তো অনেক বয়স হয়েছে, দ্বাদশ নির্বাচনে কি আমার জীবনের শেষ নির্বাচন কিনা আমি তা ভুলতে পারি না জীবন টা কেমন যাবে বয়সে সন্ধিক্ষণে আগে অগ্রসর হচ্ছি, আমি সর্বত্র চেষ্টা করি উন্নয়নমূলক কাজ করতে তারপর যদি জনগণ মনে করে আমাকে এবং আমারও যদি মনে হয় যে আমার থাকা দরকার জনগণের চাহিদা দেখে তারপর সিদ্ধান্ত নিব।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপডেট সময় ০৯:০১:৩০ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ৫ জানুয়ারী ২০২৪
১২৪ বার পড়া হয়েছে

১৫ বছর মানুষের ভালোবাসা পেয়েছি ও ভালোবাসা দিয়েছি – বীর প্রতীক গোলাম দস্তগীর

আপডেট সময় ০৯:০১:৩০ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ৫ জানুয়ারী ২০২৪

 

১৫ বছর রূপগঞ্জের ১ আসনে মানুষের ভালোবাসা পেয়েছি ও ভালোবাসা দিয়েছি। বীর প্রতীক গোলাম দস্তগীর গাজী।

নির্বাচনের শেষ প্রস্তুতি আমরা খুব সুন্দর ভাবে শেষ করেছি আলহামদুলিল্লাহ, আমরা যে গণসংযোগ ও সমাবেশ করেছিলাম তাতে ভোটাররা আমার প্রতি খুব আন্তরিক ছিল ও ভোটারদের চোখে মুখে যে অভিব্যক্তি ফুটে এসেছে তাতে আমরা বুঝতে পারি এবার নির্বাচনটা খুব উৎসব মুখে প্রয়োজন হবে, আমি গত ১৫ বছর ধরে তাদের সঙ্গে ছিলাম তাদের ভালোবাসা পেয়েছি ও তাদের ভালোবাসা দিয়েছি তাই আমি দ্বাদশ নির্বাচনে একটু বেশি কনফিডেন্ট, নির্বাচনের সময় একটু একটু ঝামেলা হয় হবেই নয়তো নির্বাচনের ইমেজটা থাকেনা৷

কে আমাকে কি বলল কে আমার কি করলো কে আমার নির্বাচনে ব্যাঘাত ঘটানো সৃষ্টি করল, ফি আমার নির্বাচনী প্রচারণায় বাধা দিল কে আমার নির্বাচনী ক্যাম্পে ঝামেলা কর তা নেই আমার কোন মাথা ব্যাথা নেই৷ আমার লোক বা অন্যের লোক কেউ যদি নির্বাচনে কোন প্রচার প্রচার বাধা ঘটায় আমি মনে করি তাহলে এটা মিলেমিশে বসে ঠিক করে নেওয়া উচিত৷

আমি লম্বা সময় ধরে ১৫ বছর যাবত নির্বাচনে বিপুল ভোটে জয়যুক্ত হয়ে যাচ্ছি আলহামদুলিল্লাহ৷ যদি আমি মানুষের উপকার করে থাকি আমার নির্বাচন এলাকা উন্নয়ন করে থাকি তাহলে মানুষ আমাকে কোনভাবে ভুলতে পারবে না৷  নতুন প্রজন্ম ও প্রবীণ সবাই উন্নয়নে বিশ্বাস করে ও আমার উন্নয়ন সবাই চোখে দেখেছে, সবাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নকে বিশ্বাস করে শেখ হাসিনা সরকারকে বিশ্বাস করে সেই সঙ্গে তার উসিলায় আমাকেও ভালবাসে৷

এই নির্বাচনে অনেক নতুন ভোটার হয়েছে তারা উন্নয়ন দেখে বড় হয়েছে তারা মনে করছে এই সরকার এই দেশটাকে আরো উন্নয়নের শিখরে নিয়ে যেতে পারবে, তাদের জিবন মানের আরও সুবিধা বারবে সব দিক বিবেচনা করে নতুন ও পুরাতন সবাই মিলে নৌকা কি ভোট দিয়ে বিজয় করবে আমি আশাবাদি৷

আমরা সব সময় সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে সময়োপযোগী সিদ্ধান্ত নিয়ে আসছি কিছু করার, উন্নয়ন চলমান উন্নয়নের ধারা অব্যাহত থাকবে, যে উন্নয়ন করলে জাতি জনগণের জীবনযাপন সহজ ও দেশের ভাবমূর্তি বাড়বে আমরা সেই উন্নয়নের দিকেই হাঁটার চেষ্টা করি৷

রাজনীতি নিয়ে আমার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা আমার তো অনেক বয়স হয়েছে, দ্বাদশ নির্বাচনে কি আমার জীবনের শেষ নির্বাচন কিনা আমি তা ভুলতে পারি না জীবন টা কেমন যাবে বয়সে সন্ধিক্ষণে আগে অগ্রসর হচ্ছি, আমি সর্বত্র চেষ্টা করি উন্নয়নমূলক কাজ করতে তারপর যদি জনগণ মনে করে আমাকে এবং আমারও যদি মনে হয় যে আমার থাকা দরকার জনগণের চাহিদা দেখে তারপর সিদ্ধান্ত নিব।