ঢাকা ১২:৩৪ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

২ হাজার নেতাকর্মী নিয়ে বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন সাভারের এমপির

আনোয়ার সুলতান, সাভার

 

 

সাভার থেকে প্রায় ২ হাজার নেতাকর্মী নিয়ে গোপালগঞ্জে বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন ঢাকা-১৯ (সাভার-আশুলিয়া) এর নতুন সাংসদ সদস্য মুহাম্মদ সাইফুল ইসলাম (এমপি)।

 

এর আগে সকাল ৮ টায় ঢাকার সাভার থেকে ৩ শতাধিক গাড়ির বহর নিয়ে রওনা দেন তিনি। দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এই আসন থেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ট্রাক প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে অংশ নিয়ে জয়লাভ করেন তিনি।

সোমবার (১৫ জানুয়ারি) দুপুর ২ টায় টুঙ্গীপাড়ায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিতে শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন মুহাম্মদ সাইফুল ইসলাম (এমপি)। টুঙ্গীপাড়ায় পৌছে বঙ্গবন্ধুর কবর জিয়ারত করে বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের নিহত সদস্যের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনায় দোয়া করেন (এমপি)।

শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে এমপি সাইফুল ইসলাম বলেন, আমি ঢাকা-১৯ থেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মভূমি, পূণ্যভূমি টুঙ্গীপাড়ায় ওনার সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করার জন্য আমার এলাকার নেতাকর্মীদের নিয়ে এসেছি। শ্রদ্ধা নিবেদন করতে পেরে আমরা ধন্য। আমরা আল্লাহর কাছে দোয়া করেছি আল্লাহ যেন ওনাকে বেহেশতের সর্বোচ্চ মাকাম দান করেন।

এলাকার যানজট নিরসণে কি পদক্ষেপ নিবেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, যানজট নিরসণ মূলত হাইওয়ে পুলিশের কাজ। আমরা হাইওয়ে পুলিশকে নির্দেশনা দিয়েছি, অনেকটা যানজট মুক্ত হয়েছে। আমাদের লোকাল লেনে যে ফুটপাথ বসেছিল সেগুলো ইতিমধ্যেই দখলমুক্ত করে যান চলাচলের জন্য সচল করে দেয়া হয়েছে। এখন অনেকটাই যানজট নিরসণ হয়েছে।

 

স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে সংসদে বিরোধী দলের ভূমিকা পালন করবেন কিনা সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, আমি আশুলিয়া থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। আমি আশা করি সরকার দলের এমপি হিসেবেই সংসদে যোগদান করব। আমি বিরোধী কোন মোর্চার মধ্যে নেই। আমি ইতোমধ্যেই বলেছি, এখনও বলছি, আমি সরকার দলের সাথেই থাকব। আমি ইতোমধ্যে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের স্যারকে বলেছি, আমি থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। আপনি দয়া করে আমাকে সরকার দলে রাখবেন। উনি বলেছেন, ঠিক আছে। ঝায়-ঝামেলা শেষ হওয়ার পর আমার অফিসে আসো। দেখি আমি কি করা যায়!

এসময় তার সাথে উপস্থিত ছিলেন, সাভারের পাথালিয়া ইউপি চেয়ারম্যান পারভেজ দেওয়ান, ইয়ারপুর ইউপি চেয়ারম্যান শামীম আহমেদ সুমন ভুঁইয়া, ঢাকা জেলা উত্তর স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি ইমতিয়াজ উদ্দিনসহ আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

উল্লেখ্য, দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচনে ঢাকা-১৯ আসনে সাবেক সংসদ সদস্য মুরাদ জং ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডাঃ এনামুর রহমানকে হারিয়ে জয়লাভ করেছেন মুহাম্মদ সাইফুল ইসলাম। গত ৮ নভেম্বর আশুলিয়ার ধামসোনা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান পদ থেকে পদত্যাগ করেন তিনি। পরে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কাছে নৌকা প্রতীকের মনোনয়ন প্রত্যাশা করেন। নৌকা না পেয়ে স্বতন্ত্র ভাবে ট্রাক মার্কায় নির্বাচনে অংশ নেন এই আওয়ামী লীগ নেতা। তিনি ঢাকার আশুলিয়া থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বে আছেন।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপডেট সময় ০৬:০৯:১০ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ জানুয়ারী ২০২৪
২৭০ বার পড়া হয়েছে

২ হাজার নেতাকর্মী নিয়ে বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন সাভারের এমপির

আপডেট সময় ০৬:০৯:১০ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ জানুয়ারী ২০২৪

 

 

সাভার থেকে প্রায় ২ হাজার নেতাকর্মী নিয়ে গোপালগঞ্জে বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন ঢাকা-১৯ (সাভার-আশুলিয়া) এর নতুন সাংসদ সদস্য মুহাম্মদ সাইফুল ইসলাম (এমপি)।

 

এর আগে সকাল ৮ টায় ঢাকার সাভার থেকে ৩ শতাধিক গাড়ির বহর নিয়ে রওনা দেন তিনি। দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এই আসন থেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ট্রাক প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে অংশ নিয়ে জয়লাভ করেন তিনি।

সোমবার (১৫ জানুয়ারি) দুপুর ২ টায় টুঙ্গীপাড়ায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিতে শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন মুহাম্মদ সাইফুল ইসলাম (এমপি)। টুঙ্গীপাড়ায় পৌছে বঙ্গবন্ধুর কবর জিয়ারত করে বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের নিহত সদস্যের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনায় দোয়া করেন (এমপি)।

শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে এমপি সাইফুল ইসলাম বলেন, আমি ঢাকা-১৯ থেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মভূমি, পূণ্যভূমি টুঙ্গীপাড়ায় ওনার সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করার জন্য আমার এলাকার নেতাকর্মীদের নিয়ে এসেছি। শ্রদ্ধা নিবেদন করতে পেরে আমরা ধন্য। আমরা আল্লাহর কাছে দোয়া করেছি আল্লাহ যেন ওনাকে বেহেশতের সর্বোচ্চ মাকাম দান করেন।

এলাকার যানজট নিরসণে কি পদক্ষেপ নিবেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, যানজট নিরসণ মূলত হাইওয়ে পুলিশের কাজ। আমরা হাইওয়ে পুলিশকে নির্দেশনা দিয়েছি, অনেকটা যানজট মুক্ত হয়েছে। আমাদের লোকাল লেনে যে ফুটপাথ বসেছিল সেগুলো ইতিমধ্যেই দখলমুক্ত করে যান চলাচলের জন্য সচল করে দেয়া হয়েছে। এখন অনেকটাই যানজট নিরসণ হয়েছে।

 

স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে সংসদে বিরোধী দলের ভূমিকা পালন করবেন কিনা সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, আমি আশুলিয়া থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। আমি আশা করি সরকার দলের এমপি হিসেবেই সংসদে যোগদান করব। আমি বিরোধী কোন মোর্চার মধ্যে নেই। আমি ইতোমধ্যেই বলেছি, এখনও বলছি, আমি সরকার দলের সাথেই থাকব। আমি ইতোমধ্যে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের স্যারকে বলেছি, আমি থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। আপনি দয়া করে আমাকে সরকার দলে রাখবেন। উনি বলেছেন, ঠিক আছে। ঝায়-ঝামেলা শেষ হওয়ার পর আমার অফিসে আসো। দেখি আমি কি করা যায়!

এসময় তার সাথে উপস্থিত ছিলেন, সাভারের পাথালিয়া ইউপি চেয়ারম্যান পারভেজ দেওয়ান, ইয়ারপুর ইউপি চেয়ারম্যান শামীম আহমেদ সুমন ভুঁইয়া, ঢাকা জেলা উত্তর স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি ইমতিয়াজ উদ্দিনসহ আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

উল্লেখ্য, দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচনে ঢাকা-১৯ আসনে সাবেক সংসদ সদস্য মুরাদ জং ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডাঃ এনামুর রহমানকে হারিয়ে জয়লাভ করেছেন মুহাম্মদ সাইফুল ইসলাম। গত ৮ নভেম্বর আশুলিয়ার ধামসোনা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান পদ থেকে পদত্যাগ করেন তিনি। পরে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কাছে নৌকা প্রতীকের মনোনয়ন প্রত্যাশা করেন। নৌকা না পেয়ে স্বতন্ত্র ভাবে ট্রাক মার্কায় নির্বাচনে অংশ নেন এই আওয়ামী লীগ নেতা। তিনি ঢাকার আশুলিয়া থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বে আছেন।